পটুয়াখালীতে কালভার্টে বাঁধ দিয়ে মাছের ঘের!

মে ২৫ ২০১৭, ২৩:২১

কলাপাড়া প্রতিনিধি: পটুয়াখালীর কলাপাড়া উপজেলার মহিপুর থানার অন্তর্গত লালবুড়ির গুদির খালের পানির প্রবাহ বন্ধ করে দেয়ায় নিজামপুর ও পুরান মহিপুর গ্রামের অন্তত পাঁচ শ’ পরিবার লোনা পানিতে বন্দী হয়ে পড়েছে। খালের একাধিক স্থানে বাঁধ তৈরী করে এবং পানি চলাচলের একমাত্র কালভার্টের সামনে মাটির বাঁধ দিয়ে পানি চলাচল বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। এতে লোনা পানি নামতে না পারায় আবাদি জমির ঘাসসহ খড়কুটা সব পচে দুর্গন্ধ ছড়াচ্ছে। গ্রামের অধিকাংশ পরিবারের হাঁস-মুরগী মরে গেছে। ব্যবহারের পানির তীব্র সঙ্কট চলছে। এক-দেড় কিলোমিটার দুর থেকে রান্না, গোসলসহ ব্যবহারের পানি সংগ্রহ করতে হয়। জমে থাকা লোনা পানি খেয়ে গাবিদপশুর ডায়রিয়া লেগে আছে। এমনিতেই নিজামপুর গ্রাম সংলগ্ন বেড়িবাঁধ ভেঙ্গে যাওয়ায় জলোচ্ছ্বাসে টানা তিনটি বছর আমন ফসল ফলাতে পারেননি এসব কৃষক। প্রাকৃতিক এই বিপর্যয়ের জন্য এলাকার মানুষ পানিউন্নয়ন বোর্ডের কর্মকর্তা ও সংশ্লিষ্ট ঠিকাদারকে দুষছেন। এখন আবার এক প্রভাবশালী মেম্বার এক মাত্র খালটি দখল করে মাছের ঘের করায় পানি প্রবাহের পথ আটকে দেয়ায় সীমাহীন দুর্ভোগে পড়েছেন। বসবাসের অবস্থাও নেই। অনেকে গ্রাম ছেড়ে অন্যত্র চলে গেছে। মানুষের জীবন-জীবিকা বন্ধের উপক্রম

হয়েছে। গ্রামের পানি প্রবাহের একমাত্র খাল দখল করে মাছ চাষ করায় শত শত পরিবারে দুর্বিষহ অবস্থা নেমে এসেছে। এলাকার মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল মান্নান হাওলাদার জানান, একমাত্র খালটি দখল করে মাছ চাষ এবং কালভার্টের সামনে পানি নামার পথ মাটি ভরাট করে আটকে দেয়ায় তাদের এখন পানি বন্দীদশায় ফেলেছে। লোনা পানিতে সব সয়লাব। বিলে কোন ঘাস নেই। গবাদিপশুর কোন খাবার নেই। ব্যবহারের পানির তীব্র সঙ্কট চলছে। অধিকাংশ কৃষকের হাঁস-মুরগী মারা গেছে। গ্রামের বাসিন্দা আলমগীর হাওলাদারের ঘরের খালি ভিটি পড়ে আছে। এভাবে দু’টি গ্রামের মানুষ পানিবন্দী থাকলেও কেন পানি চলাচলের পথ আটকে জনদুর্ভোগ করা হয় এমন প্রশ্নের জবাবে মেম্বার আব্দুর রব বলেন, আমি আটকাই নাই। চেয়ারম্যান আটকে রাখতে বলেছেন। চেয়ারম্যান আব্দুস সালাম আকন জানান, জনস্বার্থ ক্ষুন্ন করে কাউকে তিনি এমন কাজ করতে বলেন নি। বৃহস্পতিবার সকালে তিনি নিজামপর গ্রামে গিয়ে কালভার্টের সামনের বাঁধ কেটে জলাবদ্ধতা নিরসনের নির্দেশ দিয়েছেন। এলাকার অধিকাংশ কৃষক-জেলে পরিবারের সদস্যরা বিষয়টি নিরসনে উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন। সহকারী কমিশনার (ভূমি) বিপুল চন্দ্র দাস জানান, বিষয়টি তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিবেন।

Facebook Comments

<a href=”http://barisallive24.com/wp-content/uploads/2017/05/infra-add.jpg” target=”_blank” rel=”noopener”><img src=”http://barisallive24.com/wp-content/uploads/2017/05/Hoopers1.jpg” width=”331″ height=”270″ /></a>