দাবদাহ ও লোডশেডিংয়ে অতিষ্ঠ উপকূলীয় জনজীবন

মে ২৬ ২০১৭, ২৩:১৪

আমতলী প্রতিনিধি: দুঃসহ গরমে ঘন ঘন লোড শেডিংয়ে অতিষ্ঠ হয়ে পড়েছে আমতলী -তালতলীসহ উপকূলীয় এলাকার জনজীবন। সকাল থেকে শুরু হয়ে গভীর রাত পর্যন্ত একাধিকবার চলে লোডশেডিং। শহরে মাঝে মধ্যে বিদ্যুৎ আসলেও গ্রামের অবস্থা আরো ভয়াবহ। সারাদিনে দুই থেকে তিন ঘণ্টার বেশি বিদ্যুৎ পাচ্ছেনা এলাকাবাসী। কোন কোন এলাকায় এক ঘণ্টাও বিদ্যুৎ থাকছেনা এমন অভিযোগ গ্রাহকদের। তাদের আরো আভিযোগ, যখন বিদ্যুৎ থাকেনা তখন আমতলী পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির হট লইনের সেল ফোন ব্যস্ত করে রাখা হয়। তাপদাহ যত তীব্র হয়, বিদ্যুতের লোডশেডিং যেন ততই পাল্লা দিয়ে বাড়তে থাকে। দিনে কয়েক ঘণ্টাব্যাপী লোডশেডিং দিয়ে শুরু হয় প্রথম ধাপ। সন্ধ্যার পরে দ্বিতীয় ধাপে গভীর রাত পর্যন্ত চলতে থাকে বিদ্যুত দেয়া নেয়ার খেলা। ঘন ঘন লোডশেডিংয়ে বিদ্যুৎ সঙ্কটের ফলে বিপর্যয়ের মুখে পড়েছে ছোট-বড় কলকারখানাসহ বিদ্যুৎ নির্ভরশীল ব্যবসা প্রতিষ্ঠানগুলো।

শিক্ষার্থীদের লেখাপড়া, অফিসিয়াল কার্যক্রমসহ হাসপাতালের চিকিৎসা সেবা হচ্ছে চরমভাবে ব্যহত। আমতলী উপজেলা সদরের গ্রাহক মো. হাবিবুর রহমান বলেন, আকাশে বিদ্যুৎ চমকালে কিংবা একটু বাতাসের চাপ থাকলেই বিদ্যুৎ চলে যায়। বিদ্যুৎ বিপর্যয়ের ফলে পানির সঙ্কট দেখা দেয়। তিনি আরো বলেন, ঘন ঘন লোডশেডিংয়ে আমতলী – তালতলী পল্লী বিদ্যুৎ জোনের গ্রাহকদের জনজীবনসহ ব্যবসা-বানিজ্য পড়েছে বিপর্যয়ের মুখে। তীব্র গরমে জ্বরসহ নিউমোনিয়া, টাইফয়েযে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা প্রতিদিন বাড়ছে। ঘন ঘন লোডশেডিংয়ে শিশুদের চিকিৎসাসেবা ব্যহত হচ্ছে সর্বোচ্চ মাত্রায়। আমতলী পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির প্রকৌশলী বিশ্বাস জামাল হোসেন জানান, ৪ মেগাওয়াট বিদ্যুতের বিপরীতে ১ থেকে দেড় মেগাওয়াট বিদ্যুৎ পাওয়া যাচ্ছে। তবে তিনি বলেন, জেনারেশন বৃদ্ধি ও জাতীয় গ্রীডের টাওয়ারের কাজ শেষ হলে বিদ্যুৎ বিভ্রাট থেকে পরিত্রাণ পাওয়া যাবে। পবিত্র রমজান শুরুর আগেই এ সমস্যার সমাধান হবে বলে তিনি জানান।

Facebook Comments

<a href=”http://barisallive24.com/wp-content/uploads/2017/05/infra-add.jpg” target=”_blank” rel=”noopener”><img src=”http://barisallive24.com/wp-content/uploads/2017/05/Hoopers1.jpg” width=”331″ height=”270″ /></a>