তৃতীয় দিনে বিসিসি’র কর্মচারীদের আন্দোলন:নগরের সড়কের পাশে ময়লার স্তুপ

মার্চ ২৯ ২০১৭, ১৫:১৯

বরিশালঃ বকেয়া বেতনের দাবীতে বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের বিভিন্ন পর্যায়ের নিয়মিত ও দৈনিক মজুরী ভিত্তিক কর্মকর্তা-কর্মচারীদের তৃতীয় দিনের মতো অবস্থান ধর্মঘট ও লাগাতার কর্মবিরতি চলছে। আজ সকাল থেকে কর্মচারীরা কাজে যোগ না দিয়ে কর্পোরশন ভবনের সামনে অবস্থান নিয়ে এ ধর্মঘট পালন করছে। এদিকে টানা এ তিনদিনের ধর্মঘটের কারনে পরিচ্ছন্ন কর্মীরা কাজে যোগ দেয়নি, পাশাপাশি ময়লা অপসারনের যানবাহনগুলোও কর্পোরেশন ভবনকে ঘিরে পার্কিং করে রাখা হয়েছে। যারফলে বরিশাল নগরের বিভিন্ন সড়কের পাশে ময়লার স্তুপ জমে গেছে। স্থানীয় বাসিন্দারা জানান, গত তিন দিনে কোন ময়লার গাড়ি, ভ্যান কিংবা পরিচ্ছন্নতা কর্মীরা কাজে আসেনি। ফলে রাস্তার পাশে নির্ধারিত স্থানগুলোতে বসতবাড়ির ময়লাগুলো ফেলা হচ্ছে। পাশাপাশি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের ময়লা-আবর্জনা স্ব-স্ব প্রতিষ্ঠানের সামনের সড়ক ঘেষে ফেলা হচ্চে। এরফলে কাটপট্রি, ফলপট্রি, চকবাজার, সদর রোড, হাসপাতাল রোডসহ ব্যবসায়ীক এলাকার সড়কগুলোতে ময়লা জমে গেছে। অনেক জায়গা থেকে দূর্গন্ধ বের হতে শুরু করেছে। বিসিসি’র পরিচ্ছন্ন কর্মকর্তা দিপক লাল মৃধা জানান, তাদের ১২ থেকে ১৪ টি গাড়ি প্রতিদিন নগরের ৩০ টি ওয়ার্ড থেকে প্রতিদিন গড়ে এক লাখ টন বর্জ্য ডাম্পিং স্পটে নিয়ে যায়। তবে বেতনের দাবীতে চলমান আন্দোলনের কারনে গত কয়েকদিন ধরে নগরের ময়লা অপসারণ করা হয়নি। তাই এ সমস্যা দেখা দিয়েছে। এতে

স্থানীয়রা যে কষ্ট পাচ্ছেন তা ঠিকই, কিন্তু এই মুহুর্তে কিছুই করার নেই। অপরদিকে কর্পোরেশনে নাগরিক সেবা নিতে আসা জনসাধারণের ভোগান্তি বেড়েছে কয়েকগুন। কর শাখা, হাট-বাজার শাখা, লাইসেন্স শাখা, পানি ও বিদ্যুৎ শাখা যাদের কাজ রয়েছে, তারা কোন কাজই সম্পাদক করতে পারছে না। ফলে স্থবিরতা বিরাজ করছে কর্পোরেশন জুড়ে। আন্দোলনকারীরা জানান, ৫ মাসের বকেয়া বেতন ও ৩২ মাসের প্রভিডেন্ট ফান্ড না দেয়া পর্যন্ত বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের ৫৪২ জন নিয়মিত ও ৩ মাসের বকেয়া বেতন দেয়া না পর্যন্ত  প্রায় দেড় হাজার অনিয়মিত (দৈনিক মজুরী ভিত্তিক ) কর্মচারীরা সোমবার সকাল থেকে আন্দোলন শুরু করেন। আর দাবী আদায় না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন চলমান থাকবে বলে জানিয়েছেন পরিচ্ছন্নতা কর্মকর্তা আবুল কালাম রানা। এরআগে বকেয়া বেতনসহ মাসিক নিয়মিত বেতন প্রদান, প্রভিডেন্ট ফান্ডের টাকা জমা প্রদানের দাবীতে বরিশাল সিটি কর্পোরেশনে (বিসিসি) গত সপ্তাহের মঙ্গলবার থেকে বিক্ষোভ করেছে নিয়মিত ও দৈনিক মজুরী ভিত্তিক কর্মকর্তা-কর্মচারীরা। সেসময় তারা শান্তিপূর্ণভাবে ঘন্টাব্যাপি প্রতিকী কর্মবিরতি পালন করে। তবে বিসিসি’র প্রশাসনিক বিভাগের কর্মকর্তারা বলছেন, মেয়র ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা বেতন পরিশোধের চেষ্টা করছেন। তবে নতুন কর আদায় না হলে বকেয়া বেতন সঠিকভাবে দেয়া সম্ভব হবে না বলে জানিয়েছেন প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মো. ওয়াহেদুজ্জামান।

Facebook Comments

<a href=”http://barisallive24.com/wp-content/uploads/2017/05/infra-add.jpg” target=”_blank” rel=”noopener”><img src=”http://barisallive24.com/wp-content/uploads/2017/05/Hoopers1.jpg” width=”331″ height=”270″ /></a>