বরিশালে বিভাগীয় মুক্তিযোদ্ধা সমাবেশে জঙ্গিবাদ প্রতিরোধের প্রত্যয়

মে ০৮ ২০১৭, ১৭:১১

মৌলবাদ, জঙ্গিবাদ ও সাম্প্রদায়িকতা প্রতিরোধের প্রত্যয়ে বরিশালে মুক্তিযোদ্ধা সংসদের উদ্যোগে বিভাগীয় মুক্তিযোদ্ধা সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। আজ সকালে নগরীর সদর রোডের অশ্বিনী কুমার হলের সামনে জাতীয় ও সংগঠনের পতাকা উত্তোলনের মাধ্যমে সমাবেশের উদ্বোধন করা হয়। এর আগে একটি বর্ণাঢ্য র‌্যালী নগরীর প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিন করে।

সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কেন্দ্রিয় কমান্ড কাউন্সিলের চেয়ারম্যান মেজর জেনারেল (অব.) হেলাল মোর্শেদ খান বীর বিক্রম বলেন, জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে মুক্তিযোদ্ধা সন্তানদের কাজে লাগাতে হবে। জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে নিজ নিজ সন্তানদের উদ্বুদ্ধ করতে হবে। মুক্তিযোদ্ধা এবং তাঁদের সন্তানরা একযোগে কাজ করলে বাংলাদেশ থেকে জঙ্গিবাদ-সন্ত্রাসবাদ নির্মূল হবে।

তিনি আরো বলেন, বর্তমানে মুক্তিযোদ্ধাদের কমপক্ষে ১০ লাখ সন্তান আছে। সন্তানদের সন্তান ধরলে ৪০ লাখ মুক্তিযুদ্ধের প্রজন্ম আছে। তারাই হবে বাংলাদেশর মুক্তিযুদ্ধের চেতনার ধারক। এরাই জঙ্গিবাদ, মৌলবাদ এবং সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে সোচ্চার হতে পারবে। তাই এই প্রজন্মকে জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে উজ্জীবিত করতে হবে। জঙ্গিবাদের উত্থান সনাক্ত করতে মুক্তিযোদ্ধাদের সন্তানরা মুক্তিযোদ্ধাদের সঙ্গে কাজ করবে।

তাহলে জঙ্গিবাদ, মৌলবাদ মাথা চাড়া দিতে পারবে না।

সংগঠনের জেলা কমান্ডের সভাপতি শেখ কুতুবউদ্দিন আহমেদের সভাপতিত্বে সমাবেশে বিশেষ অতিথি ছিলেন, কাউন্সিলের মহাসচিব এমদাদ হোসেন মতিন ও সাংগঠনিক সম্পাদক এবিএম সুলতান আহমেদ।

সমাবেশে স্বরূপকাঠী উপজেলা কমান্ডার জাহিদ হোসেন বলেন, ৭১ সালে স্বরূপকাঠীর ছারছিনায় রাজাকার বাহিনীর ক্যাম্প ছিল। সেখানে রাজাকারদের প্রশিক্ষণ হতো। মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী এবং আওয়ামী লীগ নেতারা সেখানে গিয়ে বলেন, ছারছিনায় মুক্তিযুদ্ধ বিরোধী কর্মকাণ্ড হয়নি। তাদের ওই ধরণের বক্তব্যের পর মুক্তিযোদ্ধাদের ভয় দেখানো হচ্ছে। মন্ত্রী এ ধরণের কথা বললে তো মুক্তিযোদ্ধারা রাজাকার হয়ে যায়। এ ব্যাপারে পদক্ষেপ নেওয়ার আহ্বান জানান তিনি।

সমাবেশে অন্যান্য বক্তারা বলেন, যে চেতনায় মুক্তিযোদ্ধারা দেশ স্বাধীন করেছিল। এখন সেই চেতনায় বিশ্বাসীরাই সরকারে রয়েছে। কিন্তু একটি চক্র সর্বদা ষড়যন্ত্র চালিয়ে যাচ্ছে। যে কোন মূল্যে এদের বিনাশ করতে হবে। তাদের ষড়যন্ত্র কখনোই সফল হতে দেয়া যাবেনা। সোনার বাংলা গড়া এবং মৌলবাদের বিরুদ্ধে কাজ করে যাচ্ছে মুক্তিযোদ্ধারা। দেশের সকলকে এই কাতারে সামিল হওয়ার আহবান জানান বক্তারা।

Facebook Comments

<a href=”http://barisallive24.com/wp-content/uploads/2017/05/infra-add.jpg” target=”_blank” rel=”noopener”><img src=”http://barisallive24.com/wp-content/uploads/2017/05/Hoopers1.jpg” width=”331″ height=”270″ /></a>