কলাপাড়ায় স্বামীর দেয়া আগুনে পুড়ে অন্তস্বত্তা স্ত্রীর দশ দিন পরে মৃত্যু

জুন ০৫ ২০১৭, ১৪:১২

পটুয়াখালী প্রতিনিধিঃ পটুয়াখালীর কলাপাড়ায় স্বামীর দেয়া অগুনে পুড়ে দশ দিন পর মারা গেছে পাঁচ মাসের অন্ত:স্বত্তা স্ত্রী ফাতেমা (২০)। বরিশাল মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রবিবার দিবাগত রাত ১টায় সে মারা যায়।
ফাতেমার স্বজনরা জানান, ২৫মে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় ম্যাচের কাঠি জ্বালিয়ে ফাতেমার পড়নের ম্যাক্সিতে আগুন লাগিয়ে দেয় স্বামী ছোবাহান গাজী। ফাতেমা দ্বগ্ধ হয়ে ডাক চিৎকার করলে সটকে পড়ে ছোবাহান। প্রতিবেশীরা আগুন নিভিয়ে ফাতেমাকে কলাপাড়া হাসপাতালে ভর্তি করায়। এতে তার শরীরের ৭৫ শতাংশ পুড়ে যায়। রাতেই তাকে শঙ্কাজনক অবস্থায় বরিশাল শেরে বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরন করা হয়। এঘটনায় ওইদিন রাতেই পুলিশ হাসপাতালে গিয়ে ফাতেমার সঙ্গে কথা বলে অভিযুক্ত স্বামী ছোবাহান গাজীকে গ্রেফতার করে। তার বিরুদ্ধে একটি মামলা

হয়েছে।
তার স্বজনরা আরো জানান, নুন আনতে পান্তা ফুরায় দরিদ্র পরিবারের মেয়ে ফাতেমাকে বিয়ের পিড়িতে বসতে হয় কিশোরী বয়সেই। কলাপাড়া পৌর শহরের নাচনাপাড়া গ্রামের ফাতেমার চরম অভাবের সংসার। দারিদ্রতার কারনে আড়াই বছরের মেয়ে রুকাইয়া লালিত পালিত হচ্ছে ফাতেমার দাদী হাসিনার কাছে। ২৪মে বুধবার মেয়ে রুকাইয়াকে দেখতে যায় ফাতেমা। এনিয়েও রাতে ঝগড়া হয় স্বামীর সঙ্গে। কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে জ্বলন্ত সিগারেট ফাতেমার গালে চেপে ধরে। সিগারেটের ছ্যাকায় পুড়ে যায় ফাতেমার গাল। তখনই হুমকি দেয় পুড়িয়ে মারার। একাধিক সুত্রে জানা গেছে, কাকড়া, ব্যাঙ ধরে জীবিকা চালাত নেশাগ্রস্ত ছোবাহান। ফাতেমার চাচা হাবিব জানায়, পাঁচ মাসের অন্ত:স্বত্তা ফাতেমার গর্ভের সন্তান আগুনে পুড়ে পেটেই মরে গেছে। আপরেশন করে বাচ্চা বের করতে হয়েছে।

Facebook Comments

<a href=”http://barisallive24.com/wp-content/uploads/2017/05/infra-add.jpg” target=”_blank” rel=”noopener”><img src=”http://barisallive24.com/wp-content/uploads/2017/05/Hoopers1.jpg” width=”331″ height=”270″ /></a>