আমতলীতে চলছে পাউবোর জমি দখলের মহোৎসব

মে ২৯ ২০১৭, ২২:২৭

আমতলী প্রতিনিধি: বরগুনার আমতলীতে চলছে পানি উন্নয়ন বোর্ডের জমি দখলের মহোৎসব । যে যেভাবে , যেখানে পারছে সে ভাবে দখল করছে পাউবোর জমি। দখল করেই প্রভাবশালীরা টিনসেট পাকা স্থাপনা নির্মান করছে। মনে হয় যেন দেশে কোন আইন কানুন নাই। এমনকি প্রভাবশালীরা আইনের কোনো তোয়াক্কা না করে থানার নোটিশ অমান্য করে দখল করছে পাউবোর জমি। আমতলী পৌরসভার ৩ নং ওয়ার্ডে শতাধিক ব্যক্তি অবৈধভাবে পাউবোর জমি দখল করে পাকা স্থাপনা ও টিনসেট ভবন করেছেন এবং করতেছেন। সম্প্রতি পৌরসভার ৩ নং ওয়ার্ডের রুহুল আমিন মিয়ার বাড়ী সলগ্ন পানি উন্নয়ন বোর্ডের জমির জলাশয় / পুকুর ভরাট করে অবৈধ ভাবে ঘর উত্তোলন করছে প্রভাবশালীরা। কিন্তু উক্ত জলাশয়টি মাছ চাষের জন্য লিজ নেয়ার জন্য বরগুনা পানি উন্নয়ন বোর্ডে আবেদন করেছির রুহুল আমীন দুলাল নামক জনৈক ব্যক্তি সেই আবেদনটি প্রক্রিয়াদীন , রুহুল আমীন দুলালকে পুকুরটি টি লিজ দেয়ার জন্য আবেদন পত্রে সুপারিশ করেছিল বরগুনা -১ আসনের সংসদ সদস্য এ্যাডঃ ধীরেন্দ্র দেবনাথ সম্ভু। সে সুপারিশের কারনেই রুহুল আমিন দুলালের লিজ নেয়ার আবেদন প্রক্রিয়াদিন । কিন্তু প্রভাবশালীরা নিয়মনীতি আইনকানুনের কোন তোয়াক্কা না করে গায়ের জোর পুকুরটি ভরাট করে টিনসেট ঘর উত্তোলন করেছেন। রুহুল আমিন দুলাল জানান ,পানি উন্নয়ন বোডর্ বরগুনা কর্তৃক আমতলী থানায় লিখিত অভিযোগ দেয়ার পরও মো. মিরাজ, মো. হুমায়ুন , শহিদ কবিরাজ, অবৈধ ভাবে ঘর উত্তোলন করেছেন । গত ৯ মার্চ বরগুনা পানি

উন্নয়ন বোর্ড আমতলী থানায় অবৈধ দখল কারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার জন্য লিখিত অভিযোগ দাখিল করেন। অভিযোগ দাখিল করার পর কয়েক দিন কাজ বন্ধ করে রাখেন অবৈধ দখলকারীরা । কিন্তু গতকাল সকালে পুনরায় উক্ত স্থানে টিনসেট ঘর উত্তোলন করেছেন। পানি উন্নয়ন বোর্ডের থানায় দেয়া লিখিত অভিযোগে জানা যায় চাওড়া মৌজার জেএল নং ৩০ খতিয়ান নং ১৬৩ দাগ নং ৮৯৮ জমিতে একট পুকুর / জলাশয় ছিল গত কয়েক দিন পূর্বে উক্ত পুকুর/জলাশয়টি বালিদ্বারা ভরাট করে , মো. মিরাজ , শহিদ কবিরাজ, হুমায়ুন , তারা সকল আইন কানুন উপেক্ষা করে উক্ত জমিতে ঘর উত্তোলন করেছেন। এ ব্যাপারে বরগুনা পানি উন্নয়ন বোর্ডের উপ-সহকারী প্রকৌশলী মো. শাহালোম মিয়া বলেন অবৈধ দখল কারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে ও সরকারী জমি রক্ষা করতে আমতলী থানায় লিখিত অভিযোগ দেওয়া হয়েছে। এ ব্যাপারে জানার জন্য অভিযুক্তদের মধ্যে শহিদ কবিরাজের মুঠোফোন তার ছেলে স¤্রাট রিসিভ করে বলেন বাবা এ ব্যাপারে কোনো কথা বলবেন না। অপর অভিযুক্ত মিরাজের বক্তব্য জানার জন্য তার মুঠোফোনে একাধিকবার চেষ্টা করে ও পাওয়া যায়নি। আমতলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. শহিদ উল্লাহ জানান কোনো ধরনের স্থাপনা করতে নিষেধ করা হয়েছে। এরপরও কোন ধরনের কাজ করলে কঠোর ভাবে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে। বরগুনার পাউবোর নির্বাহী প্রকৌশলী মো. মশিউর রহমান বলেন সরকারী সম্পত্তি রক্ষা করতে আমরা থানায় অভিযোগ দিয়েছি । আশা করি থানা কর্তৃপক্ষ ব্যবস্থা নিবেন।

Facebook Comments

<a href=”http://barisallive24.com/wp-content/uploads/2017/05/infra-add.jpg” target=”_blank” rel=”noopener”><img src=”http://barisallive24.com/wp-content/uploads/2017/05/Hoopers1.jpg” width=”331″ height=”270″ /></a>