বরিশালে ভ্যান চালকের মাথা ফাটালো পুলিশ কর্মকর্তা

মার্চ ০৯ ২০১৭, ২২:৫৮

স্টাফ রিপোর্টার ॥
ভাড়া চাওয়াকে কেন্দ্র করে এক ভ্যান চালককে বেধম মারধর করে আহত করেছে এক পুলিশ সদস্য। আহতের নাম ফারুক (৪০)। সে নগরীর বাংলা বাজার এলাকার জাকির স্টিল নামক দোকানের কর্মচারী। ঘটনাটি ঘটেছে বরিশাল নগরীর রিফিউজি কলনী এলাকায়। স্থানীয় বাসিন্দারা জানান, বৃহস্পতিবার রাত ৯টার দিকে নগরীর বাংলা বাজার এলাকার জাকির স্টিল হ্উাজ থেকে বরিশাল জেলা পুলিশের আগৈলঝড়া থানার এস আই শাহ আলম একটি ফাইল কেবিনেট ক্রয় করে রিফিউজি কলনীর রহিমা ম্যানশনে (ভাড়া বাসা) নিয়ে আসে। দোকানে বসে ভাড়া ২শ টাকা নির্ধারন করা হলেও বাড়ীর সামনে এসে ৬০ টাকা ভাড়া প্রদান করে। এনিয়ে ভ্যান চালক ফারুকের সাথে পুলিশ সদস্য শাহ আলমের কথা কাটাকাটি হয়। ঘটনার এক পর্যায়ে শাহ আলম ভ্যান চালক ফারুককে মারধর শুরু করে। দেয়ালের সাথে আঘাত করায় ফারুরে মাথা ফেটে যায়। ফারুকের ডাক চিৎকারে স্থানীয়রা ছুটে আসলে শাহ আলম বাড়ীর ভেতরে দরজা বন্ধ করে নিজেকে গা ঢাকা দেয়। ঘটনার খবর পেয়ে বরিশাল কোতয়ালী মডেল থানা পুলিশ ফারুককে

উদ্ধার করে বরিশাল শের ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যায়। তবে সেখানে ফারুককে চিকিৎসা প্রদান করা হয়নি বলে জানিয়েছে শেবাচিম সুত্র। এবিষয়ে বাংলা বাজার জাকির স্টিলের ম্যানেজার আমীন জানায় আমাদের দোকান থেকে একটি ফাইল কেবিনেট ক্রয় করে পুলিশ সদস্য শাহ আলম। সে ৪ তলায় উঠাবে এবং তার লোক আছে বলে টাকা ২০০ টাকায় ভ্যান ভাড়া করে। এর পর এখানে আসার পর আমাদের স্টাফকে মারধর করে ফেলে রাখা হয়েছে শুনে আমরা চলে আসি। এঘটনায় স্থানীয় বাসিন্দারা শাহ আলমের বাড়ীর সামনে বিক্ষোভ করে। উত্তেজিত জনতা শাহ আলমের বিভিন্ন অপকর্ম তুলে ধরে তার শাস্তি দাবী করে। পরে কোতয়ালী পুলিশের এস আই কুদ্দুস ঘটনা স্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনেন। তবে এ ঘটনায় কোতয়ালী পুলিশও জেলা পুলিশ সদস্য শাহ আলমের সাথে দেখা করতে পারেনি। তার বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থা নেয়া হবে কি না সে সম্পর্কে সু স্পষ্ট কোন বক্তব্য পাওয়া যায়নি। এদিকে ঘটনাস্থলে অভিযুক্ত পুলিশ সদস্যের ভাই সিটিএসবির কালামকে পাওয়া গেলেও তার কোন বক্তব্য ছিলোনা।

Facebook Comments