নলছিটিতে আ’লীগ নেতাকে কুপিয়ে জখম

আপডেট : July, 8, 2017, 8:18 pm

নলছিটি প্রতিনিধি : ঝালকাঠির  নলছিটি উপজেলার সুবিদপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের নেতা রাসেল মোল্লাকে (৩৫) কুপিয়ে জখম করেছে প্রতিপক্ষরা। অভিযোগ উঠেছে, দাবিকৃত চাঁদা আনতে গিয়ে হামলার শিকার হয়েছেন তিনি। শনিবার দুপুর দেড়টার দিকে উপজেলার সুবিদপুর এলাকার গোদন্ডা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। আহত রাসেল মোল্লাকে বরিশালের শের-ই-বাংলা চিকিৎসা মহাবিদ্যালয় (শেবাচিম) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। রাসেল মোল্লা সুবিদপুর ইউনিয়ন আ’লীগের যুগ্ম সম্পাদক এবং ওই ইউনিয়নের গোদন্ডা গ্রামে মৃত মজিবর রহমান মোল্লার ছেলে। স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, সুবিদপুর ইউনিয়নের গোদন্ডা গ্রামের লক্ষ্মী মিস্ত্রির বাড়ি সংলগ্ন এলাকায় একটি মাছের ঘের বানানোকে কেন্দ্র করে ওই ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান প্রার্থী আ’লীগ নেতা রহিম হাওলাদারের সঙ্গে রাসেল মোল্লার দ্বন্দ্ব ছিল। এর জের ধরে শনিবার দুপুরে ওই ঘেরের পাশে একা পেয়ে রাসেল মোল্লাকে মারধর করে রহিমের লোকজন। স্থানীয় লোকজন এগিয়ে এলে তারা পালিয়ে যায়। পরে আহত অবস্থায় রাসেলকে শেবাচিম হাসপাতালে নেওয়া হয়। রাসেলের ভাই রাকিব মোল্লা

ও প্রত্যক্ষদর্শী গোদন্ডা এলাকার আলামিন হোসেন জানায়, রহিম হাওলাদারের ভাই ছাত্রলীগ নেতা রহমান হাওলাদার ও রহিমের জামাই বাপ্পি সর্দারের নেতৃত্বে একদল সন্ত্রাসী রাসেলকে লোহার পাইপ দিয়ে পিটিয়ে এবং ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে জখম করেছে। হামলার খবর পেয়ে নলছিটি থানার এসআই জসিম ঘটনাস্থলে এসেছিলেন। অপরদিকে রাসেলকে কুপিয়ে জখম করার অভিযোগ অস্বীকার করে রহিম হাওলাদার বলেন, রাসেল এলাকার চিহ্নিত চাঁদাবাজ। গোদন্ডা এলাকায় মাটি কেটে মাছের ঘের তৈরি করতে গেলে রাসেল মোল্লা তার কাছে ১০ লক্ষ টাকা চাঁদা দাবি করেন। দাবিকৃত চাঁদা না দেওয়ায় রাসেল শুক্রবার মাটি কাটার এক্সভেটর মেশিন বন্ধ করে দেয়। শনিবার ফের মেশিন বন্ধ করতে গেলে লেবারদের সাঙ্গে রাসেলের সংঘর্ষ বাধে। এতে রাজু নামে একজন লেবার আহত হলে তাকে শেবাচিম হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। নলছিটি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) একেএম সুলতান মাহমুদ বলেন, এ ঘটনায় কেউ থানায় অভিযোগ করেনি। অভিযোগ পেলে তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্হা গ্রহণ করা হবে।

Facebook Comments