পটুয়াখালী জেলা ছাত্রলীগের সম্মেলনকে কেন্দ্র করে টান টান উত্তেজনা

জুলাই ২২ ২০১৭, ২২:৫১

সাইফুল ইসলাম,পটুয়াখালীঃ আগামী ২৪ জুলাই পটুয়াখালী জেলা ছাত্রলীগের সম্মেলনকে কেন্দ্র করে শহরে টান টান উত্তেজনা বিরাজ করছে। মাত্র ৬দিন আগে দলীয় শৃংখলা ভঙ্গের অভিযোগে জেলা ছাত্রলীগ সভাপতিকে দল থেকে বহিস্কার করা হয়েছে। ওই পদে সভাপতি প্রার্থী ওমর ফারুককে দায়িত্ব দেয়ায় দলীয় কোন্দল আরো ঘনিভূত হয়েছে। পাশাপাশি প্রত্যাশিত পদ পেতে নানা কৌশলে কেন্দ্রীয় নেতাদের ম্যানেজ করার চেষ্টা চলছে। তবে এ মেয়াদোত্তীর্ণ ও নতুন কমিটির প্রত্যাশিত পদে লড়াই করা ছাত্রলীগের অধিকাংশ নেতৃবৃন্দের বিরুদ্ধে হত্যা, চুরি, সাংবাদিককে প্রাণনাশের হুমকী, ক্যামেরা ছিনিয়ে নেয়ার চেষ্টা টেন্ডারবাজি, দখলবাজী, লুন্ঠন, নারী কেলেংকারীসহ নানাবিদ গুরুতর অভিযোগ রয়েছে। অবশ্য যাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ তারা সবাই অস্বীকার করছেন। আবার প্রকৃত ত্যাগী নেতাকর্মীরাও প্রত্যাশীত পদ পেতে দৌড় ঝাপ শুরু চালিয়ে যাচ্ছেন।

নতুন সভাপতি পদে প্রত্যাশিত প্রার্থীদের মধ্য বর্তমান জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক রাশেদ খান ও মোঃ ওমর ফারুক ভুইয়া, হাসান সিকদার, আনোয়ার উজ্জামান, রিফাত হাসান সজিব, আশিষ ঘোষ, লুৎফর রহমান রাসেল, মইন খান চানুসহ অনেকের নাম শোনা যাচ্ছে। সাধারণ সম্পাদক পদে আরিফ আলামীন, আশিষ কুমার হৃদয়, রকিবুল হাসান রকি, মেহেদী হাসান কোয়েল, রিফাত, মাসুম হাওলাদার, তানভীর হাসান আরিফ প্রমুখের নাম শোনা গেছে। এদের মধ্য অনেকেই মেয়াদোত্তীর্ণ কমিটির গুরুত্বপূর্র্ণ পদসহ বিভিন্ন পদে রয়েছেন।

এদিকে বহিস্কৃত সভাপতি নাসির উদ্দিন হাওলাদার ও সাধারণ সম্পাদক রাশেদ খানের বিরুদ্ধে অন্যান্য অভিযোগের পাশাপাশি অর্থের বিনিময় উপজেলাগুলোতে কমিটি অনুমোদ দেয়া হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। তারই ধারাবাহিকতায় দলের নিয়ম-নীতি উপেক্ষা করে অর্থের বিনিময় দুমকী উপজেলা কমিটি দিতে গিয়ে বির্তকে জড়িয়ে পড়েন সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক। এনিয়ে তাদের বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলনসহ পবিপ্রবি রণক্ষেত্রে পরিণত হয়েছিল। পরে নতুন কমিটি স্থগীত করেন কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ।
এদিকে ছাত্রলীগের অভ্যন্তরীণ দ্বন্দ্ব নিয়ে কথিত ছাত্রলীগের দুইটি গ্রুপের মধ্য একতা সড়ক এলাকায় কয়েকদফা অস্ত্রের মহড়া চলে। বৃহস্পতিবার বিকেলে একটি গ্রুপ দেশীয় অস্ত্র নিয়ে একতা সড়ক এলাকায় প্রদর্শনকালে টহলরত পুলিশের হাতে আটক হয় কথিত ছাত্রলীগকর্মী বাদল। খবর শুনে তাৎক্ষণিক সাধারণ সম্পাদক রাশেদ খান তার পক্ষে ছাফাই গেয়ে পুলিশেরর কাছ থেকে তাকে মুক্ত করে নেয়। বিষয়টি নিয়ে এলাকার সাধারণ মানুষের মধ্য ক্ষোভের সৃষ্টি হয়।

ছাত্রলীগ সুত্রে জানা গেছে, সাধারণ সম্পাদক রাশেদ খান নতুন কমিটির সভাপতি পদ পেতে নানা কৌশলে দৌড়ঝাপ শুরু করেছেন। কিন্তু তার বিরুদ্ধে হত্যা মামলায় জড়িত আসামীদের রক্ষা করা, সংবাদ প্রকাশের জেরে সাংবাদিককে প্রাণনাশের হুমকী, টেন্ডারবাজী, সরকারী কর্মকতার হাত কেটে নেয়ার হুমকী দেয়া, জোড় করে খেয়াঘাট ইজারা নেয়া এবং তার স্নেহধন্য কর্মীদের দিয়ে দখলবাজী ও মাদক ব্যবসা চালানোসহ বহুবিধ অভিযোগ শোনা যাচ্ছে।
আরেক

সভাপতি প্রার্থী হাসান শিকদার ২০১১ সালে সংগটিত পটুয়াখালী শহরের একেএম কলেজ ক্যাম্পাসে প্রকাশ্যে শাহাদাৎ হত্যা মামলার প্রধান আসামী। তবে হাসান সিকদার জানান, এ মামলায় তিনি অব্যাহতি পেয়েছেন। সভাপতি পদে আরেক প্রার্থী লুৎফর রহমান রাসেলের বিরুদ্ধে রয়েছে মোবাইল চুরির অভিযোগ।

সাধারণ সম্পাদক পদ পেতে কেন্দ্রীয় আ.লীগের তথ্য ও গবেষণা সম্পাদকের আনুকূল্য পেতে দৌড়ঝাপ করছেন সৈয়দ আবুল আহাদ রাশেদ। ২০১৫ পটুয়াখালী কলেজ ছাত্রদলের অনুমোদিত একটি কমিটিতে যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক পদে তার নাম দেখা গেছে। ওই পদে আরেক প্রার্থী রকিবুল ইসলাম রকির বিরুদ্ধে ছাত্রদলের সাথে সম্পৃক্ততা এবং আলোচিত ছাত্রনেতা পারভেজকে মারধর করার মামলা চলমান রয়েছে।

এদিকে মেয়াদোত্তীর্ণ কমিটির জেলা ছাত্রলীগের সদস্য সাধারণ সম্পাদকের স্নেহহভাজন জিএম জহির রায়হান কলেজ ছাত্র মাহবুব হত্যা মামলার তৃতীয় আসামী হওয়ায় পলাতক রয়েছে। সহ সভাপতি অলিউল্লা ওলির বিরুদ্ধে রয়েছে মামলা। যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মোঃ সোহাগ বিবাহিত। যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মোঃ জসিম উদ্দিনের বিরুদ্ধে শিবিরের সাথে সম্পৃক্ততার অভিযোগ পাওয়া গেছে। সাংগঠনিক সম্পাদক জুয়েল আল-আমীন তার বিরুদ্ধে অতিরিক্ত পুলিশ সুপারের ছাগল চুরির মামলা রয়েছে। সাংগঠনিক আবি আব্দুলাহ ও মাসুদ হাওলাদার বিএনপির সাথে সম্পৃক্ততার অভিযোগ রয়েছে। উপ দপ্তর সম্পাদক অশোক রায়কে কয়েক দিন আগে র‌্যাব মাদকসহ আটক করে। উপ সমাজ সেবা সম্পাদক মোঃ মাকসুদুল ইসলাম মিঠুর বিরুদ্ধে চাঁদাবাজীর মামলা রয়েছে। উপ-পরিবেশ সম্পাদক জহিরুল ইসলাম সাদ্দামের বিরুদ্ধে মামলা রয়েছে। স্কুল বিষয়ক সম্পাদক শহিদুল ইসলাম শহিদ এখন বিবাহিত। ধর্ম বিষয়ক সমম্পাদ আব্দুল হক সায়েদ’র সাথে বিএনপির সাথে সম্পৃক্ততা। ত্রাণ ও দুর্যোগ বিষয়ক সম্পাদক সালাউদ্দিন হিরা জেলা আওয়ামীর যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক কাজী আলমগীর এর দায়েরকৃত একটি মামলার আসামী। আতিকুল ইসলাম মিঠুর বিরুদ্ধে চাঁদাবাজীর অভিযোগ রয়েছে। যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক রতন দাস চাকুরিজীবি। পলিটেকনিক কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি ছাইদুর রহমান ও উজ্জল সিকদারের বিরুদ্ধে নারী কেলেঙ্কারীর মামলা রয়েছে।
রাঙ্গাবালী উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি খালিদ বিন ওয়ালিদের বিরুদ্ধে ঘের দখলের অভিযোগ রয়েছে। এদিকে সম্প্রতি বেশ কয়েকটি গোয়েন্দা সংস্থা মাঠ পর্যায়ে নিরীক্ষা করে এমন তথ্য সংগ্রহ করেছেন বলে জানা গেছে।

এ বিষয়ে পটুয়াখালী জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক রাশেদ খানের ব্যবহৃত নম্বরে একাধিকবার কল দিলেও তিনি কল রিসিভ করেননি।

পটুয়াখালীর দায়িত্বপ্রাপ্ত কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শেখ ফয়সল আমীন বলেন, বৃহস্পতিবার থেকে শনিবার দুপুর পর্যন্ত ৩৫ জন প্রার্থী ফরম ক্রয় করেছেন। পদ প্রত্যাশিদের অভিযোগের বিষয়য়ে তিনি বলেন, যাদের বিরুদ্ধে মাদক, মামলসহ নানা অভিযোগ রয়েছে, সেই অভিযোগ প্রমানিত হলে তাদের প্রার্থীতা বাতিল করা হবে। এনিয়ে মাঠেও অনেক গোয়েন্দা সংস্থা কাজ করছে। তাদের নিরীক্ষার বিষয়ে বিবেচনা করবে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের নেতৃবৃন্দ।

Facebook Comments

<a href=”http://barisallive24.com/wp-content/uploads/2017/05/infra-add.jpg” target=”_blank” rel=”noopener”><img src=”http://barisallive24.com/wp-content/uploads/2017/05/Hoopers1.jpg” width=”331″ height=”270″ /></a>