পাহাড়ে উদ্ধার অভিযান সমাপ্ত, ১৫২ জনের মৃত্যু

আপডেট : June, 17, 2017, 12:07 pm

প্রবল বর্ষণ ও পাহাড় ধসে বিপর্যস্ত রাঙামাটিতে উদ্ধার অভিযান সমাপ্ত ঘোষণা করেছে স্থানীয় প্রশাসন।

শুক্রবার বিকেল পৌনে ৬টায় রাঙামাটির জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মানজারুল মান্নান এক সংবাদ সম্মেলনে উদ্ধার অভিযান সমাপ্ত ঘোষণা করেন।

তিনি বলেন, পাহাড় ধসে রাঙামাটিতে ১১০ জনের মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। উদ্ধার অভিযান আপাতত সমাপ্ত করা হলো। তবে যেখানে নিখোঁজের সন্ধান পাওয়া যাবে, সেখানে ফের উদ্ধার তৎপরতা চালানো হবে।

এদিকে ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের পরিচালক (অপারেশন) মেজর শাকিল নেওয়াজ জানান, ব্যাপকহারে উদ্ধার অভিযান বন্ধ করা হয়েছে। চট্টগ্রাম ও কুমিল্লা থেকে আসা ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা শনিবার চলে যাবে। তবে কোনো নিখোঁজের সন্ধান পাওয়া গেলে স্থানীয় ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা উদ্ধার তৎপরতা চালাবে।

এর আগে শুক্রবার সকালে চতুর্থ দিনের মতো উদ্ধার অভিযানে রাঙামটি শহর থেকে একজন ও শহরের বাইরে থেকে আরেকজনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

পার্বত্য অঞ্চলসহ পাঁচ জেলায় প্রবল বর্ষণ ও পাহাড় ধসের

ঘটনায় এ নিয়ে ১৫২ জনের মরদেহ উদ্ধার হয়েছে; যার মধ্যে শুধু রাঙামটিতেই উদ্ধার হয় ১১০টি মরদেহ।

এর আগে বৃহস্পতিবার পর্যন্ত সব মিলিয়ে মৃতের সংখ্যা ১৫০ জনে দাঁড়ায়।

স্বজন হারানো মানুষের আহাজারিতে এখনও ভারি পাহাড়ের বাতাস। আপনজন হারানো মানুষের তালিকা দীর্ঘ হয়েছে আরও। ত্রাণ কার্যক্রম ও ক্ষয়ক্ষতি নিরূপণ করতে গঠন করা হয়েছে দুটি কমিটিও।

এদিকে বৃহস্পতিবার রোদের দেখা মিললেও দুপুরে শুরু হয় ঝুম বৃষ্টি। এরপর একটু থেমে রাত থেকে শুরু হয়েছে গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি। এতে লোকজন ফের পাহাড় ধসের আতঙ্কে আশ্রয় কেন্দ্রগুলোতে আশ্রয় নিয়েছেন।

চট্টগ্রামের জেলা প্রশাসক জিল্লুর রহমান চৌধুরী বলেন, ‘চট্টগ্রামে পাহাড় ধসে নিহতের সংখ্যা ২৩ জন থেকে বেড়ে ২৭ জনে পৌঁছেছে। বুধবার নতুন করে রাঙ্গুনিয়ায় চার জনের লাশ পাওয়া গেছে। ক্ষতিগ্রস্তদের সাহায্য দিতে তালিকা করা হচ্ছে।’

বান্দরবানের জেলা প্রশাসক দিলীপ কুমার বণিক বলেন, ‘ সর্বশেষ বুধবার নতুন করে দুজনের লাশ পেয়েছি আমরা। এরা দুজন মা-মেয়ে।’

Facebook Comments