নগরবাসীকে জিম্মি করে এ কোন আন্দোলন !

মার্চ ৩১ ২০১৭, ১১:২৭

লিটন বাশার,অতিথি প্রতিবেদকঃ পাঁচ মাসের বকেয়ার বেতন পাওয়ার দাবীতে নগর ভবনের কর্মচারীরা দীর্ঘ দিন ধরে আন্দোলন সংগ্রাম করে আসছে। তাদের রুটি –রুজির আন্দোলনের ব্যাপারে সিংহভাগ নগরবাসীরই সমর্থন ছিলো। কিন্ত হঠাৎ করে আন্দোলনকারীরা নগরীর ময়লা-আবর্জনা পরিস্কার বন্ধ করে দেন। গত কয়েক দিন ধরে তারা ময়লা আবর্জনা পরিস্কার না করায় পুরো নগরী ময়লার ভাগারে রুপ নিয়েছে। পুরো ৫৮ বর্গ কিলোমিটার এ নগরী যেন এখন একটি ডাস্টবিন। সর্বত্র পচা-ময়লা নোংরা আবর্জনা থেকে দুর্গন্ধ ছড়াচ্ছে। নগরবাসীকে নাকে রুমাল দিয়ে পথচলতে হচ্ছে। বিশেষ করে গতকাল প্রচন্ত বাতাসের বেগে এ দুর্গন্ধ শহরকে বিষিয়ে তুলছেন। রাস্তা থেকে দুর্গন্ধ ছড়িয়েছে মানুষের বাসা বাড়িতে পর্যন্ত।  অস্বাস্থ্যকর এক পরিবেশে স্বাস্থ্য ঝুকির মধ্যে নগরবাসীকে ফেলে দিয়েছেন নগর ভবনের এ আন্দোলকারীরা। আন্দোলনের পালের গোদা দিপক বাবু’র এ কেমন আন্দোলন তা এখন নগরবাসীর কাছে প্রশ্ন বিদ্ধ হয়ে দাড়িয়েছে।
নগর ভবনের পরিচ্ছন্নতা কর্মী এই দিপক লাল কি জানেন না যে- সেবা খাত বন্ধ করে নগরবাসীকে জিম্মি করে দাবী আদায়ের জন্য এ ধরনের আন্দোলন বে-আইনী অযুক্তিক। ‘হ্যাম’ নিজে একজন কর্মচারী হিসাবে খুব ভাল করেই বুঝি ‘পেটে ভাত না থাকলে মানুষ কাজ করবে কি ভাবে! বেতন দিবেন না অথচ কাজ করবো তাতো হয় না।’ – এটা খুবই যুক্তির কথা। আমরা এ যুক্তির সাথে একমত। আপনারা আন্দোলন করে নগর ভবনকে অচল করে দিন। নগর ভবনের সকল কাজ কর্ম বন্ধ করে ধর্মঘট – মিছিল-মিটিং সবই করুন। প্রয়োজনে হরতাল ডাকতে পারেন। এটা শ্রমিকের নায্য অধিকার। আর অধিকার বঞ্চিত মানুষ ঘুরে দাড়াতে এটাই স্বাভাবিক।  কিন্ত সেবা খাত বন্ধ করে দিয়ে নগরবাসীকে দুর্ভোগে ফেলার কোন অধিকার কর্মচারীদের নেই। সম্পূর্ন বে-আইনী ভাবে পেশী শক্তির জোরে , সন্ত্রাসী ও মাস্তানী স্টাইলেই চলছে দিপক বাবুর এ আন্দোলন এটা বুঝতে আর কারো বাকী নেই। কর্মচারীদের মুখে শুনেছি – পুরো নগরীকে ময়লার ভাগারে রুপ দিয়ে নগরবাসীকে জিম্মি করেও নাকি দিপক বাবুর খায়েশ মেটেনি। তার নতুন শখের উদয় হয়েছে- নগরীর সড়ক বাতি বন্ধ করবেন আর পানি সরবারহ বন্ধ করবেন। ময়লা-আবর্জনা আর অন্ধকার ভূতুরে নগরীতে মানুষকে পানির কষ্ট দিয়ে দিপক তার ক্ষমতা জাহির করতে চাইছেন কি! জনমনে এ প্রশ্ন জাগাই স্বাভাবিক। আমরা ইতিপূর্বে বরিশাল সহ দেশের বিভিন্ন নগরীতে আন্দোলন সংগ্রাম করতে দেখেছি। সেখানে ক্ষুদ্ধ আন্দোলনকারীরা ঘোষনা দিয়ে প্রতীকি প্রতিবাদ হিসাবে ময়লা –আবর্জনা নিয়ে সিটি মেয়র মহোদয়ের বাস ভবনের সামনে ঢেলে প্রতিবাদ জানিয়েছেন। দেশের গণমাধ্যমে সে সব খবর এসেছে খেটে খাওয়া মেহনতি মানুষ আন্দোলনের এক নতুন ভাষা খুজে পেয়েছেন। প্রতিবাদের এক মাধ্যম মানুষ বুঝতে পেরেছেন। নগর ভবনে মেয়রকে অবাঞ্চিত করার মত দূর্বার আন্দোলন আমরা দেখেছি।  কিন্ত দিপক মুলত কি বুঝাতে চাইছেন। নগরীর সাধারন নিরহ মানুষের দিকে তিনি কেন তার ক্ষমতার হুল ফুটালো! তার আসল উদ্দেশ্যই বা কি?
কর্মচারীদের বকেয়া বেতন আদায় করে দেওয়া নাকি নাগরিক দূর্ভোগ সৃষ্টি করে নির্বাচিত মেয়র আহসান হাবিব কামালকে নগরবাসীর কাছে ভিলেন হিসাবে দ্বাড় করানো! দিপক বাবু কাকে ভিলেন আর কাকে নায়ক করার মিশন নিয়ে এ অযুক্তিক জনদূর্ভোগ সৃষ্টির তরিকায় আন্দোলন গড়ে তুলে নিজেই খল নায়ক বনে গেছেন তা আমাদের জানা নেই। আর আমরা এটা জানতেও চাই না। আমরা শুধু বাবু দিপক লালকে বলতে চাই- এ দেশে জাতীয় স্বার্থে যখন বড় আন্দোলন সংগ্রাম হয়েছে তখনও এ্যাম্বুলেন্স সংবাদ পত্রের গাড়ি কিংবা ময়লা আবর্জনার গাড়ি চলাচল বন্ধ হয়নি।
বর্তমান

প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে ১৯৯৬ সালে যখন প্রজাতন্ত্রের কর্মচারীরাও আন্দোলন করতে জনতার মঞ্চ তৈরী করেছিল সেদিনও সচিবালয়ের কর্মচারীরা ধর্মঘটের নামে ময়লা-আবর্জনা পরিস্কার থেকে বিরত ছিল না।  জনতার মঞ্চে দিনের পর দিন অবস্থান নিয়ে সেদিন উৎসাহ দিয়েছিলেন অবিভক্ত ঢাকা সিটি কর্পোরেশনের তৎকালীন মেয়র প্রয়াত মোহম্মদ হানিফ। তিনি ইচ্ছা করলে নগর ভবনের ধর্মঘট চলমান থাকায় রাজধানী ঢাকার ময়লা-আবর্জনা পরিস্কার না করে বেগম খালেদা জিয়াকে দ্রুত পদত্যাগে বাধ্য করার তরিকা বেছে নিতে পারতেন। কিন্ত প্রয়াত মেয়র মোহম্মদ হানিফ আওয়ামী লীগের বলিষ্ট নির্ভিক নেতা হলেও হয়তো আপনার (দীপক) মত এত জ্ঞান তার ছিল না(!)। যদি তিনি আপনার মত এতটা জ্ঞানী হতেন তাইলে দাবী আদায়ের জন্য ১৯৯৬ সালেই মেয়র হানিফ ঢাকাবাসীকে এমন দূর্ভোগে ফেলতেন। হাসপাতালের ডাক্তার নার্সরা যদি আপনার মত এত জ্ঞানী হতেন তাইলে তারা ধর্মঘটের সময় জরুরী বিভাগটিও বন্ধ করে দিতেন। কিন্ত দিপক বাবু’র মত এত জ্ঞানী তারা না হওয়ায় নগর জুড়ে আন্দোলনের নোংড়া দুর্গন্ধ তারা ছড়াতে পারেনি। দিপক বাবু কি দয়া করে বলবেন নগরবাসীকে যে আপনি তথা কথিত আন্দোলনের নামে জিম্মি করে রেখেছেন তার কারন কি? নগরবাসীর দোষ বা আপনার দৃষ্টিতে অন্যায়টা কোথায়। তারা তো ট্যাক্স দেন, আয়কর দেন, পানি-বিদুৎ বিল থেকে সবই পরিশোধ করেন। আপনাদের বেতন – ভাতার জন্য তাদের কে কেন জিম্মি হতে হলো। ৮ লাখ মানুষের জীবন-যাত্রা নিয়ে খেলা ধুলা করার ক্ষমতা যখন আপনার হাতের মুঠোয় সেই খেলাটি কি আপনি সকলকে বাদ দিয়ে শুধু সিটি মেয়র আহসান হাবিবের সাথে খেলতে পারেন না! না কি তার সাথে পেরে উঠছেন না বলেই দূর্বল নগরবাসীকে দূর্ভোগে ফেলে আপনি তামশা দেখছেন।
আপনি নিশ্চয়ই আমাদের চেয়ে অনেক বেশী ভাল জানেন-যে বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের অর্গানোগ্রাম অনুযায়ী ৭৫০জন জনবল থাকার কথা। কিন্ত কর্মচারীর সংখ্যা তো মাশল্লাহ ২৩’শ। তার মানে তিন গুনের বেশী। এই মাস্টার রোল কর্মচারী নিয়োগের বানিজ্যে কি নিরীহ নগরবাসী জড়িত? নাকি এ বানিজ্যের সাথে জড়িয়ে আপনি নিজেই ইতিপূর্বে একটি বিশাল কেলেংকারী সৃষ্টি করেছিলেন নগর ভবনে! নিশ্চয়ই আপনার মনে আছে।

আমাদেরও সেই কথা মনে আছে সাথে সাথে নতুন করে মনে প্রশ্ন দেখা দেয় এই যে দীর্ঘ আন্দোলন সংগ্রামে আপনাকে এত রসদ কে জোগায়। বিপুল টাকা খরচ হয় যে কোন আন্দোলনে। তার উপরে আপনি মিডিয়া হাউজ গুলোতেও ভাল টাকা ঢালছেন। আমরা অবগত রয়েছি কয়েক জন কাউন্সিলর আপনাদের এ আন্দোলনে উৎসাহ দিচ্ছেন অতি গোপনে। কয়েক জন আবার নিরব দর্শকের মতই তামাশা দেখছেন। তারা কি ভূলে গেছেন আর কয়েক দিন পরই যে নির্বাচন হবে সেখানে মানুষের কাছে আপনি ভোট চাইতে যাবেন না। যেতে হবে তাদেরকে। আর জনগন কিন্ত আপনার এ অপকর্মের জন্য তাদের কাছেই জবাব চাইবে যে গত নির্বাচনে ভোট দিয়ে কাউন্সিলর নির্বাচিত করার পর কেন সাত দিন বাসার সামনে ময়লা আবর্জনা দুর্গন্ধ ছড়িয়ে ছিলো। কাউন্সিলরদের কাছে তো কেউ ভাত মাছ খেতে চায় না। যে কাউন্সিলর নিজের ওয়ার্ডের বাসিন্দাদের বসবাসের এলাকাটি পর্যন্ত পরিস্কার পরিচ্ছন্ন করে রাখার যোগ্যতা রাখেন না  তাকে কেন ভোট দিয়ে পুনরায় কাউন্সিলর নির্বাচিত করতে যাবে মানুষ!
সর্বশেষ মি: দীপক লাল মৃধা- আপনাকে ধন্যবাদ জানাই। কারন আপনি তো নগর ভবনের পরিস্কার পরিচ্ছন্নতা বিভাগের প্রধান কর্মকর্তা। বর্তমানে নগরীটি যে ভাবে পরিস্কার পরিচ্ছন্ন দেখছি তাতে আপনার দায়িত্ব পালনে আমরা মুগ্ধ (!) আপনার মত অকর্ম নিষ্ঠ লোকজন আছে বলেই বরিশাল তথা বাংলাদেশের আজ—————–।

সূত্রঃদৈনিক দখিনের মুখ

Facebook Comments

<a href=”http://barisallive24.com/wp-content/uploads/2017/05/infra-add.jpg” target=”_blank” rel=”noopener”><img src=”http://barisallive24.com/wp-content/uploads/2017/05/Hoopers1.jpg” width=”331″ height=”270″ /></a>