ববি শিক্ষার্থী ও এলাকাবাসীর মধ্যে সাড়ে তিন ঘন্টার সংঘর্ষে অাহত-১৫

মে ২৭ ২০১৭, ০০:৪৪

নিজস্ব প্রতিবেদক: প্রকাশ্যে ধুমপান করাকে কেন্দ্র করে বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ও এলাকাবাসীর সাথে হামলা-পাল্টা হামলার ঘটনার ঘটনা ঘটেছে। এসময় শিক্ষার্থীরা ক্যাম্পাস সংলগ্ন শহীদ আব্দুর রব সেরনিয়াবাত সেতুর নিচে প্রায় অর্ধশত ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ভাংচুর করেছে। এতে উভয়পক্ষের কমপক্ষে ১৫ জন আহত হয়েছে। শুক্রবার সন্ধ্যা ৭টা হতে শুরু করে রাত সাড়ে ১০টা পর্যন্ত সদর উপজেলার কর্ণকাঠীতে বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস সংলগ্নে এই ঘটনা ঘটে। তবে হামলা এবং পাল্টা হামলার ঘটনায় বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থী এবং এলাকাবাসী পাল্টা পাল্টি অভিযোগ করেছেন।হামলায় বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের ৩য় বর্ষের ছাত্র মো. আল আমিন জানান, শুক্রবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে তিনিসহ বিশ্ববিদ্যালয়ের কয়েকজন শিক্ষার্থী ক্যাম্পাসের পাশে চর আইচা এলাকাধীন শহীদ আব্দুর রব সেরনিয়াবাত সেতুর নিচে দোকানে বসে নাস্তা করছিলেন। এসময় স্থানীয় জয়, বাপ্পি এবং আশিক নামের তিন বখাটে তাদের ওই দোকানের সামনে থেকে সরে অন্যত্র গিয়ে বসতে বলে। এ নিয়ে তাদের মধ্যে কথা কাটাকাটির এক পর্যায় জয়, বাপ্পি এবং আশিক সহ তাদের লোকজন নিয়ে ওই স্থানে উপস্থিত বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের উপর হামলা করে। এতে রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের আল আমিন, গণিত বিভাগের সিফাত আহমেদ, ব্যবস্থাপনা বিভাগের সজিব মিয়া, ফিন্যান্স বিভাগের রিফাত, ল’ বিভাগের রানা, নাঈম উদ্দিন মিঠু, মার্কেটিং বিভাগের সাকিব, রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের আব্দুর রহমান এবং মিরাজ হোসেন সহ ১০/১৫ জন আহত হয় বলে দাবী শিক্ষার্থীদের।
তারা বলেন, বিষয়টি ক্যাম্পাসে শিক্ষার্থীদের মধ্যে ছড়িয়ে পড়লে উত্তেজনার সৃষ্টি হয়। এক পর্যায় শিক্ষার্থীরা ধারালো অস্ত্র, রড এবং লাঠি-সোটা নিয়ে শহীদ আব্দুর রব সেরনিয়াবাত সেতুর নিচে চর আইচা এবং কর্ণকাঠী এলাকাধীন বাজারে হামলা ভাংচুর করে। এসময় সেখানকার টিনের তৈরী প্রায় অর্ধশত ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ভাংচুর করে। ভাংচুর হওয়া ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের মধ্যে মুদী, পোল্ট্রি মুরগীর দোকান, হোটেল এবং সেলুন সহ বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠান রয়েছে। হামলা ভাংচুরের খবর পেয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক নেতা মো. কাইয়ুম উদ্দিন সহ

অন্যান্য শিক্ষার্থীরা ঘটনাস্থলে পৌছে শিক্ষার্থীদের ওই এলাকা থেকে ফিরে আনেন। পরে শিক্ষার্থীরা বরিশাল-পটুয়াখালী সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ প্রদর্শণ করে। এতে করে যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে সীমাহীন ভোগান্তির সৃষ্টি হয়।
এদিকে শিক্ষার্থীরা অভিযোগ করে বলেন, জয় নামের বখাটে যুবক দীর্ঘ দিন ধরেই বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের নানা ভাবে হয়রানি এবং ভয়-ভীতি দেখিয়ে আসছিলো। ইতিপূর্বে তার হাতে কয়েকজন ছাত্র মারধরের শিকারও হয়েছে। তাছাড়া বখাটে জয় একজন চিহ্নিত ইভটিজার। বিশ্ববিদ্যালয়ের মেয়েদের মুখে সিগারেটের ধোয়া ছাড়াসহ নানা ভাবে ইভটিজিং করে আসছিলো। বিষয়টি নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনকে একাধিকবার অভিযোগ করা হলেও তারা কোন ব্যবস্থা নেয়নি। এজন্য বখাটে জয় শিক্ষার্থীদের উপর হামলার সাহস পেয়েছে।
অপরদিকে খবর পেয়ে বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশের উপ-পুলিশ কমিশনার গোলাম আব্দুর রউফ খান, অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার সাইফুল্লাহ মো. নাসির সহ পুলিশের একাধিক টিম ঘটনাস্থলে পৌছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে। তাছাড়া আহতদের শিক্ষার্থীদের মধ্যে ৩ জনকে বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে বলে শিক্ষার্থীদের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।
এদিকে চর আইচা ও চর কাউয়ার ক্ষতিগ্রস্থ ব্যবসায়ীরা জানান, এলাকার গন্যমান্য ব্যক্তি সুরুজ মোল্লার সামনে সন্ধ্যায় বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা ধুমপান করছিলো। তখন জয় নামের স্থানীয় যুবক তাদেরকে সিনিয়র জুনিয়র দেখে সংযত হয়ে ধুমপান করতে বলে। এ নিয়ে কথা কাটাকাটির এক পর্যায় বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা জয় নামের ওই যুবককে বেধড়ক ভাবে পিটিয়ে গুরুতর আহত করে। স্থানীয়রা ছুটে আসলে শিক্ষার্থীরা দৌড়ে পালিয়ে যায়। এর একটু পরেই শিক্ষার্থীরা সঙ্গবদ্ধ হয়ে পূণরায় চর আইচা বাজারে ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে হামলা এবং ভাংচুর করে।
জানতে চাইলে বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশের অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার সাইফুল্লাহ মো. নাসির বলেন, যে কোন একটি বিষয় নিয়ে স্থানীয়দের সাথে বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীদের হামলা পাল্টা হামলার ঘটনা ঘটেছে। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে। এ নিয়ে কোন পক্ষ অভিযোগ করলে পরবর্তী আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে বলে জানিয়েছেন তিনি।

Facebook Comments

<a href=”http://barisallive24.com/wp-content/uploads/2017/05/infra-add.jpg” target=”_blank” rel=”noopener”><img src=”http://barisallive24.com/wp-content/uploads/2017/05/Hoopers1.jpg” width=”331″ height=”270″ /></a>