আমতলীতে দৃষ্টি প্রতিবন্ধী অন্তঃসত্ত্বাকে পিটিয়ে হত্যা

জুন ০৯ ২০১৭, ২২:৪৬

আমতলী প্রতিনিধি: বরগুনার আমতলীতে দৃষ্টি প্রতিবন্ধী হতদরিদ্র মফেজ হাওলাদারের কন্যা ৬ মাসের অন্তঃসত্ত্বা মনিরাকে (১৯) যৌতুকের কারনে স্বামী মেহেদী হাসান (২১)সহ শ্বশুর বাড়ীর লোকজন পিটিয়ে হত্যা করেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।জানা গেছে, বরগুনার আমতলী উপজেলার গুলিশাখালী ইউনিয়নের হরিদ্রাবাড়ীয়া গ্রামের হতদরিদ্রবাড়ীয়া গ্রামের দৃষ্টি প্রতিবন্ধী মফেজ হাওলাদারের মেয়ে মনিরার সাথে একই ইউনিয়নের কলাগাছিয়া গ্রামের আলমগীর শিকদারের ছেলে মেহেদী’র এক বছর আগে বিয়ে হয়। মফেজ হাওলাদার অভিযোগ করেন, বিয়ের পর থেকে জামাতা মেহেদী হাসান ৫০ হাজার টাকা যৌতুক দাবী করে তার মেয়েকে নির্যাতন করে আসছিল। এদিকে মেহেদী হাসান বিয়ের পরে কাজের সন্ধানে পরিবার পরিজন নিয়ে গ্রাম ছেড়ে বরিশালে চলে যায়। মেহেদী বরিশাল শহরের সাগরদি এলাকায় বাসা নিয়ে দিন মজুরের কাজ করে।মফেজ হাওলাদার জানান, বুধবার সন্ধ্যায় তার মেয়ে মোবাইল ফোনে বলেন “বাবা ওরা এক জোড়া স্বর্নের কানের দুল ও ৫০

হাজার টাকা না দেয়াতে প্রতি রাতে আমাকে অমানবিক নির্যাতন করছে।’ মেয়ের সাথে বাবার এ কথা ছিল শেষ কথা। বৃহস্পতিবার সকালে বাবা জানতে পারেন, তার মেয়েকে পিটিয়ে হত্যা করে ঘরের ফ্যানের সাথে ঝুলিয়ে ঘরের লোকজন পালিয়ে গেছে। এ খবর পেয়ে বাবাসহ পরিবারের লোকজন ঘটনাস্থলে ছুটে যায়।ওই দিন সকালে প্রতিবেশীরা দেখতে পায় মনিরা ফ্যানের সাথে ঝুলে আছে। তাৎক্ষনিক স্থানীয় লোকজন বরিশাল কোতয়ালী থানায় খবর দিলে পুলিশ গিয়ে মনিরার লাশ উদ্ধার করে। শুক্রবার (৯ জুন) ময়না তদন্ত শেষে পুলিশ মনিরার লাশ পিতা মফেজ হাওলাদারের কাছে হস্তান্তর করেছে। মামলার তদন্তকারী অফিসার এস আই মোঃ মশিউর রহমান স্বামী মেহেদী হাসানকে আটকের কথা জানিয়ে বলেন, মামলার তদন্ত চলছে। বরিশাল কোতয়ালী থানার ওসি আওলাদ হোসেন ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্ত শেষে নিহতের বাবা মা’র কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

Facebook Comments

<a href=”http://barisallive24.com/wp-content/uploads/2017/05/infra-add.jpg” target=”_blank” rel=”noopener”><img src=”http://barisallive24.com/wp-content/uploads/2017/05/Hoopers1.jpg” width=”331″ height=”270″ /></a>