চলে গেলেন ভাস্কর আব্দুল্লাহ খালিদ

‘অপরাজেয় বাংলা’র ভাস্কর ও চিত্রশিল্পী সৈয়দ আব্দুল্লাহ খালিদ আর নেই। রাজধানীর বারডেম হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শনিবার রাত পৌনে ১২টায় তার মৃত্যু হয়।

শিল্পীর ছেলে সৈয়দ আব্দুল্লাহ জহি গণমাধ্যমকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

ভাস্কর আব্দুল্লাহ খালিদ দীর্ঘদিন ধরে ডায়াবেটিস ও শ্বাসকষ্টজনিত সমস্যায় ভুগছিলেন।

আবদুল্লাহ খালিদের বয়স হয়েছিল ৭৫ বছর। তিনি স্ত্রী উম্মে কুলসুমসহ দুই ছেলে ও এক মেয়ে রেখে গেছেন।

এপ্রিলের শেষ সপ্তাহে নিজের শহর সিলেটে একটি সম্মাননা অনুষ্ঠানে অংশ নিতে গিয়ে গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়লে বাবাকে সেখানকার একটি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরে অবস্থার অবনতি হলে ২ মে তাকে ঢাকার সেন্ট্রাল হাসপাতালে আনা হয়। সেখান থেকে বারডেমে আনা হয়েছিল ১০ মে। সেখানে আইসিইউতে চিকিৎসাধীন ছিলেন তিনি। চিকিৎসকেরা জানিয়েছেন, সর্বশেষ তাv কিডনি অকার্যকর হয়ে পড়েছিল।

বাংলাদেশে মুক্তিযুদ্ধের ভাস্কর্যের মধ্যে সবচেয়ে বেশি আলোচিত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের

‘অপরাজেয় বাংলা’। ১৯৭৩ সালে এটির নির্মাণ কাজ শুরু হয়। তবে ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে সপরিবারে হত্যার পর এর নির্মাণ কাজ বন্ধ হয়ে যায়। পরে ১৯৭৯ সালে এর কাজ শেষ হয়।

স্বাধীনতা যুদ্ধে প্রতীকে পরিণত হওয়া ভাস্কর্যটি তিলে তিলে গড়ে তুলেছেন আব্দুল্লাহ খালিদ। তবে এই ভাস্কর্যতে ভাস্করের নামখচিত কোন শিলালিপি নেই।

শিল্পকলা ও ভাস্কর্যে অবদানের স্বীকৃতি হিসেবে আব্দুল্লাহ খালিদ ২০১৪ সালে শিল্পকলা পদক এবং ২০১৭ সালে একুশে পদকে ভূষিত হন।

সিলেট জেলা শহরে জন্ম নেওয়া আব্দুল্লাহ খালিদ ১৯৬৯ সালে তৎকালীন ইস্ট পাকিস্তান কলেজ অফ আর্টস অ্যান্ড ক্রাফ্‌টস (এখনকার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা) থেকে চিত্রাঙ্কন বিষয়ে স্নাতক এবং পরে ১৯৭৪ সালে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় থেকে চিত্রাঙ্কন ও ভাস্কর্যে স্নাতকোত্তর করেন।

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাস্কর্য বিভাগে শিক্ষকতা দিয়ে আব্দুল্লাহ খালিদের কর্মজীবনের শুরু।

Facebook Comments

<a href=”http://barisallive24.com/wp-content/uploads/2017/05/infra-add.jpg” target=”_blank” rel=”noopener”><img src=”http://barisallive24.com/wp-content/uploads/2017/05/Hoopers1.jpg” width=”331″ height=”270″ /></a>