প্রেমের প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় রাজাপুরে কিশোরীকে মারধর

জুন ১৫ ২০১৭, ২০:৩২

ঝালকাঠি প্রতিনিধিঃ প্রেমের প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় ঝালকাঠির রাজাপুরে বখাটেরা ১৭ বছরের এক কিশোরীকে মারধর করেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। বৃহস্পতিবার দুপুরে রাজাপুর বাইপাস এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। স্থানীয়রা বখাটেদের ধাওয়া করলে তারা পালিয়ে যায়। আহত ওই কিশোরীকে রাজাপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, রাজাপুর থানার সামনের একটি কম্পিউটারের দোকানে ওই কিশোরী একাদশ শ্রেণিতে ভর্তির জন্য অনলাইনে আবেদন করতে যায়। তাঁর পিছু নিয়ে দক্ষিণ রাজাপুর গ্রামের বখাটে মাইনুল ইসলাম ও তার সহযোগিরা ওই দোকানে যায়। কিশোরী অনলাইনে আবেদন করে বাড়ি ফেরার সময় বখাটেরা তাকে মোটরসাইকেলে তুলে নিয়ে যায়। রাস্তায় লোকজন দেখে বাঁচাও বলে চিৎকার করে ওই কিশোরী। এক পর্যায়ে বাইপাস এলাকায় কিশোরীকে মোটরসাইকেল থেকে নামিয়ে এলাপাথারী কিল ঘুষি মারতে থাকে। এতে ওই কিশোরীর মুখমন্ডল রক্তাক্ত জখম হয়। স্থানীয় লোকজন ঘটনা দেখে ধাওয়া করলে বখাটেরা মোটরসাইকেলে পালিয়ে যায়।
কিশোরী জানায়, দীর্ঘ দিন ধরেই দক্ষিণ রাজাপুর গ্রামের তানজেল সিকদারের ছেলে মাইনুল ইসলাম তাকে উত্যক্ত করে আসছে। স্কুলে পড়ালেখা করার সময় থেকেই সে বিভিন্ন সময় তাকে প্রেম

প্রস্তাব দেয়। এতে রাজি না হওয়ায় মাইনুল তাঁর ওপর ক্ষিপ্ত ছিল। একাদশ শেণিতে ভর্তির জন্য দুপুরে থানার সামনে একটি আসার সময় বখাটে মাইনুল ও তাঁর সহযোগিরা পিছু নেয়। প্রেম প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় তাকে লাঠি দিয়ে পিটিয়ে আহত করেছে তারা। এ ঘটনায় মাইনুল ও সহযোগিদের বিরুদ্ধে রাজাপুর থানায় অভিযোগ দায়েরের প্রক্রিয়া চলছে।
কিশোরীর মামা (এনামুল হোসেন) বলেন, আমি বাইপাস থেকে বাড়ি যাওয়ার পথে একটি মেয়েকে মারধরের ঘটনা দেখতে পাই। কাছে গিয়ে দেখি আমার ভাগ্নিকে মেরে পালিয়ে যায় কিছু বখাটে ছেলে। তাদের মধ্যে একজন হচ্ছে দক্ষিণ রাজাপুর গ্রামের মাইনুল ইসলাম। আমি এলাকার কয়েকজন লোকের সাহায্য নিয়ে ভাগ্নিকে থানায় নিয়ে আসে।
রাজাপুর থানার ওসি (তদন্ত) হারুন অর রশীদ বলেন, রাজাপুর বাইপাস এলাকায় বসে ওই কিশোরীকে মারধর করার পরে বখাটেরা পালিয়ে যায়। কিশোরী ভয় পেয়ে স্থানীয়দের সহযোগিতায় থানায় এসে আশ্রয় নেয়। তাকে রাজাপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় মামলা দায়ের করা হবে। ঘটনার পরপরই পুলিশ বখাটেদের গ্রামের বাড়িতে অভিযান চালায়। তারা গাঢাকা দেওয়ায় কাউকে গ্রেপ্তার করা সম্ভব হয়নি।

 

Facebook Comments