আদালতে হেরে গেলেন মমতা, মহরমের দিনও বিসর্জন

সেপ্টেম্বর ২১ ২০১৭, ২৩:০৪

আদালতে হেরে গেলেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধায়। আদালতের নির্দেশ অনুযায়ী, মহরমের দিন দুর্গা পুজোর বিসর্জন করা যাবে।

রাজ্য সরকারের নির্দেশিকাকে চ্যালেঞ্জ করে জনস্বার্থ মামলায় এই অন্তর্বর্তী নির্দেশ দিল কলকাতা হাইকোর্টের ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি রাকেশ তিওয়ারি ও বিচারপতি হরিশ টন্ডনের ডিভিশন বেঞ্চ।

আদালত তার নির্দেশে বলে, দশমী থেকে রোজ রাত ১২টা পর্যন্ত বিসর্জন দেওয়া যাবে। সব দিনেই বিসর্জন দেওয়া যাবে। তবে রাত ১২টার মধ্যে ঘাটে পৌঁছাতে হবে বিসর্জন দিতে গেলে।

এর আগে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সরকার বিজ্ঞপ্তি জারি করে জানিয়েছিল, দশমীর দিন (৩০ সেপ্টেম্বর, শনিবার) রাত ১০টা পর্যন্ত বিসর্জন করা যাবে। তার পরের দিন অর্থাৎ রবিবার (১ অক্টোবর) একাদশীর দিন মহরম পড়েছে। ওই দিন কোনও বিসর্জন করা যাবে না।

এই নির্দেশিকাকে চ্যালেঞ্জ করেই তিনটি জনস্বার্থ মামলা

হয় কলকাতা হাইকোর্টে। সেই মামলায় নির্দেশ দিল ডিভিশন বেঞ্চ।

তবে আদালত জানিয়েছে, কোন পথ দিয়ে বিসর্জন ও কোন পথ দিয়ে মহরমের মিছিল যাবে, তা ঠিক করে দেবে পুলিশ। পুলিশকেই আলাদা রুট ঠিক করে দিতে হবে।

বিচারপতিরা বলেন, আইনশৃঙ্খলা রক্ষা করা পুলিশের দায়িত্ব।

এর আগে বৃহস্পতিবার ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতির ডিভিশন বেঞ্চ শুনানি চলাকালীন তাদের পর্যবেক্ষণে বলে, রাজ্য তার ক্ষমতা ব্যবহার করতে পারে। কিন্তু আমরা ক্ষমতার যথেচ্ছ প্রয়োগের অনুমতি দিতে পারি না।

আদালত বলেন, রাজ্য সরকারকে ধাপে ধাপে এগোতে হবে। কোনও জমায়েত থেকে আইনশৃঙ্খলার সমস্যা তৈরি হলে, প্রথমে জলকামান ব্যবহার করতে হবে। তার পরে প্রয়োজনে মৃদু লাঠিচার্জ। কিন্তু প্রথমেই গুলি চালাতে পারে না সরকার।

বিচারপতিদের মতে, বিসর্জনের উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করে প্রথমেই চূড়ান্ত পদক্ষেপ নিয়ে নিচ্ছে রাজ্য সরকার।

Facebook Comments

<a href=”http://barisallive24.com/wp-content/uploads/2017/05/infra-add.jpg” target=”_blank” rel=”noopener”><img src=”http://barisallive24.com/wp-content/uploads/2017/05/Hoopers1.jpg” width=”331″ height=”270″ /></a>