বরিশালের নতুন জেলা প্রশাসক হাবিবুর রহমান

আপডেট : July, 24, 2017, 3:41 pm

বরগুনার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তারিক সালমনের বিরুদ্ধে বঙ্গবন্ধুর ছবি বিকৃতের মামলার জেরে বরগুনা ও বরিশালের জেলা প্রশাসকদেরকে প্রত্যাহারের পর এই দুই জেলায় নতুন দুই জনকে দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। বরিশালের জেলা প্রশাসক হিসেবে নিয়োগ পেয়েছেন সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রীর একান্ত সচিব হাবিবুর রহমান আর বরগুনায় দায়িত্ব পেয়েছেন পাবনা জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা  মোকলেসুর রহমান।

সোমবার দুপুরের পর জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় থেকে দুই জেলায় নতুন ডিসি নিয়োগ দেয়া হয়। এর আগে বরিশাল থেকে গাজী মো. সাইফুজ্জামান এবং বরগুনার জেলা প্রশাসক মহা. বশিরুল আলমকে প্রত্যাহার করে নেয়ার কথা জানান মন্ত্রিপরিষদ সচিব শফিউল আলম।

জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব মোজাম্মেল হক সাংবাদিকদের এতথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, ‘দুই জেলা প্রশাসকের দায়িত্বে অবহেলার অভিযোগ পাওয়া গেছে। তারা ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের তথ্য দিতে গাফিলতি করেছেন। এসব কারণে তাদের প্রত্যাহার করা হয়েছে।’

ইউএনও তারিক সালমন বরগুনার আগে কাজ করতেন বরিশালের আগৈলঝাড়ায়। গত ১৭ মার্চ বঙ্গবন্ধুর জন্মদিনে সেখানে এক শিশু চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়। এই প্রতিযোগিতায় দ্বিতীয় হিসেবে

নির্বাচিত অদ্রিজা করের আঁকা বঙ্গবন্ধুর ছবিটি তিনি ২৬ মার্চ উপজেলা প্রশাসনের স্বাধীনতা দিবসের অনুষ্ঠানের আমন্ত্রণপত্রে ব্যবহার করেন।

কিন্তু এই ছবিতে বঙ্গবন্ধুকে বিকৃত করার অভিযোগে তারিক সালমনের বিরুদ্ধে মামলা করেন বরিশাল আওয়ামী লীগের সে সময়ের ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক ও বরিশাল আইনজীবী সমিতির সভাপতি সৈয়দ ওবায়েদ উল্লাহ সাজু।

এর আগে ইউএনও সালমনকে বঙ্গবন্ধুর ‘বিকৃত’ ছবি ব্যবহারের কারণ দর্শানোর নোটিশ জারি করেন বরিশালের জেলা প্রশাসক গাজী মো. সাইফুজ্জামান। আর সাজুর মামলায় গত ১৯ জুলাই সালমন বরিশাল আদালতে হাজিরার দিন তিনি জেলা প্রশাসকের সহযোগিতা চেয়েও পাননি।

এই ঘটনাটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের পাশাপাশি আলোড়ন তুলেছে মাঠ প্রশাসনেও। সালমনের বিরুদ্ধে মামলায় অসন্তোষ প্রকাশ করেছেন খোদ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আর মন্ত্রিপরিষদ সচিব শফিউল আলম বলেছেন, তারা সালমনের কোনো দোষ খুঁজে পাননি।

সালমন অভিযোগ করেছেন, আগৈলঝাড়ায় দায়িত্ব পালনের সময় স্থানীয় আওয়ামী লীগের কয়েকজন নেতার সঙ্গে তার বিরোধ হয়েছিল। এর জেরে তার বিরুদ্ধে মামলা হয়। আর এই মামলার নেপথ্যের লোকদের খুঁজে বের করতে তদন্ত কমিটি করেছে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ।

Facebook Comments