আজীবন সাফল্যে পেতে করণীয়!

মে ০৯ ২০১৭, ২১:৪৫

একজন মানুষকে তার জীবনের লক্ষে পৌছাতে হতে কিছু অভ্যাস অতি জরুরী পরির্বতন করা প্রয়োজন। তার নিত্য দিনের অভ্যাস কাজ কর্ম নিয়ম করে চললে তার জীবনের সাফল্যের দার প্রান্তে পৌছাতে সক্ষম হবেন। বয়স বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে তার জীবনের মধ্যে কিছু পরিবর্তন আনতে হয়। যা তার অগোছালো জীবনটাকে বদলে এনে দেয় সফলতা। অধিকাংশ মানুষ তার জীবনের প্রথম ২০টি বছরই ব্যয় করে অস্বাস্থ্যকর অভ্যাসের মধ্য দিয়ে। ঘুম থেকে ওঠে দুপুর ২টায়। চলে অনিয়মিত খাওয়া-দাওয়া। অগোছালো চলা-ফেরা তো রয়েছেই।

৩০ এর মধ্যে যে পরিবর্তনগুলো সাফল্যের শিখরে উঠতে সাহায্য করবে আপনাকে। সেখানে বলা হয়েছে, ২০ বছর বয়েসীদের মধ্যে একটি বদভ্যাস হচ্ছে অগোছালো জীবন। অনেক মানুষই এই অগোছালো জীবনের গণ্ডি থেকে বের হতে পারেনা। যা তার জীবনের সাফল্যের পথে অন্যতম বাধা। কিন্তু ৩০ বয়সটা একটি আদর্শ বয়স। এই সময়টা কাজে লাগিয়েই আপনার ব্যক্তি জীবন এবং পেশাগত জীবনে নিয়ে আসতে পারেন আজীবন সফলতা। যা বকি জীবনকে সুন্দর এবং সাফল্যমণ্ডিত করবে।

ব্যক্তি জীবনে সাফল্য পেতে যে ১০টি পরিবর্তন গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে তা নিম্নে তুলে ধরা হলো।

১.প্রতিদিন একই সময়ে ঘুমানো: নির্দিষ্ট সময়ে পরিমাণ মতো ঘুম আপনার সারাদিনের কাজের ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে। যা আপনার শারীরিক সুস্থতা ও মানসিক প্রশান্তি পেতে সাহায্য করবে।

২. নিয়মিত ব্যায়াম: চাইলেই নিজেকে সাফল্যের পথে নিয়ে যাওয়া সম্ভব। এটি আসলেই কঠিন কিছু নয়। এর জন্য অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ একটি দিক হলো নিয়মিত ব্যায়াম। যা আপনার শারীরিক ফিটনেসকে ধরে রাখবে। অল্পতেই হাপিয়ে ওঠার ও শারীরিক অবসাদকে দূরে রাখতে এটি বেশ কার্যকর।

৩. নিয়মিত সংবাদ পাঠ: নিয়মিত সংবাদ পাঠ করতে হবে। এছাড়া মার্ক ক্রাওলি বলেছেন, জীবনই সংবাদ! এছাড়া লেখা-লেখি ভবিষ্যতে তোমাকে বিনোদন দেবে। এমনকি গাইতে পারো গান। যা তোমার অনুভূতির জায়গাটাকে

প্রশস্ত করবে।

৪. ধূমপান বর্জন: ব্যক্তি জীবনে সাফল্য পেতে হলে শুরুতেই আপনাকে ধূমপান বর্জন করতে হবে। কেননা এই ধূমপান আপনার মানসিক বিকাশের পথে অন্যতম বাধা। এক গবেষণায় দেখা গেছে, যারা ৪০ বছরের মধ্যে ধূমপান ত্যাগ করে তাদের মধ্যে মৃত্যু ঝুঁকি ৯০ শতাংশ কম, তাদের চেয়ে যারা ৪০ এর পরেও ধূমপান অব্যাহত রাখে।

৫. অর্থ সঞ্চয়: একেবারে প্রথম থেকেই অর্থ সঞ্চয় করার অভ্যাস করুন। ক্লিপ গিল্লি বলেন, প্রাথমিকভাবে অর্থ সংরক্ষণের অভ্যাস না করলে আপনি ধিরে ধিরে নিচের সারিতে নেমে যেতে পারেন।

৬. স্বপ্নকে অনুসরণ করা: এ বয়সে আপনার স্বপ্নকে সাজান নিজের মতো করে এবং এর বাস্তবায়নের জন্য পা রাখুন স্বপ্নের পথে। লক্ষ্য ঠিক করুন। এগিয়ে যান লক্ষ্যের দিকে, বলেছেন বিল কারউইন।

৭. সুখী ভাবতে শুরু করা: এ বয়সে আপনার যা কিছু আছে তাই নিয়ে নিজেকে সুখী ভাবতে শুরু করুন। রোবার্ট হাল্কার বলেন, আপনার যা আছে, তাই নিয়ে যদি আপনি নিজেকে সুখী ভাবেন তাই আপনাকে সুখের পথে একধাপ এগিয়ে নিয়ে যাবে।

৮. সবাইকে সন্তুষ্ট রাখার চিন্তা বন্ধ করুন: একটি মানুষের জীবনের সঙ্গে বহু মানুষ জড়িয়ে থাকে। কিন্তু চলার পথে কখনো সবাইকে সন্তুষ্ট করা যায়না। বিষয়টা মাথায় রেখেই এ চিন্তা থেকে সরে আসতে হবে।

৯. অন্যদের সঙ্গে নিজেকে তুলনা করা থেকে সরে আসতে হবে: বন্ধু অথবা অন্যদের সঙ্গে নিজেকে তুলনা করা থেকে বিরত থাকুন। কেননা তা আপনাকে প্রতিযোগিতায় লিপ্ত করবে, আপনার নিজের ওপর নিজেকে কঠোর করে তুলবে। যা আপনাকে ব্যক্তিগত স্বপ্ন থেকে দূরে ঠেলে দেবে।

১০. ভুলের জন্য নিজেকে ক্ষমা করা: একটি জীবনে কতোইনা চড়াই-উৎরাই পার করতে হয়। ভুল-শুদ্ধ নিয়েই জীবন। লিজ পারমারের ভাষায়, ভুলের জন্য নিজেকে ক্ষমা করে দিন এবং সবকিছু ভুলে আবারো নতুন উদ্যমে অতীতের ভুল থেকে শিক্ষা নিয়ে এগিয়ে যান।

Facebook Comments

<a href=”http://barisallive24.com/wp-content/uploads/2017/05/infra-add.jpg” target=”_blank” rel=”noopener”><img src=”http://barisallive24.com/wp-content/uploads/2017/05/Hoopers1.jpg” width=”331″ height=”270″ /></a>