বরিশালে গ্রাহকের দুইকোটি টাকা নিয়ে উধাও ভুয়া সংস্থা

জুলাই ১৩ ২০১৭, ২৩:১০

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ সঞ্চয়ী আমানত প্রকল্পের নামে অধিক মুনাফা, বিভিন্ন মেয়াদী সঞ্চয়পত্র বিক্রি, মাসিক সঞ্চয় জমা ও কোম্পানীর মালিকানা শেয়ার বিক্রির প্রলোভন দেখিয়ে এক উপজেলার অসংখ্য প্রবাসী এবং গ্রামের সহজ সরল কয়েক হাজার নারী-পুরুষের কাছ থেকে প্রায় দুই কোটি টাকা হাতিয়ে পালিয়ে গেছে আল-মদিনা ইসলামী সঞ্চয় ও ঋণদান কো-অপারেটিভ লিমিটেড নামের একটি ভুয়া সংস্থা।
ওই সংস্থার প্রতারনার ফাঁদে পরে কয়েক হাজার নারী-পুরুষ আজ নিঃস্ব হয়ে পরেছেন। তেমনকি ঘর ভাঙ্গার উপক্রম হয়েছে শতাধিক পরিবারে। ভূক্তভোগীরা টাকা ফেরত পেতে প্রশাসনের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন। ঘটনাটি জেলার গৌরনদী উপজেলার নলচিড়া ইউনিয়নের।
জানা গেছে, ২০০৯ সালে গৌরনদীতে আল-মদিনা ইসলামী সঞ্চয় ও ঋণদান কো-অপারেটিভ লিমিটেড নামের একটি সংস্থার আত্মপ্রকাশ ঘটে। উপজেলার নলচিড়া ইউনিয়নের পিঙ্গলাকাঠী বন্দরে একটি ভবন ভাড়া নিয়ে কলাবাড়ীয়া, পিঙ্গলাকাঠী, শংকরপাশা, বাহাদুরপুর, দক্ষিন বাহাদুরপুর, কালনা, দিয়াশুর, লেবুতলী, হোসনাবাদ, সরিকল, কান্ডপাশা, নলচিড়া খানাবাড়ী, কুতুবপুর, মিয়ারচর, চর সরিকল, সাকোকাঠী, শাহজিরাসহ ২০/২৫টি গ্রামের প্রবাসী পরিবার ও সহজ সরল নারী-পুরুষদের অধিক মুনাফার লোভ দেখিয়ে ওই সংগঠনের কর্মকর্তারা বিপুল পরিমান টাকা হাতিয়ে নেয়। অতিসম্প্রতি ওই সংস্থার কর্মকর্তারা হঠাৎ করে পিঙ্গলাকাঠীস্থ অফিস গুটিয়ে আত্মগোপন করে। একারণে দিশেহারা হয়ে পরেছেন গ্রাহকরা।
নলচিড়া এলাকায় সরেজমিনে জানা গেছে, প্রতারকচক্রটি অধিক মুনাফা প্রদানের প্রলোভন দেখিয়ে এলাকার প্রবাসী ও সহজ সরল কয়েক হাজার নারী-পুরুষের কাছ থেকে আল-মদিনা ইসলামী সঞ্চয়ী আমানত প্রকল্পের নামে গত ৮/৯ বছর ধরে বিভিন্ন মেয়াদী সঞ্চয়পত্র বিক্রি ও মাসিক সঞ্চয় জমা রাখাসহ কোম্পানীর মালিকানা শেয়ার বিক্রির নামে একাধিক ব্যক্তির কাছ থেকে কয়েক লাখ টাকাসহ প্রায় দুই কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়েছে।
নলচিড়ার খানাবাড়ী গ্রামের সরোয়ার গাজীর স্ত্রী হাসিনা বেগম জানান, ছয়বছরে দ্বিগুন মুনাফার লোভ দেখিয়ে তার পরিবারের পাঁচজন সদস্যদের কাছ থেকে ওই

চক্রের সদস্যরা ৬৬ হাজার টাকা হাতিয়ে নিয়েছে। একই গ্রামের সুরাত আলী বেপারীর স্ত্রী রাহিমা বেগমের কাছ থেকে ৩৮ হাজার টাকা, ছানু বেপারীর স্ত্রী আলো বেগমের কাছ থেকে ২০ হাজার টাকা, জয়নাল গাজীর কন্যা তমা ও আসমার কাছ থেকে ২৮ হাজার টাকা হাতিয়ে নিয়েছে। প্রতারনার মাধ্যমে আল-মদিনা ইসলামী ডেভেলপমেন্ট কোম্পানীর মালিকানার শেয়ার বিক্রির নাম করে গৌরনদীর পার্শ্ববর্তী কালকিনি উপজেলার ক্রোকিরচর এলাকার আবুল খায়ের সিদ্দিকের কাছ থেকে হাতিয়ে নেয়া হয়েছে ১৫ লাখ টাকা। সূত্রমতে, ওই চক্রের প্রতারনায় এখন স্বামীর সাথে বহু নারীর সংসার ভেঙ্গে যাওয়ার উপক্রম হয়ে দাঁড়িয়েছে।
খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, ওই সংস্থার প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান হচ্ছেন পিরোজপুর জেলার মঠবাড়ীয়া উপজেলার তাফালবাড়ীয়া গ্রামের মৃত আব্দুল হাকিম মুন্সির পুত্র চৌধুরী মুহাম্মদ শহিদুল ইসলাম আজাদী। তার প্রথম স্ত্রী বেগম খাদিজা আজাদী হচ্ছেন ব্যবস্থাপনা পরিচালক, দ্বিতীয় স্ত্রী সৈয়দা ইসরাত জাহান সহ-ব্যবস্থাপান পরিচালক ও তার পুত্র এসএম হামিদুল ইসলাম আজাদী সহকারী পরিচালক। এছাড়া অন্যান্য কর্মকর্তারা হলেন তার নিকট আত্মীয়-স্বজন। তাদের প্রধান কার্যালয় বরিশাল নগরীর রূপাতলীর হাইস্কুল সড়কের মদিনা ভবনে। বর্তমানে সেই অফিসটিও বন্ধ রয়েছে।
নিরূপায় হয়ে আল-মদিনা ইসলামী সঞ্চয় ও ঋণদান কো-অপারেটিভ লিমিটেডের গৌরনদীর পিঙ্গলাকাঠী অফিসের ম্যানেজার মোঃ তোফাজ্জেল হোসেন গ্রাহকদের পক্ষে অতিসম্প্রতি বরিশাল চীফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে চৌধুরী মুহাম্মদ শহিদুল ইসলাম আজাদী তার প্রথম স্ত্রী বেগম খাদিজা আজাদী, দ্বিতীয় স্ত্রী সৈয়দা ইসরাত জাহান, পুত্র এসএম হামিদুল ইসলাম আজাদীকে আসামি করে প্রতারনার অভিযোগে মামলা দায়ের করেছেন। আদালত মামলাটি আমলে নিয়ে আসামিদের বিরুদ্ধে সমন জারী করেছেন।
অভিযোগের ব্যাপারে আল-মদিনা ইসলামী সঞ্চয় ও ঋণদান কো-অপারেটিভ লিমিটেডের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান চৌধুরী মুহাম্মদ শহিদুল ইসলাম আজাদীর ব্যবহৃত মোবাইল ফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও তার সব নাম্বার বন্ধ থাকায় বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

Facebook Comments

<a href=”http://barisallive24.com/wp-content/uploads/2017/05/infra-add.jpg” target=”_blank” rel=”noopener”><img src=”http://barisallive24.com/wp-content/uploads/2017/05/Hoopers1.jpg” width=”331″ height=”270″ /></a>