বরিশালে প্রবাসীকে থানায় অমানুষিক নির্যাতন : এএসআই ক্লোজড

মে ১০ ২০১৭, ২২:১৫

বরিশালের গৌরনদী উপজেলায় দাবিকৃত ৩ লাখ টাকা উৎকোচ না দেয়ায় মাদক মামলায় এক আসামিকে গ্রেফতারের পর অমানুষিক নির্যাতন করা হয়েছে বলে পুলিশের এক এএসআইয়ের বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছে।

বুধবার সকালে এ ঘটনায় অভিযুক্ত গৌরনদী পুলিশের সহকারী উপ-পরিদর্শক (এএসআই) মহিউদ্দিনকে জেলা পুলিশ লাইনে ক্লোজড করা হয়েছে।

মঙ্গলবার গৌরনদীর খাঞ্জাপুর ইউনিয়নের ইল্লা গ্রামের মোসলেম সরদারের ছেলে দেড়মাস আগে কাতার ফেরত মনির সরদারকে ধরে নিয়ে থানায় অমানুষিক নির্যাতন করে তার হাত ভেঙে দেয়া হয় বলে অভিযোগ করেছেন স্বজনরা।

অবস্থা বেগতিক দেখে তাকে গোপনে চিকিৎসা করিয়ে বুধবার দুপুরে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে প্রেরণ করা হয় বলে অভিযোগ করেন মনিরের দুই বোন শিল্পী বেগম ও ইয়াসমিন বেগম।

মনিরের বাবা মোসলেম সরদার জানান, চাকরির খোঁজে তার ছেলে মনির ২০১৪ সালের ৯ মে কাতার চলে যান। স্থানীয় প্রতিপক্ষের ষড়যন্ত্রে ওই বছরের ২০ মে থানা পুলিশ উদ্দেশ্যমূলকভাবে তার ছেলে মনিরকে একটি মাদক মামলায় আসামি করে।

দেড়মাস আগে দেশে ফিরে আসেন মনির। খবর পেয়ে গৌরনদী থানা পুলিশের এএসআই মহিউদ্দিন পুরোনো মাদক মামলা থেকে রেহাই দিতে তার ভাই মনিরের কাছে ৩ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করে।

মনির টাকা দিতে অস্বীকৃতি জানায়। এতে ক্ষুব্ধ হয়ে

কথিত ওয়ারেন্টের দোহাই দিয়ে গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে মনিরকে কালকিনির খাসেরহাট থেকে গ্রেফতার করে এএসআই মহিউদ্দিন।

মনিরের বোন ইয়াসমিন বেগম অভিযোগ করেন, গ্রেফতারের পর থানায় নিয়ে ফের তার কাছে ৩ লাখ টাকা উৎকোচ দাবি করেন এএসআই মহিউদ্দিন। টাকা না দিলে ৫০০ পিস ইয়াবা দিয়ে আরেকটি নতুন মামলায় তাকে আদালতে চালান দেয়ার হুমকি দিয়ে থানায় নির্যাতন করে হাত ভেঙে দেয়।

এরপর মঙ্গলবার রাত ১০টার দিকে তাকে গৌরনদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। সেখান থেকে ওই রাতে তাকে জেলা পুলিশ হাসপাতালে গোপনে চিকিৎসা করিয়ে আজ আদালতে সোপর্দ করা হয় বলে অভিযোগ করেন মনিরের পরিবারের সদস্যরা।

নির্যাতনের অভিযোগ অস্বীকার করে গৌরনদী থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ফিরোজ কবির বলেন, মনিরের পুরো পরিবারটি মাদক পরিবার হিসেবে পরিচিত। মনিরের আরেক ভাই রাসেলের বিরুদ্ধে ডাকাতি ও মাদকের ১৪টি মামলায় ওয়ারেন্ট রয়েছে। মনিরকে গ্রেফতারের সময় পুলিশের সঙ্গে দুর্ব্যবহার করে এবং ধস্তাধস্তিতে লিপ্ত হয়।

এ সময় পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করলে মনির পড়ে গিয়ে তার হাতে ব্যথা পায়। তারপরও মনিরের স্বজনদের অভিযোগের প্রেক্ষিতে এএসআই মহিউদ্দিনকে জেলা পুলিশ লাইনে ক্লোজড করা হয়েছে। প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে মনিরকে আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে।

সংবাদটি সংগৃহীত

Facebook Comments

<a href=”http://barisallive24.com/wp-content/uploads/2017/05/infra-add.jpg” target=”_blank” rel=”noopener”><img src=”http://barisallive24.com/wp-content/uploads/2017/05/Hoopers1.jpg” width=”331″ height=”270″ /></a>