ইসির সংলাপে আমন্ত্রণ পাচ্ছেন ৬০ বুদ্ধিজীবী, চিঠি যাচ্ছে সোমবার

আপডেট : July, 23, 2017, 8:51 pm

ডেস্ক রিপোর্টঃ সংলাপের জন্য সুশীল সমাজের (বুদ্ধিজীবী) ৬০ জনকে আমন্ত্রণ জানাচ্ছে নির্বাচন কমিশন (ইসি) সোমবার তাদের কাছে আমন্ত্রণপত্র পৌঁছানো শুরু হবে। রবিবার নিজ কার্যালয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে ইসি সচিব মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ এ তথ্য জানান।

ইসি সচিব বলেন, ‘ইসির একাদশ নির্বাচনের কর্মপরিকল্পনার অংশ হিসেবে ৩১ জুলাই থেকে সংলাপ শুরু হবে। ওইদিন সকাল ১১টায় সিভিল সোসাইটির প্রতিনিধিদের সঙ্গে ইসি বৈঠক করবে। এ জন্য এ পর্যন্ত ৬০ জনের একটি তালিকা তৈরি করে আমন্ত্রণ জানাচ্ছি। এই সংখ্যা আরও দুই/চার জন বাড়তেও পারে।’ তিনি বলেন, ‘আমন্ত্রিত অতিথিদের নামে চিঠি আজ না হলেও আগামীকাল (সোমবার) পাঠানো শুরু হবে। দুই দিনের মধ্যে তাদের কাছে চিঠি পৌঁছে যাবে।’

কে কে চিঠি পাচ্ছেন—এমন প্রশ্নের জবাবে ইসি সচিব বলেন, ‘এই মুহূর্তে কারও নাম বলতে পারব না। তবে দেশের শীর্ষ স্থানীয় সুশীল সেবক হিসেবে রয়েছেন, তাদের আমন্ত্রণ জানানো হচ্ছে। এখানে সাবেক আমলা, কূটনীতিক, বিচারপতি, আইনজ্ঞ, মিডিয়া ব্যক্তিত্ব, সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা, অর্থনীতিবিদ, রাষ্ট্রবিজ্ঞানী, কলামিস্টসহ সমাজ ও রাষ্ট্রের কল্যাণে যারা নিয়োজিত হয়েছেন, যাদের আমরা বুদ্ধিজীবী হিসেবে আখ্যায়িত করতে পারি, তাদের আমন্ত্রণ জানানো হচ্ছে।’

সংলাপের বিষয়বস্তু কী হবে, জানতে চাইলে ইসি সচিব বলেন, ‘আলোচনার বিষয়বস্তু এখনও চূড়ান্ত করা হয়নি। আমাদের সংলাদের মূল লক্ষ্য

হচ্ছে, একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন সুষ্ঠু ও সুন্দরভাবে সম্পন্ন করা। এ জন্য প্রয়োজনীয় দিক নিয়ে আলোচনা করব, সুশীল সমাজের অভিমত নেব। তবে, আমরা কর্মপরিকল্পনায় যে ৭ দফা করণীয় নির্ধারণ করেছি, তার মধ্যে এই সংলাপ বাদে বাকি ৬টি নিয়েই আলোচনা হবে। আমরা আলোচনার আগে সুশীল সমাজের প্রতিনিধিরা যেন হোমওয়ার্ক করতে পারেন, সে জন্য দশম সংসদ নির্বাচনের ম্যানুয়াল, নির্বাচনি আইনের কপিসহ অনান্য প্রিন্টেড ডকুমেন্ট সরবরাহ করছি, যেন তারা পূর্বপ্রস্তুতি নিয়ে সংলাপে আসতে পারেন।’

এক প্রশ্নের জবাবে মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ বলেন, ‘সংলাপের জন্য তো সংলাপ করে লাভ নেই। আমরা সংলাপের রেকর্ড সংগ্রহ করব। সব পর্যায়ের সংলাপ শেষ হলে একটি প্রতিবেদন তৈরি করব। আর এই প্রতিবেদনে যেসব সুপারিশ আসবে, তার মধ্যে যেগুলো গ্রহণ করার মতো হবে, আমরা তা গ্রহণ করব।’ রাজনৈতিক দলের  সঙ্গে সংলাপের এখনও কোন তারিখ ঠিক হয়নি। এটা আগামী সপ্তাহে হতে পারে।

আগের একাধিক নির্বাচনে ইভিএম-এর ত্রুটির পরও রংপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনে এর ব্যবহার প্রসঙ্গে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে সচিব বলেন, ‘আগে যেগুলো ব্যবহার হয়েছে সেটা ছিল ইভিএম। কিন্তু আমরা ব্যবহার করব ডিভিএম-ডিজিটাল ভোটিং মেশিন। এটি আরও উন্নতমানের। এই মেশিনে একডি ডিসপ্লে থাকবে। আমরা রংপুর সিটি করপোরেশনের এক বা একাধিক ওয়ার্ডে এটি ব্যবহার করার চিন্তা করছি।’

Facebook Comments