বরিশালে প্রতিবন্ধী কিশোরী ও শিশু ধর্ষণ, গ্রেফতার-১

আপডেট : August, 9, 2017, 5:51 pm

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ বরিশাল জেলার উজিরপুর উপজেলার ওটরা ইউনিয়নের তারাশিয়া গ্রামে প্রতিবন্ধী কিশোরীকে (১৪) বুধবার সকালে ধর্ষণ করেছে রাজমিস্ত্রী ইলিয়াস মল্লিক। অপরদিকে জল্লা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রথম শ্রেনীর এক শিশু ছাত্রীকে (৬) ধর্ষণের ঘটনায় থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। পুলিশ এক ধর্ষককে গ্রেফতার করেছে। অপর ধর্ষককে গ্রেফতারের জন্য অভিযান চলছে।
পুলিশ ও এজাহারে জানা গেছে, ওটরা ইউনিয়নের তারাশিয়া গ্রামের বরেন হালদারের প্রতিবন্ধী কন্যাকে (১৪) বুধবার সকালে একাকি বসত ঘরে মধ্যে পেয়ে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে একইবাড়ির শুকলাল হালদারের ঘরে রাজমিস্ত্রী হিসেবে কাজ করতে আসা ইলিয়াস মল্লিক (৪০)। এসময় ওই প্রতিবন্ধী কিশোরীর কান্নাশুনে বাড়ির লোকজন এগিয়ে এসে হাতেনাতে ধর্ষক ইলিয়াসকে আটক করে থানা পুলিশের কাছে সোর্পদ করে। ধর্ষক ইলিয়াস জল্লা গ্রামের তোরফান মল্লিকের পুত্র। এ ঘটনায় ধর্ষিতা কিশোরীর বাবা বাদি হয়ে থানায় মামলা দায়ের করেছেন।
অপরদিকে জল্লা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রথম শ্রেনীর ছাত্রীকে

(৬) ধর্ষণের ঘটনায় রবিবার বিকেলে একই গ্রামের জগদীশের মজুমদারের পুত্র ধর্ষক অন্তর মজুমদারকে (১৭) আসামি করে থানায় মামলা দায়ের করা হয়। এজাহারে জানা গেছে, গত ৬ আগস্ট বিকেলে জল্লা গ্রামের ওই শিশুকে প্রতিবেশী অন্তর মজুমদার চকলেট খাওয়ানোর প্রলোভন দেখিয়ে বাড়ির পাশের পুকুর পাড়ের একটি পরিত্যক্ত ঘরে নিয়ে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে। এতে ওই শিশুটি গুরুতর অসুস্থ্য হয়ে পরলে তাকে বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। বিষয়টি ধামাচাঁপা দেয়ার জন্য স্থানীয় একটি প্রভাবশালী মহল ধর্ষিতার পরিবারকে বিভিন্ন ধরনের হুমকি দিয়ে আসছিলো। অবশেষে ওই ঘটনায় ধর্ষিতা শিশুর মা মনিকা রানী বাদি হয়ে বুধবার বিকেলে মামলা দায়ের করেছেন।
উজিরপুর মডেল থানার ওসি গোলাম সরোয়ার দুইটি ধর্ষণের ঘটনায় থানায় মামলা দায়েরের সত্যতা স্বীকার করে বলেন, প্রতিবন্ধী কিশোরীকে ধর্ষণের ঘটনায় তাৎক্ষনিক ধর্ষক ইলিয়াস মল্লিককে গ্রেফতার করা হয়েছে। অপর মামলার ধর্ষক অন্তর মজুমদারকে গ্রেফতারের জন্য পুলিশের অভিযান চলছে।

 

Facebook Comments