বরগুনায় ভুয়া মুক্তিযোদ্ধার হাতে লাঞ্ছিত হলেন সাবেক ছাত্রলীগ নেতা

আপডেট : February, 25, 2017, 10:02 pm

পাথরঘাটা প্রতিনিধিঃ বরগুনার পাথরঘাটায় সদ্য বাছাইকৃত উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা বাচাই-বাছাই থেকে বাদ পড়া পাথরঘাটা উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের কমান্ডার আবদুল মান্নান হাওলাদারের হাতে লাঞ্ছিত হয়েছে রফিকুল ইসলাম কাকন নামে এক সাবেক ছাত্রলীগ নেতা। আজ শনিবার (২৫ ফেব্র“য়ারী) সকাল সাড়ে ১০টার দিকে পাথরঘাটা পৌর শহরের লিকার পট্টিতে এ ঘটনা ঘটে।

প্রত্যক্ষদর্শী মো. জাহিদ, কবি ইদ্রিস আলী খান, ইউপি সদস্য শিবু, চায়ের দোকানদার টিটুর বর্ণনামতে জানা যায়,সাবেক ছাত্রলীগ নেতা রফিকুল ইসলাম কাকন তার শিশু সন্তানটি নিয়ে লিকার পট্টি প্রবেশ করার সঙ্গে সঙ্গে উপজেলা পর্যায় সদ্য যাচাই-বাছাইতে ভূয়া মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে বাদ পড়া আবদুল মান্নান হাওলাদার তাঁর নাম (কাকন) উল্লেখ করে অশালিন ভাষায় গালাগালি করে এবং কাকনের দুই পা ভেঙ্গে দেয়া উচিত এ রকমের

কথা বলায় কাকনসহ প্রত্যক্ষদর্শী ইউপি সদস্য শিবু, সুলতান, দলিল লিখক জসিম মিয়া প্রতিবাদ করলে কাকনকে দেখিয়ে দেওয়া হুমকি দেয়।এক পর্যায় ‘কমান্ডারসহ ৬৪জন ভূয়া মুক্তিযোদ্ধা’শিরোনামের একটি নিউজের ফটোকপি দেখালে আবদুল মান্নান হাওলাদার কাকনের প্রতি আরও ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠেন।এ সময় ঘটনাস্থলে একজন পাথরঘাটা থানার এসআইও উপস্থিত ছিলেন।

মুক্তিযোদ্ধা অ্যাডভোকেট নুরুল ইসলাম বলেন, আবদুল মান্নান হাওলাদার যে বাদ হয়েছে সেটিকে ওনার ওয়েলকাম জানানো উচিত এবং সকল মুক্তিযোদ্ধাদের সাথে ভালো ব্যবহার করা উচিত।কারো সাথে উনি বাকবিতদন্ডায় জড়াবেনা।রাস্তা দিয়ে হেটে যাওয়ার সময় কাকনের সাথে তিনি যে আচরণ করেছেন সেটি ঠিক করেননি।

রফিকুল ইসলাম কাকন বলেন,একজন ভূয়া মুক্তিযোদ্ধা হয়েও প্রকাশ্যে মানুষকে গালাগালি, সম্মানহানি করার জন্যই কি বীর মুক্তিযোদ্ধারা দেশ স¦াধীন করেছিলেন? আমি বর্তমানে জীবনের নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছি।#

Facebook Comments