পিরোজপুরে ধর্ষণের দায়ে দুই জনের যাবজ্জীবন

আপডেট : April, 23, 2017, 4:22 pm

পিরোজপুরে স্কুল ছাত্রীকে ধর্ষণের দায়ে দুই ব্যক্তিকে যাবজ্জীবন ও একজনকে সাত বছরের কারাদণ্ড দিয়েছে আদালত।

আজ রোববার অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ এস এম জিল্লুর রহমান এ রায় ঘোষণা করেন।

দণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন- সদর উপজেলার কালিকাঠি এলাকার শহিদুল ইসলাম ফরিদ মহাজনের ছেলে তছলিম হাসান বাপ্পি (১৯), একই এলাকার ইনছাফ আলী মহাজনের ছেলে ইমরান মহাজন (১৮) ও ইসকেন্দার মহাজনের ছেলে শহিদুল ইসলাম ফরিদ মহাজন (৪৫)।

তিন আসামির মধ্যে বাপ্পি ও ইমরানকে যাবজ্জীবন এবং বাপ্পির বাবা শহিদুলকে সাত বছরের কারাদণ্ড দিয়েছে আদালত।

কারাদণ্ডের পাশাপাশি বিচারক বাপ্পি ও

ইমরানকে এক লাখ টাকা অর্থদণ্ড অনাদায়ে এক বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন। শহিদুলকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা ও অনাদায়ে ছয় মাসের কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।

আদালত সূত্রে জানাগেছে, ইমরানের সহযোগিতায় ২০১৩ সালের ২ জানুয়ারি রাতে বাপ্পি প্রতিবেশী এক স্কুল ছাত্রীকে ধর্ষণ করে। এতে মেয়েটি অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়লে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে বাপ্পির বাব শহিদুল মেয়েটিকে ঢাকার একটি হাসপাতালে নিয়ে গিয়ে গর্ভপাত করান।

ওই বছরের ৩ জুন মেয়েটির বাবা সদর থানায় মামলা দায়ের করেন। তদন্ত শেষে পুলিশ ৩১ জুলাই আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করলে এ মামলার বিচারকাজ শুরু হয়।

Facebook Comments