নিজের ভাগ্যে কী ঘটবে, কোন দিন তা চিন্তা করিনি: প্রধানমন্ত্রী

জুলাই ১২ ২০১৭, ২২:২৮

ডেস্ক রিপোর্টঃ প্রধানমন্ত্রী ও সংসদ নেতা শেখ হাসিনা বলেছেন, ক্ষমতা ভোগ করার জন্য রাজনীতি করি না। দেশের জন্য, দেশের জনগণের জন্য যে কোন ত্যাগ স্বীকার করতে প্রস্তুত। নিজের ভাগ্যে কী ঘটবে, নিজের জন্য কী করবো, জীবনেও কোন দিন তা চিন্তা করিনি। আমার ছেলে মেয়েরা বা আমার বোনের ছেলে মেয়েরা কখনো এটা দিতে হবে- ওটা দিতে হবে করে না। আমাদের ছেলে-মেয়েরা ব্যবসা চেয়ে বিরক্ত করে না। বরং ওরা একজন আইসিটি, একজন অটিজম নিয়ে কাজ করে বিশ্বের নজর কেড়েছে। আমার বোনের মেয়ে বৃটেনে দ্বিতীয়বার এমপি হয়েছে। স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে আজ বৈঠকে প্রধানমন্ত্রীর জন্য নির্ধারিত প্রশ্নোত্তর পর্বে মহিলা এমপি ফজিলাতুন নেসা বাপ্পির এক সম্পূরক প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব কথা বলেন। বক্তব্যের এক পর্যায়ে প্রধানমন্ত্রীকে আবেগাপ্লুত হয়ে পড়তে দেখা যায়।

শেখ হাসিনা বলেন, ‘আমরা ছেলে মেয়েদের লেখাপড়া শিখিয়েছি। আমি ও আমার বোনের ৫টি ছেলে মেয়ে- তাদেরকে একটা কথা বলে দিয়েছি। লেখাপড়া শিখেছ, ওইটুকুই তোমাদের সম্পদ। তারাও প্রতিটি কাজে আমাদের সহায়তা করছে। কখনো বিরক্ত করে না, এই ব্যবসা দিতে হবে সেই ব্যবসা দিতে হবে। এটা করতে হবে, ওটা করতে হবে। এই ধরনের বিরক্ত কখনোই তারা করেনি। শেখ হাসিনা বলেন, আমি গ্রামের পর গ্রাম হেঁটেছি। সাধারণ মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছি। কখনও দুর্ভিক্ষ হয়েছে, দুর্ভিক্ষ পিড়িত এলাকায় গিয়েছি। কখনও ঝড় হয়েছে

সেখানে রিলিফ দিতে গিয়েছি। পেয়েছি সাধারণ মানুষের ভালোবাসা। কত মা-বোন ছুটে এসেছে, কাছে টেনে নিয়েছে, বুকে টেনে নিয়েছে। মাটির ঘরে বসিয়েছে। উঠোনের রাস্তায় ডাব কেটে দিয়ে বলেছে, মা এটা খাও। মাথায় হাত বুলিয়ে দিয়ে শুধু বলেছে, বাবা জীবনটা দিয়ে গেছে তুমিও পথে নেমেছো মা? তুমি পথে নামছো আমাদের জন্য? তিনি বলেন, আমি মানুষের সাথে মিশেছি। পেয়েছি সাধারণ মানুষের ভালোবাসা। বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা আরো বলেন, এই যে ভালবাসার পরশ, মা-বাবা হারানোর বেদনাতো সেখান থেকেই ভুলে গেছি। সেখান থেকেই শক্তি পেয়েছি। এই মানুষগুলোর জন্যইতো আমার বাবা জীবন দিয়েছেন। তাই এদের জন্য জীবনের জন্য যে কোনো ত্যাগ স্বীকার করতে আমি প্রস্তুত। কোনো ব্যাক্তিগত আকাঙ্ক্ষা নয়, আজকে ক্ষমতা আমার জন্য ব্যাক্তিগত আকাঙ্ক্ষা পুরণের জন্য না। আমি রাষ্ট্রপতির মেয়ে ছিলাম, প্রধানমন্ত্রীর মেয়ে ছিলাম। মন্ত্রীর মেয়ে ছিলাম। আমার বাবা ৫৪ সালে মন্ত্রী ছিলেন। নিজের জন্য বাবা কিছু চান নি। তিনি জনগণের জন্য রাজনীতি করে গেছেন। আমিও ক্ষমতার জন্য রাজনীতি করি না। আমি নিজে প্রধানমন্ত্রী ছিলাম ২বার। এইবারসহ ৩বার। কখনও নিজের ভাগ্যে কি করব, সে কথা জীবনেও চিন্তা করি নি।

ক্ষমতাকে মানুষকে সেবা করার সুযোগ উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, সেবক হিসেবে দেশের মানুষের সেবা করার সুযোগটা পাচ্ছি। নৌকা মার্কায় ভোট দিয়ে বারবার নির্বাচিত করে দেশের মানুষকে সেবা করার সুযোগ করে দিচ্ছে।

Facebook Comments

<a href=”http://barisallive24.com/wp-content/uploads/2017/05/infra-add.jpg” target=”_blank” rel=”noopener”><img src=”http://barisallive24.com/wp-content/uploads/2017/05/Hoopers1.jpg” width=”331″ height=”270″ /></a>