বরিশালে মাদকের বিরুদ্ধে সফলতা অর্জনকারী ওসি’র বদলী নিয়ে তোলপাড়

আগস্ট ০৩ ২০১৭, ২১:২৭

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ মাত্র চার মাসের ব্যবধানে মাদকের স্বর্গরাজ্য বলে খ্যাত এলাকায় মাদকের বিরুদ্ধে চ্যালেঞ্জ ছুড়ে প্রায় ৮০ ভাগ সফলতা অর্জন ও আইন শৃঙ্খলা রক্ষায় অসামান্য অবদান রাখায় মাদার তেরেসা স্বর্ণপদক পাওয়ার তিনদিন পরেই রহস্যজনকভাবে ওসিকে বদলী করা হয়েছে। এনিয়ে গত চারদিন ধরে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক জুড়ে ব্যাপক তোলপাড় শুরু হয়েছে। ঘটনাটি বরিশাল জেলার গৌরনদী মডেল থানার।
সূত্রমতে, মাদক ব্যবসায়ীদের সাথে গভীর সখ্যতা থাকার অভিযোগে গৌরনদী মডেল থানার সাবেক ওসিকে ক্লোজড করে বরিশাল পুলিশ লাইন্সে সংযুক্ত করা হয়। তারস্থলে মাদক নিমূর্লের দীপ্ত শপথে ঢাকা রেঞ্জ থেকে বদলী হয়ে গত ১ এপ্রিল গৌরনদী মডেল থানায় যোগদান করেন ওসি ফিরোজ কবির। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে মাদক নিমূর্লে নিরলস প্রচেষ্টার মাধ্যমে মাত্র চার মাসের সাঁড়াশি অভিযানে তিনি (ওসি) প্রায় চার শতাধিক মাদক বিক্রেতা ও সেবনকারীদের গ্রেফতার করে আইনের আওতায় এনে ৮০ ভাগ সফলতা অর্জন করে বাংলাদেশের মধ্যে বিরল দৃষ্টান্ত স্থাপন করেন। ফলশ্রুতিতে গৌরনদী মডেল থানার ওসি ফিরোজ কবিরকে সময়ের সাহসী সন্তান, মাদক ও আইন শৃঙ্খলা রক্ষায় একজন নির্ভিক যোদ্ধা হিসেবে ভূষিত করে গত ২৮ জুলাই মাদার তেরেসা স্বর্ণপদক হাতে তুলে দিয়েছেন সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগের বিচারপতি মোঃ সিদ্দিকুর রহমান মিয়া।
সূত্রে আরও জানা গেছে, মাদক বিক্রেতা, সেবনকারী ও জুয়ারীদের বিরুদ্ধে ওসি ফিরোজ কবিরের কঠোর অবস্থানের কারণেই চুরি, ডাকাতিসহ অন্যান্য অপরাধ থেকে মুক্তি পেয়ে গৌরনদীবাসী যখন শান্তির নিঃশ্বাস নিতে শুরু করতে থাকেন, ঠিক সেই সময়ই ওসি ফিরোজ কবিরকে গৌরনদী থানা থেকে প্রত্যাহার করে জেলা

পুলিশ সুপারের অফিসে সংযুক্ত করা হয়। জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোল্লা মোঃ আজাদ হোসেন বলেন, পুলিশ সদর দপ্তরের নির্দেশে প্রশাসনিক কারণে গত ৩১ জুলাই ওসি ফিরোজ কবিরকে গৌরনদী মডেল থানা থেকে জেলা পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে সংযুক্ত করা হয়েছে।
যদিও প্রশাসনিক কারণে ওসি ফিরোজ কবিরকে প্রত্যাহার করা হয়েছে তার পরেও বিষয়টি কোনভাবেই মেনে নিতে পারছেন না গৌরনদীর সুশীল সমাজের লোকজন। এনিয়ে গত চারদিন ধরে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে চলছে প্রতিবাদের ঝড়। “গৌরনদী উপজেলা আবারো মাদকের আগ্রাসনে গ্রাস হচ্ছে। সন্ত্রাসের উপদ্রব্য বেড়ে যাবে। যুব সমাজ ধ্বংস হচ্ছে। মাদকের জয় হলো। আর হলোনা মাদক নির্মূল। গত চার মাস বাবা ও মা তাদের সন্তানের নিয়ে শান্তিতেই ছিলো-এখন শান্তির মায় মারা গেছে। আর কোনদিন কি গৌরনদী মডেল থানায় ফিরে আসবে ওসি ফিরোজ কবিরের মতো একজন সৎ নিষ্ঠাবান জনবন্ধু নির্লোভ পুলিশ অফিসার।” এমনিভাবেই মন্তব্য করছেন সচেতন গৌরনদীবাসী।
খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, ওসি ফিরোজ কবিরকে গৌরনদী মডেল থানা থেকে প্রত্যাহারের বিষয়টি নিয়ে সর্বত্র তোলপাড় শুরু হওয়ার পর পরই জামিনে মুক্তি পেয়ে গ্রেফতার আতঙ্কে গত চার মাস ধরে আত্মগোপনে থাকা গৌরনদীসহ পাশ্ববর্তী উপজেলার মাদক বিক্রেতারা নিজ নিজ এলাকায় ফিরে পূর্ণরায় নির্বিঘেœ মাদক বিক্রি শুরু করেছে। ফলে সচেতন গৌরনদীবাসী তাদের সন্তানদের নিয়ে ফের মহাদুশ্চিন্তার মধ্যে রয়েছেন। সূত্রে আরও জানা গেছে, ওসি ফিরোজ কবির থানায় যোগদান করে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে মাদকের বিরুদ্ধে কঠোর অবস্থানের পর থেকেই গাত্রদাহ শুরু হয়ে যায় মাদক বিক্রেতা-সেবনকারী থেকে শুরু করে তাদের নেপথ্যে থাকা অপশক্তির।

 

Facebook Comments

<a href=”http://barisallive24.com/wp-content/uploads/2017/05/infra-add.jpg” target=”_blank” rel=”noopener”><img src=”http://barisallive24.com/wp-content/uploads/2017/05/Hoopers1.jpg” width=”331″ height=”270″ /></a>