ইউএনও তারিক সালমনের বিরুদ্ধে মামলা খারিজ

জুলাই ২৩ ২০১৭, ১৪:৩২

বরিশাল: বঙ্গবন্ধুর ছবি ‘বিকৃতির’ অভিযোগে বরিশালের আগৈলঝাড়া উপজেলার সাবেক নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) গাজী তারিক সালমনের বিরুদ্ধে করা মানহানির মামলা খারিজ করে দিয়েছেন আদালত। গাজী তারিক সালমন বর্তমানে বরগুনা সদর উপজেলায় কর্মরত।

রোববার (২৩ জুলাই) সকালে বরিশালের চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট (সিএমএম) অ‍াদালতে মামলাটি প্রত্যাহারের আবেদন জানান বাদী বরিশাল জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি ও জেলা আওয়ামী লীগের সাময়িক বহিষ্কৃত ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক সৈয়দ ওবায়েদ উল্লাহ সাজু। অন্যদিকে মামলা খারিজের আবেদন জানান ইউএনও’র আইনজীবীরা।

অতিরিক্ত চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট অমিত কুমার দে’র আদালত বাদীর জবানবন্দি নিয়ে বেলা সোয়া ১১টার দিকে মামলাটি খারিজ করে দেন বলে জানিয়েছেন আসামিপক্ষের আইনজীবী অ্যাডভোকেট আফজালুল করিম।

তিনি জানান, বাদীপক্ষ মামলাটি প্রত্যাহারের আবেদন জানান। সে আবেদনের প্রেক্ষিতে বাদীর জবানবন্দি নেওয়া হয়। আদালত ইউএনও’র বিরুদ্ধে এ মামলা করার আগে সরকারের অনুমতি রয়েছে কি-না জানতে চাইলে বাদী এর সদুত্তর দিতে পারেননি। পরে ইউএনও তারিক সালমনের বিরুদ্ধে দায়ের করা মামলা খারিজ করে দেন আদালত।

তিনি জানান, আগের আবেদনের প্রেক্ষিতে ইউএনও’র আদালতে হাজির হওয়ার কোনো প্রয়োজন ছিলো না। তাই তিনি হাজির হননি। তবে তার পক্ষের সকল আইনজীবীই মামলাটি পরিচালনায় আদালতে হাজির ছিলেন।

আসামিপক্ষে আদালতে উপস্থিত হয়ে বরিশালের অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার মো. নূরুল আমিন বলেন, মামলাটির শুনানির দিন ধার্য থাকায় ইউএনও তারিক সালমনের পক্ষে মামলা খারিজের আবেদন করা হয়েছিলো। অন্যদিকে বাদী প্রত্যাহারের আবেদন জানালেও মামলা খারিজ করে দেন আদালত।

মামলার বাদী জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি অ্যাডভোকেট সৈয়দ ওবায়েদ উল্লাহ সাজু বলেন, তিনি স্বপ্রণোদিত হয়ে মামলাটি করেছিলেন এবং সেভাবেই প্রত্যাহারের আবেদন জানিয়েছেন।

তিনি আরো বলেন, বঙ্গবন্ধুর ছবি শিশুর আঁকা- এটি তার জানা ছিলো না। বঙ্গবন্ধুর

ছবি পেছন থেকে সামনে আনা হয়েছে- সেটিও তার জানা ছিলো না। আসামিপক্ষ পরবর্তীতে আদালতে সঠিক ছবি জমা দেওয়ায় মামলা প্রত্যাহারের আবেদন জানিয়েছেন তিনি।

আগৈলঝাড়া উপজেলা প্রশাসনের গত ২৬ মার্চ মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস-২০১৭ এর কর্মসূচির আমন্ত্রণপত্রে এক শিশুশিল্পীর আঁকা জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ছবি ছাপেন ইউএনও গাজী তারিক সালমন। এর আগে ১৭ মার্চ বঙ্গবন্ধুর জন্মদিন ও জাতীয় শিশু দিবসের প্রতিযোগিতায় বঙ্গবন্ধুর ওই ছবিটি এঁকে বিজয়ী হয় ওই শিশুশিল্পী।

এরপর গত ০৭ জুন বরিশালের সিএমএম আদালতে ইউএনও গাজী তারিক সালমনের বিরুদ্ধে ৫ কোটি টাকার মানহানির মামলা করেন সৈয়দ ওবায়েদ উল্লাহ সাজু। মামলাটি আমলে নিয়ে ১৯ জুলাই হাজির হতে আসামির বিরুদ্ধে সমন জারি করেন সিএমএম মো. আলী হোসাইনের আদালত।

গত ১৯ জুলাই আদালতে হাজির হয়ে জামিনের আবেদন জানান ইউএনও সালমন। প্রথমে তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দিলেও পরে তা প্রত্যাহার করে জামিন মঞ্জুর করেন একই আদালত।

মামলার এজাহারে বাদী সৈয়দ ওবায়েদ উল্লাহ সাজু অভিযোগ করেন, ‘গাজী তারিক সালমন বরিশালের আগৈলঝাড়ার ইউএনও থাকাকালে মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবসের কর্মসূচির আমন্ত্রণপত্রে বঙ্গবন্ধুর ছবি ‘বিকৃত’ করে ছাপানো হয়। ওই আমন্ত্রণপত্র যাদের হাতে যায়, তারাই বঙ্গবন্ধুর বিকৃত ছবি দেখে মর্মাহত হন। এতে তারও ৫ কোটি টাকার মানহানি হয়েছে’।

সাজু তার মামলার এজাহার ও বক্তব্যে বঙ্গবন্ধুর প্রতি নিজের শ্রদ্ধাবোধের কথা উল্লেখ করে সামনের পাতায় না ছাপিয়ে বঙ্গবন্ধুর ‘বিকৃত’ ছবি পেছনের পাতায় ছাপানোর অভিযোগে মামলাটি করায় জেলা আওয়ামী লীগের ধর্ম বিষয়ক সম্পাদকের পদ থেকে ইতোমধ্যেই সাময়িক বহিষ্কৃত হয়েছেন। দেশজুড়ে চরম সমালোচনার প্রেক্ষিতে প্রধানমন্ত্রী ও দলের সভাপতি শেখ হাসিনার নির্দেশে তাকে সাময়িক বহিষ্কার করেছে কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগ।

Facebook Comments

<a href=”http://barisallive24.com/wp-content/uploads/2017/05/infra-add.jpg” target=”_blank” rel=”noopener”><img src=”http://barisallive24.com/wp-content/uploads/2017/05/Hoopers1.jpg” width=”331″ height=”270″ /></a>