আ’লীগ ৩০টির বেশি আসন পাবে না: ফখরুল

জুন ০৭ ২০১৭, ২২:৫১

নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচন হলে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ ৩০টির বেশি আসন পাবে না বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

বুধবার দুপুরে ঢাকেশ্বরী মন্দিরে এক অনুষ্ঠানের পর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের বক্তব্যের জবাবে বিএনপি মহাসচিব এই প্রতিক্রিয়া জানান।

তিনি বলেন, ব্যাপারটা হচ্ছে, আওয়ামী লীগের পায়ের তলায় মাটি নেই। তারা পুরোপুরিভাবে গণবিচ্ছিন্ন হয়ে  গেছে। তারা খুব ভালো করে জানেন, যদি সহায়ক সরকার বা নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে সরকার নির্বাচন  দেয়, তারা (আ’লীগ) ৩০টার  বেশি আসন কোনো দিনই পাবে না।

ফখরুল বলেন, প্রকৃতপক্ষে এখন তারা (সরকার) দেশের যে অবস্থা তৈরি করে ফেলেছেন তাতে দেশের মানুষ অপেক্ষা করছে একটা নিরপেক্ষ নির্বাচনে জন্য। সেখানেই তাদের সেই কথাগুলোর দাঁতভাঙা জবাব দিয়ে দেবে জনগণ।

ঢাকেশ্বরী মন্দিরে হিন্দু-বৌদ্ধ-খৃষ্টান কল্যাণ ফ্রন্টের উদ্যোগে শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের ৩৬তম শাহাদতবার্ষিকী উপলক্ষে আলোচনা ও প্রার্থনা সভা হয়। তারা জিয়ার আত্মার শান্তি কামনা করে প্রার্থনা করেন।

ওবায়দুল কাদের বক্তব্যের সমালোচনা করে ফখরুল বলেন,  বাধ্য হয়ে তাদের এসব কথা বলতে হচ্ছে। যেটাকে আমরা বলি, পলিটিক্যাল রেটরিক্স বা রাজনৈতিক কথা

আর কি।  সেই সমস্ত রেটরিক্স নিয়ে তো রাজনীতি হবে না। জনগণকেও বোকা বানানো যাবে না।

তিনি বলেন, এবার নির্বাচন দিতে হবে, সবার অংশগ্রহণে মাধ্যমে নির্বাচন দিতে হবে, নিরপেক্ষ সরকারের অধীনেই নির্বাচন দিতে হবে। নির্বাচন দিলেই দেখা যাবে, তারা কোথায় গিয়ে অবস্থান করছেন।

শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের আদর্শ তুলে ধরে মির্জা ফখরুল বলেন, জিয়াউর রহমান একজন অসাম্প্রদায়িক ব্যক্তি ছিলেন। তিনি বিশ্বাস করতেন,প্রতিটি মানুষ তার নিজ নিজ ধর্ম পালন করবেন। তিনি ধর্মহীনতা বিশ্বাস করতেন না।

মির্জা ফখরুল বলেন, বিএনপি জিয়ার সেই দর্শনে পরিচালিত হচ্ছে। আমরা কোনো সাম্প্রদায়িকতা বিশ্বাস করি না। এর মূল উৎপাটনে আমরা দৃঢ় প্রতিজ্ঞ।

দেশে বর্তমানে কোনো সম্প্রদায়ের মানুষ ও তার সম্পত্তি নিরাপদ নয় উল্লেখ করে গণতন্ত্র ফিরিয়ে আনার সংগ্রামে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বানও জানান তিনি।

হিন্দু-বৌদ্ধ-খৃষ্টান কল্যাণ ফ্রন্টের আহ্বায়ক গৌতম চক্রবর্তীর সভাপতিত্বে ও অমলেন্দু দাশ অপুর পরিচালনায় এই প্রার্থনা সভায় বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা সঞ্জীব চৌধুরী, অধ্যাপক সুকোমল বড়ুয়া, জয়ন্ত কুমার কুণ্ডু, নুকুল চন্দ্র সাহা, জন গোমেজ, রমেশ দত্ত, সুশীল বড়ুয়া, দেবাশীষ রায় মধুসহ ছাত্র দলের নেতৃবৃন্দ বক্তব্য রাখেন।

Facebook Comments

<a href=”http://barisallive24.com/wp-content/uploads/2017/05/infra-add.jpg” target=”_blank” rel=”noopener”><img src=”http://barisallive24.com/wp-content/uploads/2017/05/Hoopers1.jpg” width=”331″ height=”270″ /></a>