বরিশালে পুলিশের সেই এসআই এর বিরুদ্ধে মামলা

আপডেট : August, 8, 2017, 4:24 pm

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ পরকীয়া প্রেমিকার সাথে আপত্তিকর অবস্থায় আটকের পর ক্লোজড হওয়া বিমানবন্দর থানার এসআই মাইনুল ইসলাম ও পরকীয়া প্রেমিকা জেবুন্নেছার বিরুদ্ধে আদালতে মামলা দায়ের করেছেন জেবুন্নেছার ব্যবসায়ী স্বামী শামীম তালুকদার।
চীফ মেট্রোপলিটন মেজিষ্ট্রেট আদালতে সোমবার বিকেলে শেষকার্যদিবসে দায়ের করা মামলাটি বিচারক আমলে নিয়ে কোতোয়ালী মডেল থানার সহকারী পুলিশ কমিশনারকে তদন্ত করে প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দিয়েছেন। এজাহারে জানা গেছে, বিমানবন্দর থানায় কর্মরত থাকা অবস্থায় এসআই মাইনুলের সাথে ব্যবসায়ী শামীম তালুকদারের পরিচয়ের সূত্রধরে মাইনুল প্রায়ই শামীমের বাসায় যাতায়াত করতো। একসময়ে এসআই মাইনুল প্রভাব খাটিয়ে শামীমের স্ত্রী জেবুন্নেছার সাথে অবৈধ সর্ম্পক তৈরী করে। তারই ধারাবাহিকতায় গত ১ আগস্ট শামীম তার গ্রামের বাড়ি বাবুগঞ্জের মাধবপাশায় যাওয়ার সুযোগে এসআই মাইনুল রাত নয়টার দিকে নগরীর গোরস্থান রোডের ভাড়া বাসায় আসে। ওইসময় ব্যবসায়ী

শামীমের আট বছরের একমাত্র পুত্র সাদমীকে কৌশলে ঘুমের ওষুধ সেবন করিয়ে জেবুন্নেছার সাথে অনৈতিক সম্পর্কে লিপ্ত হয়। ওইদিন রাতেই জরুরী প্রয়োজনে বাসায় ফিরে এসে ওই ঘটনা প্রত্যক্ষ করে দরজার বাহির থেকে তালাবদ্ধ করে দেয় শামীম। পরে স্থানীয় লোকজন ও পুলিশ কর্মকর্তারা তাদের উদ্ধার করে। এ ঘটনায় এসআই মাইনুলকে ক্লোজড করে পরেরদিন পুলিশ লাইনে সংযুক্ত করা হয়।
এজাহারে আরও উল্লেখ করা হয়, ওই ঘটনার প্রেক্ষিতে শামীম মামলা করতে চাইলে এসআই মাইনুল বিভিন্ন নাম্বার দিয়ে ফোন করে শামীমকে বিভিন্ন ধরনের ভয়ভীতিসহ প্রাণনাশের হুমকি প্রদান করেন। এ ঘটনায় ব্যবসায়ী শামীম তালুকদার জীবনের নিরাপত্তা চেয়ে গত ৫ আগস্ট শহীদ আব্দুর রব সেরনিয়াবাত বরিশাল প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করেন। ওইসময় শামীম তালুকদার তার স্ত্রী জেবুন্নেছা এবং এসআই মাইনুলের পরকীয়ার ছবি সংবাদকর্মীদের মাঝে সরবরাহ করেন।

Facebook Comments