গরম গরম খিচুড়ি

জুলাই ১১ ২০১৭, ১০:০৪

বাইরে যখন ঝমঝম বৃষ্টি, মনে তখন ঘুরপাক খায় গরম খিচুড়ি। ঝটপট বাড়িতেই বানাতে পারেন নানা স্বাদের খিচুড়ি। রেসিপি দিয়েছেন শুভাগতা দেবাশীষ

ইলিশ দম

উপকরণ: ইলিশ মাছ ৬-৭ টুকরা, সরিষার তেল ১ কাপ, হলুদ, লবণ পরিমাণমতো, কাঁচা মরিচ ৮-১০টি, আচারের তেল ৩ টেবিল চামচ।
প্রণালি: মাছে লবণ ও হলুদ মাখিয়ে রাখুন। টিফিন বক্সে মাছগুলো সাজিয়ে নিন। পাত্রটি একটু বড় নিয়ে একটা একটা করে মাছগুলো সাজিয়ে দিতে হবে। এবার মাছের ওপরে সবটুকু তেল, কাঁচা মরিচ (চিরে দিন), আচারের তেল দিয়ে অল্প পরিমাণ পানের ছিটা দিয়ে দিন। কড়াইয়ে পানি দিয়ে ভালোমতো আটকে টিফিন বক্সটি বসিয়ে দিতে হবে। ওপরে ভারী কিছু চাপা দিয়ে ১৫ থেকে ২০ মিনিট পরে নামিয়ে নিয়ে খিচুড়ির সঙ্গে পরিবেশন করুন।

ডিমের কোরমা
উপকরণ: সেদ্ধ করা হাঁস বা মুরগির ডিম ৬টি, পেঁয়াজ বেরেস্তা ২ কাপ, তেজপাতা ২টি, টমেটো পিউরি সিকি কাপ, আদা-রসুনবাটা ২ চা-চামচ, কাজুবাদামবাটা ২ চা-চামচ, পোস্তবাটা ১ চা-চামচ, হলুদের গুঁড়া আধা চা-চামচ, কাশ্মীরি মরিচের গুঁড়া ১ চা-চামচ, ধনে ও জিরাবাটা ১ চা-চামচ, জায়ফল গুঁড়া ১ চিমটি, কেশর ১ চিমটি (আধা কাপ পানিতে ভেজানো), ফ্রেশ ক্রিম ২ চা-চামচ, লবণ পরিমাণমতো, সয়াবিন তেল ১ কাপ।
প্রণালি: ডিমে হলুদ মাখিয়ে সোনালি রং করে ভেজে নিতে হবে। প্যানে তেল দিয়ে পেঁয়াজ, বেরেস্তা, গরম মসলা দিন। তার মধ্যে টমেটো পিউরি, আদা-রসুনবাটা, পোস্তবাটা, কাজুবাটা, ধনে ও জিরা দিয়ে কিছুক্ষণ ভালো করে কষাতে হবে। ভালোমতো কষানো হলে ডিম ও লবণ দিয়ে আরও কিছুক্ষণ ভালো করে কষান। ভেজানো কেশর ও ফ্রেশ ক্রিম দিয়ে নামিয়ে ফেলুন। সবশেষে ধনেপাতা কুচি ছড়িয়ে পরিবেশন করতে হবে।

ভুনা খিচুড়ি
উপকরণ: পোলাওয়ের চাল ৫০০ গ্রাম, ভাজা মুগডাল ১২৫ গ্রাম, মসুর ডাল ১২৫ গ্রাম, দেশি পেঁয়াজ কুচি ২ কাপ, আদা ও রসুনবাটা ২ টেবিল চামচ, জিরার গুঁড়া ১ টেবিল চামচ, বিরিয়ানির মসলা গুঁড়া ১ টেবিল চামচ, এলাচ ৫-৬টি, দারুচিনি ২-৩ টুকরা, তেজপাতা ২টি, আচারের তেল আধা কাপ, হলুদ ও মরিচের গুঁড়া পরিমাণমতো, সরিষার তেল বা সাদা সয়াবিন তেল ১ কাপ, লবণ পরিমাণমতো, গরম পানি পরিমাণমতো, আস্ত কাঁচা মরিচ ৮-১০টি।
প্রণালি: পোলাওয়ের চাল ধুয়ে পানি ঝরিয়ে নিতে হবে। হাঁড়িতে তেল দিয়ে তাতে পেঁয়াজ কুচিগুলো ভাজুন। বাদামি রং হলে আস্ত এলাচ, দারুচিনি, তেজপাতা দিয়ে নাড়তে হবে। তারপর আদা, রসুনবাটা, হলুদ, মরিচের গুঁড়া দিয়ে কিছুক্ষণ কষান। জিরার গুঁড়া দিয়ে আরও একটু কষান। ভাজা মুগডাল ও ভেজানো মসুর ডাল দিতে হবে। ডালগুলো দিয়ে আরও কষাতে হবে। অর্ধেক সেদ্ধ হলে পোলাওয়ের চাল দিন। ভালো করে ভেজে গরম পানি দিন। সবশেষে লবণ, কাঁচা মরিচ ও আচারের তেল দিয়ে দমে রাখুন। রান্না হয়ে গেলে পেঁয়াজ বেরেস্তা ও আচারের তেল দিয়ে সালাদসহ পরিবেশন করুন।

পাতলা খিচুড়ি 
উপকরণ: পোলাওয়ের চাল ১ কেজি, পানি ৩ কেজি, মুগডাল ৩০০ গ্রাম, তেল ১ কাপ, মসুর ডাল ২০০ গ্রাম, হলুদের গুঁড়া ১ টেবিল চামচ, মরিচের গুঁড়া ১ টেবিল চামচ, লবণ পরিমাণমতো, ঘি ১ কাপ, আদা-রসুনবাটা ২ টেবিল চামচ, দেশি পেঁয়াজ কুচি ২ কাপ, জিরার গুঁড়া ১ চা-চামচ, কাঁচা মরিচ ৪-৫টি।
প্রণালি: তেল দিয়ে আস্ত দারুচিনি, তেজপাতা ও এলাচ কিছুক্ষণ নেড়ে পেঁয়াজ কুচি দিয়ে দিন। হালকা বাদামি রং হলে আদা-রসুনবাটা দিতে হবে। ভালো করে কষাতে হবে। হলুদ, মরিচ ও জিরার গুঁড়া দিতে হবে। মুগ ও মসুর ডাল দিয়ে ভালো করে কষান। চাল দিয়ে আবারও কষাতে হবে। কষানো হয়ে গেলে পানি দিন। খিচুড়ি হয়ে গেলে ঘি দিয়ে ঢেকে রাখুন।

খিচুড়ির সঙ্গে
মিষ্টিকুমড়া ভাজা
উপকরণ: মিষ্টিকুমড়া (চাক চাক করে কাটা) ৮-১০ টুকরা, লবণ, চিনি, হলুদ পরিমাণমতো, আদা-রসুনবাটা পরিমাণমতো, সয়াবিন তেল ২ কাপ।
প্রণালি: তেল বাদে সবকিছু দিয়ে মাখিয়ে নিতে হবে। তারপর ডুবো তেলে ভেজে তুলে নিন।

পটোল ভাজা 
উপকরণ: পটোল ৮-১০টি, লবণ, হলুদ, আদা, রসুনবাটা পরিমাণমতো, সয়াবিন তেল পরিমাণমতো।
প্রণালি: পটোল ভালো করে ধুয়ে আস্ত পটোল চিরে সব মসলা মাখিয়ে ডুবো তেলে ভেজে তুলে নিন। পরে পটোলের ওপরে পেঁয়াজ ও কাঁচা মরিচ ভেজে দিয়ে পরিবেশ করুন।

আলু ভাজা
উপকরণ: বড় আলু ৪-৫টি, হলুদ, লবণ পরিমাণমতো, মরিচের গুঁড়া আধা চা-চামচ, সয়াবিন তেল ৩ কাপ।
প্রণালি: আলু ভালো করে ছিলে পরিষ্কার করে ধুয়ে নিন। আলু গোল গোল চাকা করে কেটে নিয়ে হলুদ, লবণ ও মরিচের গুঁড়া মাখিয়ে ডুবো তেলে মচমচে করে ভাজুন। ভাজা হয়ে গেলে ছাঁকনি দিয়ে আলুগুলো তুলে নিতে হবে।

বেগুন ভাজা 
উপকরণ: গোল বেগুন ২টা, হলুদ ও লবণ পরিমাণমতো, মরিচের গুঁড়া আধা চা-চামচ, আদা-রসুনবাটা ১ চা-চামচ, সয়াবিন তেল ২ কাপ, চিনি আধা চা-চামচ।
প্রণালি: বেগুন ২টা চাক চাক করে কেটে ভালো করে ধুয়ে নিয়ে হলুদ, লবণ, মরিচের গুঁড়া, চিনি ও আদা-রসুনবাটা দিয়ে মাখিয়ে নিতে হবে। এরপর ডুবো তেলে ভেজে নিন।

সবজি খিচুড়ি
উপকরণ: পোলাওয়ের চাল আধা কেজি, মুগডাল ভাজা ১০০ গ্রাম, মসুর ডাল ভেজানো ১০০ গ্রাম, পেঁয়াজ কুচি ২ কাপ, আলু, পটোল, বরবটি, গাজর, মটরশুঁটি ২ কাপ, হলুদের গুঁড়া, মরিচের গুঁড়া ও লবণ পরিমাণমতো, সরিষার তেল ১ কাপ, জিরার গুঁড়া ১ চা-চামচ, আদা-রসুন বাটা ২ টেবিল চামচ, কাঁচা মরিচ ৮-১০টি।
প্রণালি: কড়াইয়ে তেল দিয়ে পেঁয়াজ ভেজে বাদামি রং হলে একে একে সব মসলা দিয়ে কষাতে হবে। এর মধ্যে দুই রকম ডাল দিয়ে আরও একটু কষান। ডালে পানি দিয়ে অর্ধেক সেদ্ধ হলে পোলাওয়ের চাল দিয়ে ভালো করে নাড়াচাড়া করুন। পরিমাণমতো পানি দিয়ে তার মধ্যে সবজিগুলো দিয়ে ঢেকে দিতে হবে। সব সেদ্ধ হয়ে গেলে পরিমাণমতো সরিষার তেল ছড়িয়ে দিয়ে নামিয়ে ফেলুন। ওপরে কাঁচা মরিচ ছড়িয়ে দিয়ে পরিবেশন করুন।

Facebook Comments

<a href=”http://barisallive24.com/wp-content/uploads/2017/05/infra-add.jpg” target=”_blank” rel=”noopener”><img src=”http://barisallive24.com/wp-content/uploads/2017/05/Hoopers1.jpg” width=”331″ height=”270″ /></a>