তালতলীতে বাড়ী থেকে ডেকে নিয়ে ইউপি সদস্যের পায়ের রগ ও আঙ্গুল কর্তন

আপডেট : July, 4, 2017, 12:34 am

আমতলী প্রতিনিধি: তালতলীর পশ্চিম ঝাড়াখালী গ্রামের ইউপি সদস্য জলিল রাঢীকে (৫০) তার ইট বালু বিক্রির পাওনা টাকা পরিশোধের কথা বলে বাড়ি থেকে মোবাইল ফোনে ডেকে নিয়ে রবিবার রাত ৮ টার দিকে পায়ের রগ ও আঙ্গুল কর্তন করেছে ৬ দুবৃত্ত। মুমুর্ষ অবস্থায় জলিল রাঢ়ীকে উদ্ধার করে প্রথমে বরিশাল ও পরে ঢাকার পঙ্গু হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনার সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে মামলার এজাহারভূক্ত আসামী দুলাল হাওলাদার নামে ১ জনকে গ্রেপ্তার করেছে তালতলী থানা পুলিশ।
এলাকাবাসী ও পরিবার সূত্রে জানা গেছে, জলিল রাঢ়ী কড়ই বাড়িয়া ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ডের একজন ইউপি সদস্য। নিজ বাড়িতে সে রড সিমেন্ট ও ইট বালুর ব্যবসা করত। গত বছর নিয়পাড়া গ্রামের মো: দুলাল হাওলাদার তার নিকট থেকে বাকীতে ৮০ হাজার টাকার মালামাল ক্রয় করেন। রবিবার সন্ধ্যায় ওই টাকা পরিশোধ করে দেওয়ার কথা বলে বাড়ি থেকে মোবাইল ফোনে জলিল রাঢ়ীকে ডেকে নিয়ে যায়। জলিল রাঢ়ী বাড়ি থেকে বের হয়ে তালতলী যাওয়ার পথে গ্রামীন ব্যাংকের সামনে যাওয়া মাত্র পূর্ব থেকে ওৎ পেতে থাকা জামাল মোল্লা,

দুলাল হাওলাদার, রাজা মৃধা, মো: শুক্কুর হাওলাদার ,আলী হাওলাদার ও সিদ্দিক হাওলাদার মিলে ৬ দুবৃত্ত জলিল রাঢ়ীকে ধরে গ্রামীন ব্যাংক ভববনের পিছনে নিয়ে ধারালো রামদা দিয়ে দু’পা কুপিয়ে গুরুতর যখম করে। দুবৃত্তদের রামদার কোপে জলিলের ডান পায়ের রগ ও একটি আঙ্গুল বিছিন্ন হয়ে যায়। এসময় জলিলের ডাক চিৎকার শুনে স্থানীয় জনতা ছুটে এসে তাকে উদ্ধার করে ওই রাতেই তাকে বরিশাল শেবাচিম হাসপতালে নেওয়া হয়। অবস্থার অবনতি হলে তাকে সোমবার সকালে ঢাকার পঙ্গু হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। জলিলের ছোট ভাই হারুন রাঢ়ী বলেন, মোর ভাইরে টাহা দেওয়ার কথা বইল্যা অরা বাড়ি গোনে বোলাইয়া নিয়া রগ ও আঙ্গুল কাইট্যা দিছে। মোরা হের বিচার চাই।
জলিল রাড়ীর রগ ও আঙ্গুল কর্তনের ঘটনায় তার বড় ভাই ইউনুছ রাঢ়ী বাদী হয়ে সোমবার দুপুরে ৬ জনকে আসামী করে তালতলী থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। তালতলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা কমলেশ চন্দ্র হালদার জানান, রগ কর্তনের ঘটনায় মামলা হয়েছে। এজাহার ভূক্ত দুলাল হাওলাদার নামে এক আসামীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। অন্যদেরও গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

Facebook Comments