এবার প্রেমের টানে শেরপুরে এসে ঘর বাঁধলেন রুশ তরুণী

জুলাই ০২ ২০১৭, ০০:০২

সনাতন ধর্মের অরতার কৃষ্ণভক্ত বাংলাদেশি যুবককে বিয়ে করলেন রুশ কন্যা সিবেৎলানা। গত ৩০ জুন শুক্রবার রাতে শেরপুর জেলা শহরের গোপালবাড়ী মন্দিরে এ বিয়ে অনুষ্ঠিত হয়। বিয়ের পুরো অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন আন্তর্জাতিক কৃষ্ণভাবনামৃত সংঘ-ইস্কন, শেরপুর শাখার সদস্যরা। ওই কৃষ্ণ ভক্তের নাম ধর্মকান্ত সরকার। ধর্মকান্তের বাড়ি শেরপুর জেলার নারিতাবাড়ী উপজেলায়।
শেরপুরের নালিতাবাড়ী উপজেলার সন্যাসীভিটা গ্রামের প্রয়াত ধীরেন্দ্র চন্দ্র সরকারের ছোট ছেলে সনাতন ধর্মাবলম্বী ধর্মকান্ত সরকার জানান, ১৯৯৭ সালে উচ্চ মাধ্যমিক পাশের পর তিনি রাশিয়ায় যান। সেখানে আস্ত্রাখান টেকনিক্যাল ইউনিভার্সিটি থেকে তেল, গ্যাস ও পেট্রোল বিষয়ে স্নাতকোত্তর ডিগ্রি নেন। বর্তমানে রাশিয়ার রাজধানী মস্কোতে হোটেল ব্যবসা করছেন। তিনি ২০১২ সালে মস্কোতে অবস্থিত ও ইস্কন প্রতিষ্ঠিত জগন্নাথ বলদেব সুভদ্রা মন্দিরে যান। ইস্কনের নিয়মানুযায়ী মন্দিরের বিভিন্ন সেবামূলক কাজের সঙ্গে যুক্ত হন। ২০১৩
সালে মন্দিরের গুরুদেব আনন্তাকৃষ্ণা মহারাজের মাধ্যমে এখানেই তাঁর সঙ্গে পরিচয় ঘটে রুশ তরুণী সিবেৎলানার। তাঁদের মধ্যে কোন প্রণয় ছিল না। তবে ধর্মকান্ত সনাতন ধর্ম কৃষ্ণভক্ত হয়ে মানবতার কল্যাণে নিজেকে মন্দিরে সেবামূলক কাজে নিয়োজিত করার কারণে মেয়েটি ভালো লেগে যায়। এরপর ২০১৬ সালের সেপ্টেম্বর মাসে মন্দিরের গুরুদেবের নির্দেশনা ও রাশিয়ার আইনানুযায়ী মস্কোতে নিবন্ধনমূলে ধর্মকান্ত ও সিবেৎলানার বিয়ে হয়। এক মাস আগে ভারতের মায়াপুর থেকে ধর্মকান্ত সিবেৎলানাকে নিয়ে বাংলাদেশে আসেন। কিছুদিন নিজের গ্রামের বাড়ি নালিতাবাড়ীর সন্ন্যাসীভিটায় থেকে চলে আসেন শেরপুরের ইস্কন মন্দিরে। দু’জনেই যুক্ত হন এ মন্দিরের সেবামূলক কাজের সঙ্গে। এরপর সনাতন ধর্মীয় আচার অনুযায়ী ৩০ জুন শুক্রবার রাতে তাদের বিয়ে সম্পন্ন হয়। এখন থেকে এই দম্পতি অরতার কৃষ্ণভক্ত হয়ে ইস্কনে সেবামূলক কাজ করে যাবেন বলে জানা গেছে।
Facebook Comments

<a href=”http://barisallive24.com/wp-content/uploads/2017/05/infra-add.jpg” target=”_blank” rel=”noopener”><img src=”http://barisallive24.com/wp-content/uploads/2017/05/Hoopers1.jpg” width=”331″ height=”270″ /></a>