আমতলীতে আমন বীজ ধানের তীব্র সংকট

জুন ২২ ২০১৭, ০০:১১

আমতলী প্রতিনিধি: বরগুনার আমতলীতে কৃষকরা আউশ ধানের চারা বপন করেছে। এখন আমনের চারা তৈরী করতে প্রস্তুতি নিয়েছে। এ মুহূর্তে বাজারে বিআর ২৩ ও ভিত্তি ৫২ ধানের বীজধান কৃষক বাজারে পাচ্ছে না। যতসামান্য বীজধান ডিলারদের কাছে পেলেও তা চড়াদামে ক্রয় করতে হচ্ছে। এ অবস্থায় কৃষক দিশেহারা হয়ে পড়েছে। আমতলী উপজেলার সকলস্থানে কৃষক আউশ ধানের চারা রোপন করেছে। এখন কৃষক ক্ষেতে আমনের চাষাবাদের জন্য প্রস্তুতি নিয়েছে। আমনের বীজতলা করার জন্য বীজধান পাচ্ছে না। আরপাঙ্গাশিয়ার কৃষক জসিম উদ্দিন জানান, এ অঞ্চলে আমনের বীজ বিআর ২৩ ও ভিত্তি ৫২ দিয়ে চারা তৈরী করে। বাজারের কৃষক এ ধানের বীজ পাচ্ছে না। বুধবার সকালে আমতলী হাসপাতাল রোডের বীজ ও সার ডিলার এসবি ট্রাডার্সে চিলাগ্রামের কৃষক কবির মিয়া বিআর ২৩ ধানের বীজ ধান দুই বস্তা( ২০ কেজি) ক্রয় করতে গেলে দাম চাওয়া হয় ৮৪০ টাকা। কৃষক দু’বস্তা ধানের দর ৮০০ টাকা বলে দরকষাকষি করলেও ডিলার ইউনুস মিয়া তা দিতে অস্বীকার করে। ডিলার ইউনুস মিয়া বলেন পটুয়াখালী বিআরডিসি গুদাম

থেকে বীজধান সরবরাহ বন্ধ রেখেছে। বাহির থেকে বেশী দামে কিনে বিক্রি করতে হচ্ছে বিধায় সরকারী দরে ধানের বীজ বিক্রি করা যাচ্ছেনা । তিনি অভিযোগ করেন, পটুয়াখালীর দু’জন ডিলার বাজার নিয়ন্ত্রণ করছে। তারা জুন মাসে ২৫ থেকে ৩০ মেট্রিকটন বিআর ২৩ ও ভিত্তি ৫২ ধানের বীজ গুদাম থেকে উত্তোলন করে কালোবাজারে বিক্রি করে দিয়েছে। বিএডিসি অফিস সুত্রে জানা গেছে, বিআর ২৩ ধানের ১০ কেজি ওজনের এক বস্তার দাম ৩৫০ টাকা এবং ভিত্তি ৫২ ধানের বস্তার দাম ৪ শ’ টাকা। এ দামে কৃষকপর্যায় বিক্রি করার পরে ডিলাররা খরচসহ শতকরা ১৩% কমিশন পাবেন । কিন্তু কতিপয় অসাধু ব্যবসায়ী বীজধান বাজারে সংকট দেখিয়ে চরাদামে বিক্রি করছে বলে অভিযোগ রয়েছে। পটুয়াখালী ও বরগুনার বিএডিসি উপ পরিচালক আরশাফুল জামান মুঠো ফোনে বলেন, বিআর ২৩ ও ভিত্তি ৫২ ধানের বীজের চাহিদা অনুসারে সরবরাহ পাচ্ছি না। এ কারনে বাজারে সংকট দেখা দিয়েছে।আমনের মৌসুমের এ সময় বীজধান কৃষক না পেলে আমন ধানের ফলনের চরম বিপর্যয় দেখা দিবে বলে কৃষকরা জানিয়েছেন।

Facebook Comments

<a href=”http://barisallive24.com/wp-content/uploads/2017/05/infra-add.jpg” target=”_blank” rel=”noopener”><img src=”http://barisallive24.com/wp-content/uploads/2017/05/Hoopers1.jpg” width=”331″ height=”270″ /></a>