এবার খুলনা-কলকাতা ট্রেন

এপ্রিল ০৬ ২০১৭, ১৪:৩২

খুলনা থেকে যশোর হয়ে কলকাতা পর্যন্ত আন্তদেশীয় দ্বিতীয় ‘মৈত্রী এক্সপ্রেস’ ট্রেনের পরীক্ষামূলক উদ্বোধন হচ্ছে আগামী ৮ এপ্রিল। ওই দিন নয়াদিল্লি থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে এই ট্রেনের উদ্বোধন করবেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। রেলমন্ত্রী মুজিবুল হক যশোর থেকে এই ভিডিও কনফারেন্সে যোগ দেবেন। একই দিন ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে ভারতের রাধিকাপুর থেকে বাংলাদেশের দিনাজপুর জেলার বিরল রেলস্টেশন পর্যন্ত একটি ডিজেলবোঝাই ট্রেন চলাচলেরও উদ্বোধন করবেন দুই দেশের প্রধানমন্ত্রী। রেল মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে এসব তথ্য। সূত্র জানায়, ঢাকা-কলকাতার পর এবার খুলনা থেকে যশোর হয়ে কলকাতা পর্যন্ত দুই দেশের মধ্যে দ্বিতীয় মৈত্রী এক্সপ্রেস ট্রেন চালুর বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিয়েছে দুই দেশের সরকার। বাংলাদেশের মন্ত্রিসভা গত সোমবার সাপ্তাহিক বৈঠকে খুলনা-যশোর কলকাতার মধ্যে যাত্রী পরিবহনের জন্য দ্বিতীয় মৈত্রী এক্সপ্রেস ট্রেন চলাচলের বিষয়ে অনুমোদন দিয়েছে। প্রধানমন্ত্রীর ভারত সফরের তিন দিন আগে এই অনুমোদন দেওয়া হয়।

সূত্রমতে, পরীক্ষামূলক চলাচলের জন্য আগামী ৮ এপ্রিল খুলনা থেকে ছেড়ে মৈত্রী এক্সপ্রেস ট্রেনটি যশোর হয়ে কলকাতায় পৌঁছবে। ওই দিন সকাল ৮টায় পাঁচটি বগি নিয়ে ট্রেনটি খুলনা ছেড়ে সকাল ১০টায় যশোরের বেনাপোল স্টেশনে পৌঁছবে। দুপুরে সেখানে উপস্থিত থাকবেন রেলমন্ত্রী মুজিবুল হক। তার সঙ্গে নয়াদিল্লি থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে আন্তদেশীয় এই ট্রেনটির আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। এর পরপরই পরীক্ষামূলক এই ট্রেনটি কলকাতার উদ্দেশে ছেড়ে যাবে। পরদিন ৯ এপ্রিল সকাল ৮টা পাঁচ মিনিটে ট্রেনটি কলকাতা থেকে খুলনার উদ্দেশে ছেড়ে আসবে।

পরীক্ষামূলক এই ট্রেনের পাঁচটি বগির মধ্যে একটি থাকবে শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত স্লিপার কোচ, একটি থাকবে শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত

চেয়ার কোচ, একটি পাওয়ার কার এবং গার্ড রুম, ব্রেকভ্যান ও খাবার গাড়ি মিলিয়ে থাকবে দুটি কোচ। পরীক্ষামূলক হওয়ার কারণে এই ট্রেনটি কোনোরকম টিকিটধারী যাত্রী বহন করবে না। এই ট্রেনে বাংলাদেশ রেলওয়ের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা, রেলপথ, স্বরাষ্ট্র, পররাষ্ট্র এবং জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) কর্মকর্তাদের নিয়ে একটি প্রতিনিধি দল যাত্রা করবে। রেল মন্ত্রণালয় সূত্র জানায়, আগামী ৮ এপ্রিল ট্রেনটি দুই দেশের প্রধানমন্ত্রী পরীক্ষামূলকভাবে উদ্বোধন করলেও কিছু আনুষঙ্গিক কাজের অসম্পূর্ণতার কারণে ট্রেনটি বাণিজ্যিকভাবে চালু হতে আরও কিছুদিন সময় লাগবে। কারণ ভারতীয় অংশে এখনো বেশকিছু কাজ বাকি রয়েছে। এসব কাজ সমাপ্ত হলে খুব দ্রুত সময়ের মধ্যেই দ্বিতীয় মৈত্রী এক্সপ্রেস ট্রেনটি দুই দেশের মধ্যে যাত্রী পরিবহনের জন্য চলাচল শুরু করবে। একই দিনে ভারতের রাধিকাপুর থেকে একটি ডিজেলবোঝাই ট্রেন চলাচলের উদ্বোধন করবেন দুই দেশের প্রধানমন্ত্রী। আনুষ্ঠানিক উদ্বোধনের পর রাধিকাপুর থেকে ছেড়ে বিরল স্টেশনে পৌঁছলে সেখানে বাংলাদেশ রেলওয়ের লালমনিরহাট ডিভিশনের ডিআরএম এই ট্রেনটি গ্রহণ করবেন এবং সেটির তেল নিয়মানুযায়ী পরিমাপ করে পার্বতীপুর ডিপোতে পৌঁছানোর ব্যবস্থা করবেন। আমাদের খুলনার নিজস্ব প্রতিবেদক জানান, বহুল কাঙ্ক্ষিত খুলনা-কলকাতা পরীক্ষামূলক ট্রেন সার্ভিস চালুর কথা থাকলেও এ ব্যাপারে খুলনা রেলওয়ের কোনো প্রস্তুতি এখনো নেওয়া হয়নি। খুলনা রেলওয়ে স্টেশন মাস্টার কাজী আমিরুল ইসলাম এ বিষয়ে বলেন, অফিশিয়ালি এখনো চিঠি পাইনি। কী ধরনের প্রস্তুতি নিতে হবে, তা-ও আমাদের এখনো জানানো হয়নি। বৃহত্তর খুলনা উন্নয়ন সমন্বয় পরিষদের মহাসচিব শেখ আশরাফ উজ জামান বলেন, খুলনা থেকে ট্রেনে কলকাতায় যাওয়া যাবে তিন ঘণ্টায়। এ সার্ভিসটি চালুর দাবি দীর্ঘদিনের। এটি চালু হলে এ অঞ্চলের মানুষের যাতায়াতের ভোগান্তি অনেকটাই কমে যাবে।

Facebook Comments

<a href=”http://barisallive24.com/wp-content/uploads/2017/05/infra-add.jpg” target=”_blank” rel=”noopener”><img src=”http://barisallive24.com/wp-content/uploads/2017/05/Hoopers1.jpg” width=”331″ height=”270″ /></a>