ফের বরিশালের ঔষধের বাজারে অস্থিরতা

আপডেট : March, 19, 2017, 8:42 pm

 

মোঃ আরিফ সুমনঃজীবন রক্ষাকারী ঔষধের দাম বৃদ্ধি অব্যাহত রয়েছে। ধাপে ধাপে বৃদ্ধি পাচ্ছে বিভিন্ন কেম্পানীর ঔষধের দাম। মনিটরিং এর অভাবে এমনটি হচ্ছে বলে মনে করছেন ভূক্তভোগীরা। এ ব্যাপারে বরিশালের ঔষধের বাজারে খোজ নিয়ে দেখা গেছে,  বেশির ভাগ ঔষধ কোম্পানীর ভিটামিন বি১২র,দাম বেড়েছে। তার মধ্যে নিউরোবেষ্ট, সলবিয়ন, নিউবিয়ন,ভিটাবিউন উল্লেখযোগ্য। যার ১০ টির পাতা আগে ৫০ টাকা ছিল বর্তমানে দাম বৃদ্ধি পেয়ে তা ৮০ টাকা হয়েছে। বেড়েছে  ইনজেক্টাবল প্রডাক্ট মক্স্রাক্লাভ আইভি এর দাম। যা আগে ছিল ২৭০ টাকা কিন্তু বর্তমানে দাম বৃদ্ধি পেয়ে ৩০০ টাকা হয়েছে। কমপিরন সিরাপের দাম বেড়েছে। যা আগে ছিল ৫০ টাকা তা বেড়ে বর্র্তমানে ৯০ টাকা হয়েছে। অন্যদিকে কমেছে সিগ্লিমেট ৫০০ এমজির দাম। যা আগে ছিল পাতা ১৮০ টাকা তা কমে বর্তমানে ১৪০ টাকা  হয়েছে। অনুরুপ গ্লিপিটা ৫০০ এমজি  আগে ১৮০ টাকায় পাতা বিক্রি হতো যা বর্তমানে ১৪০ টাকায়  বিক্রি হচ্ছে।  এ দিকে এক সমীক্ষায় দেখা গেছে, দেশে ঔষধের বাজারে অস্থিরতার কারনে চোরাই পথে এদেশে ঢুকছে ভারতীয় নিন্ম মানের ঔষধ। এ সব ঔষধ সরকারী ভাবে বিক্রি নিষেধ থাকা সত্তে¦

শহর ও গ্রামগঞ্জে ফাম্মের্সীতে বিক্রি হচ্ছে দেদারসে।  একটি চক্র গোপনীয়তা অবলম্বন করে এসব নিন্ম মানের ঔষধ গোপনে বাজারজাত করে বেড়াচ্ছে। প্রশাসনের তৎপরতায় মাঝে মাঝে কিছু সফলতা আসলে ও বেশির ভাগ তারা থেকে যাচ্ছে ধরা ছোয়ার বাহিরে।  ভারতীয় ঔষধের মধ্যে এন্টিহিষ্টামিন,যৌন্য উদ্দীপক টেবলেট,মাথা ব্যথার নিমোসুলাইড,পিরিকটিন ডেকসামেথাসন অন্যতম। এদেশের বাজার ধরতে তা অতন্ত স্বল্প দামে তৃনমূলে বিক্রি হচ্ছে। তারমধ্যে যৌন উদ্দীপক ট্যাবলেট টারগেট ৫০/১০০ এমজি ১৫-২০ টাকায় প্রতি পিস বিক্রি হচ্ছে। পিরিকটিন ও ডেক্স্রামেথাসন ১০ টির পাতা ৫ টাকা করে বিক্রি হচ্ছে। নিমসুলাইড শত ৪৫ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।  বাংলাদেশ ক্যামিষ্ট এন্ড ড্রাগিষ্ট সমিতির বরিশাল জেলা শাখার অবৈতনিক সাধারন সম্পাদক শাহ্ আলম আনসারী বলেন, এ ব্যাপারে আমাদের কি করার আছে। এটা ঔষধ অথরিটি দেখবে। দুঃখজনক হলে ও সত্যি এক লাফে একটি সিরাপের দাম ২৫ থেকে ৪০  টাকা বৃদ্ধি পায়। এর আগে কি কোম্পানী লজ করছে-? এর আগে ও তারা লাভ করছে। তাহলে কর্তৃপক্ষ কি করে তা আমরা জানিনা।  মূলত আমাদের ভাগ্য খারাপ। সাধারন মানুষের পাশে কেহ নেই। সাধারন মানুষের স্বার্থ রক্ষা করার কেহ নেই।

Facebook Comments