ফিতরা জনপ্রতি সর্বনিম্ন ৬৫ টাকা

গম বা আটার বাজারমূল্য হিসাব করে এবার সর্বনিম্ন ফিতরা নির্ধারণ করা হয়েছে জনপ্রতি ৬৫ টাকা। আর সর্বোচ্চ ফিতরা ১৯৮০ টাকা। ইসলামিক ফাউন্ডেশনের পক্ষ থেকে এই হার নির্ধারণ করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদের সিনিয়র পেশ ইমাম হাফেজ মাওলানা মো. মিজানুর রহমানের সভাপতিত্বে জাতীয় ফিতরা নির্ধারণ কমিটি এ সিদ্ধান্ত নেয়।

ইসলামী শরীয়াহ মতে, গম, আটা, খেজুর, কিশমিশ, পনির, যব ইত্যাদি পণ্যের যে কোনো একটি দিয়ে ফিতরা দেয়া যাবে। গম বা আটা দিয়ে ফিতরা আদায় করলে ১ কেজি ৬৫০ গ্রাম বা এর বাজার মূল্য ৬৫ টাকা আদায় করতে হবে।

এভাবে খেজুর, কিশমিশ ও পনিরের বর্তমান বাজার মূল্যে সর্বোচ্চ

১৯৮০ টাকা ফিতরা আদায় করতে হবে।

তবে ফিতরা প্রদানকারী নিজ নিজ সামর্থ্য অনুযায়ী সাদকাতুল ফিতর আদায় করতে পারবেন।

উল্লিখিত দ্রব্যসমূহের স্থানীয় খুচরা বাজার মূল্যের তারতম্য রয়েছে। স্থানীয় মূল্যে পরিশোধ করলেও ফিতরা আদায় হবে।

বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদের সিনিয়র পেশ ইমাম মিজানুর রহমান যুগান্তরকে জানান, এসব পণ্যের বাজারমূল্য হিসাব করে এবার ফিতরা নির্ধারণ করা হয়েছে সর্বনিম্ন ৬৫ টাকা। আর সর্বোচ্চ ১৯৮০ টাকা।

ইসলামী আইন অনুযায়ী, প্রত্যেক সামর্থ্যবান মুসলমানের জন্য ফিতরা আদায় করা ওয়াজিব। নাবালক ছেলেমেয়ের পক্ষ থেকে বাবাকে এই ফিতরা দিতে হয়। আর তা দিতে হয় ঈদুল ফিতরের নামাজের আগেই।

প্রসঙ্গত, গত বছরও সর্বনিম্ন ফিতরা ধরা হয়েছিল জনপ্রতি ৬৫ টাকা।

Facebook Comments

<a href=”http://barisallive24.com/wp-content/uploads/2017/05/infra-add.jpg” target=”_blank” rel=”noopener”><img src=”http://barisallive24.com/wp-content/uploads/2017/05/Hoopers1.jpg” width=”331″ height=”270″ /></a>