প্রয়োজনে সরকারের সঙ্গে সমঝোতা করেই নির্বাচন

আপডেট : July, 31, 2017, 11:24 pm

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ আলোচনায় পাওয়া সুপারিশের ভিত্তিতে প্রয়োজনে সরকারের সঙ্গে সমঝোতা করেই সুষ্ঠু নির্বাচনের ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানিয়েছেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নূরুল হুদা।

সোমবার নাগরিক সমাজের প্রতিনিধিদের সঙ্গে সংলাপ শেষে ব্রিফিংয়ে তিনি এ কথা বলেন।

সিইসি বলেন, আমাদের ধারাবাহিক আলোচনা হবে। সবার বক্তব্য শুনে পূর্ণাঙ্গ প্রতিবেদন করব। সেখান থেকে যেসব উপাদান পাবো, যেগুলোর বিষয়ে সরকারের সঙ্গে সমঝোতা করা প্রয়োজন, সেগুলো আমরা সরকারের সঙ্গে সমঝোতা করে সুষ্ঠুভাবে নির্বাচনের কী কী পদক্ষেপ নেয়া যায় তা চিন্তা করব।

নাগরিক সমাজের প্রতিনিধিদের সঙ্গে সংলাপের বিষয়ে সিইসি বলেন, তাদেরকে আমরা আশ্বস্ত করেছি- আইনের আলোকে নির্বাচন পরিচালনার যে ক্ষমতা ইসির সাংবিধানিকভাবে রয়েছে তা পরিপূর্ণভাবে ব্যবহার করা হবে।

তিনি জানান, সুশীল সমাজের প্রতিনিধিরা সবচেয়ে বেশি পরামর্শ দিয়েছেন কমিশনকে সাহসিকতার সঙ্গে কাজ করার জন্য। তাগিদ দিয়েছেন জনগণের আস্থা অর্জনের।

তিনি বলেন, ইতোমধ্যে আস্থা অর্জনের লক্ষ্যে সংলাপ শুরু হয়েছে। এ পর্যন্ত কমিশনের সব কার্যক্রম নিরপেক্ষভাবে করা হয়েছে। বলা যায়- আস্থা অর্জনের কাজগুলো কমিশন করে যাচ্ছে।

তিনি আরও বলেন, ইসি একটি নিরপেক্ষ প্রতিষ্ঠান। সেখানে সরকারের কারা থাকবে বা কারা থাকবে না সেটার চেয়েও বড় কথা হল- কঠোরভাবে, কঠিনভাবে এ নির্বাচন

পরিচালনা আমাদের করতে হবে। জাতি আমাদের কাছে প্রত্যাশা করে সুষ্ঠু, ভালো নির্বাচন। আমরা যেন তা করতে পারি সুশীল সমাজের প্রতিনিধিরা তা মনে করিয়ে দিয়েছেন।

সংলাপের মাধ্যমে সরকার ও রাজনৈতিক দলের ওপর প্রভাব পড়বে বলে মনে করেন সিইসি।

সিইসি জানান, সুশীল সমাজের সঙ্গে সংলাপে ভোটে সেনাবাহিনী মোতায়েন নিয়ে যেমন অনেকে দাবি তুলেছেন, তেমনি সেনাবাহিনীকে ম্যাজিস্ট্রেসি ক্ষমতা দিলে পুলিশ, বিজিবি ও আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর অন্যদের ক্ষমতা খর্ব হবে বলেও মত দিয়েছেন। অনেকে না ভোট চালুসহ নানা ধরনের সুপারিশ তুলে ধরেছেন বলেও জানান নূরুল হুদা।

এ সময়ে নির্বাচন কমিশনার মাহাবুব তালুকদার বলেন, কোন মিডিয়া যাতে কোন প্রার্থী ও রাজনৈতিক দলের বিরুদ্ধে মিথ্যাচারের মাধ্যমে অসত্য তথ্য দিয়ে সংবাদ প্রচার করতে না পারে সেজন্য আচরন বিধিতে তা অন্তর্ভূক্ত করার পরামর্শ এসেছে।

আরেক নির্বাচন কমিশনার মো. রফিকুল ইসলাম বলেন, বিদেশি ভোটারদের ভোটাধিকার প্রয়োগের বিষয়ে মিশ্র প্রতিক্রিয়া এসেছে। এটা সত্যিই খুব দূরহ ব্যাপার। বিদেশে আমাদের এক কোটি ভোটার রয়েছে।

ভারপ্রাপ্ত সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ বলেন, সংলাপে অনলাইনে মনোনয়নপত্র জমা দেয়ার পরামর্শ এসেছে। ব্যাপকভাবে অনলাইনের ব্যবহারের কথা বলেছেন। নির্বাচন প্রচারণায় মিডিয়ার ব্যবহারের কথা বলেছেন অনেকে। গুরুত্বপূর্ণ কয়েকটি মন্ত্রণালয় ইসির নিয়ন্ত্রণে রাখার সুপারিশ এসেছে।

Facebook Comments