বরগুনায় জেএসসি রেজিষ্ট্রেশনের ৬০ টকার ফি ৬০০ টাকা গ্রহন

মে ২৫ ২০১৭, ২৩:১০

আমতলী প্রতিনিধি: বরগুনার আমতলী উপজেলার কেওয়াবুনিয়া ম্যধ্যমিক বিদ্যালয়ে জেএস সি ও নবম শ্রেনীর ছাত্র/ ছাত্রীদের রেজিষ্টেশনের জন্য সরকার নির্ধারিত ফির চেয়ে অতিরিক্ত ফি আদায়ের অভিযোগ পাওয়া গেছে। জানা গেছে, শিক্ষা বোর্ডের নিয়মনুযায়ী কেওয়াবুনিয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয় থেকে জে এস সি (৮ম) শ্রেনীতে নিবন্ধন শেষ হয়েছে । আর নবম শ্রেনীতে চলমান রয়েছে এতে ঐ স্কুলের প্রধান শিক্ষক মো. ফারুক হোসেন রেজিষ্টেশন ফি বাবদ ছাত্র ছাত্রী প্রতি ৬০০ টাকা নির্ধারন করেন। শিক্ষা মন্ত্রনালয়ে সার্কুলারে জেএসসি রেজিষ্ট্রেশন ফি ৬০ টাকা আর নবম শ্রেনীতে রেজিষ্টেশন ফি ১৭৫ টাকা নির্ধারন করেন। কিন্তু প্রধান শিক্ষক কোনো নিয়ম কানুন না মেনে পল্লী অঞ্চলের অসহায় গরীব ছাত্র ছাত্রীদের কাছ থেকে ৬০০ টাকা করে নিয়েছেন। স্কুলের নবম শ্রেনীর ছাত্র নাইমুর, আল মামুন, পলাশ, ইশ্রাফিল জানান তারা রেজিষ্ট্রেশন করার জন্য ৬০০ করে টাকা দিয়েছেন। জেএসসির ৭০ জন ছাত্র ছাত্রী ৬০০ টাকা ফি দিয়ে রেজিষ্ট্রেশন করেছেন। নবম শ্রেনীর ৬৩ জন ছাত্র ছাত্রীর মধ্যে ৪০ জন ৬০০ টাকা করে দিয়েছেন। তবে ৬০০ টাকার

কোন কোন রশিদ ছাত্র /ছাত্রীদের দেয়নি বলেও ছাত্র/ ছাত্রীরা জানান। প্রধান শিক্ষক মো. ফারুক হোসেন ৬০০ টাকা নেয়ার কথা স্বীকার করে বলেন সেশন ফি নেওয়া হয়েছে ৫০০ টাকা করে। সেশন ফি ইতি পূর্বে নিয়েছেন জিজ্ঞাসা করলে তিনি কোন সদুত্তোর দিতে পারেননি। স্কুলের ছাত্র- ছাত্রী ও অভিভাবকদের কয়েক জন জানান , সেশন ফি প্রধান শিক্ষক রেজিষ্ট্রেশনের পূর্বেই নিয়েছেন। বৃহস্পতিবার দুপুরে নাম প্রকাশ না করার শর্তে কয়েকজন শিক্ষার্থী জানান যে সকল শিক্ষার্থী ৬০০ টাকা কথা সাংবাদিকদের সামনে বলেছেন তাদের কে প্রধান শিক্ষক হুমকি দিয়েছেন। এবং অন্যান্য শিক্ষার্থীদের টাকার কথা বলতে নিষেধ করেছেন। যারা বলবে তাদের বড় ধরনের ক্ষতি করবে বলে ও হুমকি দিয়েছেন। এ প্রসঙ্গে আমতলী উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মো. হুমায়ুন কবির বলেন সেশন ফি শিক্ষার্থী ভর্তি হওয়ার সময়ই নেয়ার কথা। বিধিবহিভূর্ত ভাবে শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে কোন বাড়তি টাকা নেওয়া হলে তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে। আমতলী উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. মুশফিকুর রহমান বলেন বিষয়টি তদন্ত পূর্বক ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Facebook Comments