দরিদ্র্য কৃষকের মহিষ চুরি করে জবাই করলো যুবলীগের আহ্বায়ক

ঝালকাঠি প্রতিনিধি ॥
ঝালকাঠির নলছিটিতে দরিদ্র্য কৃষকের মহিষ চুরি করে জবাই করার মামলায় পৌর যুবলীগের আহ্বায়ক আনোয়ার হোসেনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় শহরতলীর মালিপুর এলাকা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। আনোয়ার হোসেন মালিপুর গ্রামের নেছার উদ্দিনের ছেলে।

পুলিশ জানায়, মালিপুর গ্রামের কৃষক আব্দুল মান্নানের একটি মহিষ গত ২ জুন রাতে চুরি হয়। রাতেই মহিষটি জবাই করে দুর্বৃত্তরা। পরের দিন সকালে চুরি হওয়া মহিষের জবাই করা মাংস বস্তায় ভরে শহরের টিঅ্যান্ডটি সড়ক এলাকা থেকে নিয়ে যাওয়ার প্রস্তুতি নেয় দুর্বৃত্তরা। বিষয়টি স্থানীয়রা টের পেয়ে পুলিশে খবর দেয়। পুলিশ আসার আগেই দুর্বৃত্তরা পালিয়ে যায়। পুলিশ মাংস উদ্ধার করে মহিষের মালিকের কাছে হস্তান্তর করে। ৮০ হাজার টাকা মূল্যের মহিষটির মাংস নামমাত্র মূল্যে বিক্রি করা হয়। এ ঘটনায় গত ১৩ জুন নলছিটি থানায় অজ্ঞাত ব্যক্তিদের আসামী করে একটি মামলা করেন কৃষক আব্দুল মান্নান। ১৪ জুন পুলিশ ঘটনার সাথে জড়িত সন্দেহে সূর্যপাশা গ্রামের লালন হাওলাদার ও খাজুরিয়া গ্রামের জাকির হোসেনকে গ্রেপ্তার করে। তারা মহিষ চুরি করে জবাইয়ের ঘটনা পুলিশের কাছে স্বীকার করেন। তাদের স্বীকারোক্তি অনুযায়ী পুলিশ ঘটনার

মূলহোতা পৌর যুবলীগের আহবায়ক আনোয়ার হোসেনকে গ্রেপ্তার করে।

দরিদ্র কৃষক আব্দুল মান্নান বলেন, ঈদের সময় মহিষটি ৮০ হাজার টাকা মূল্যে বিক্রি হওয়ার কথা ছিল। বিক্রির আগেই মহিষটি চুরি করে জবাই করেছে আমার শত্রুরা। বস্তায় ভরা মাংসগুলো উদ্ধার করার পরে নামমাত্র মূল্যে বিক্রি করেছি। আমার ঈদের আনন্দই ম্লান করে দিয়েছে তারা। আনোয়ারের বিরুদ্ধে ইতোপূর্বে আমি একটি মামলা করেছি। ওই মামলার জের ধরেই আমার মহিষ চুরি করে জবাই করেছে আনোয়ার ও তার বাহিনী।

নলছিটি থানার ওসি এ কে এম সুলতান মাহামুদ বলেন, এ ঘটনার সাথে জড়িত যারাই, তাদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে। ইতোমধ্যে তিনজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তাদের নেতৃত্বেই মহিষটি চুরি করে জবাই করা হয়।

প্রসঙ্গত যুবলীগ নেতা আনোয়ার হোসেনের বিরুদ্ধে ধর্ষণ ও হত্যা, চাঁদাবাজী, সন্ত্রাসী কর্মকান্ড, ভূমিদস্যুতাসহ একাধিক মামলা রয়েছে। এরমধ্যে ধর্ষণ ও হত্যা মামলায় তাঁর যাবজ্জীবন সাজা হয়। ওই মামলায় উচ্চ আদালতের জামিনে ছিল সে। অন্য মামলাগুলোতে একাধিকবার জেল হাজতে ছিলেন যুবলীগ নেতা আনোয়ার হোসেন।

এ ব্যাপারে থানা হেফাজতে বসে আনোয়ার হোসেন বলেন, আমাকে ষড়যন্ত্রমূলকভাবে ফাঁসানো হচ্ছে। আমি মহিষ চুরি ও জবাইয়ের ঘটনা সম্পর্কে কিছুই জানি না।

Facebook Comments

<a href=”http://barisallive24.com/wp-content/uploads/2017/05/infra-add.jpg” target=”_blank” rel=”noopener”><img src=”http://barisallive24.com/wp-content/uploads/2017/05/Hoopers1.jpg” width=”331″ height=”270″ /></a>