বরিশালে সাবেক স্বামীর বিরুদ্ধে স্ত্রীর মামলা

আপডেট : August, 6, 2017, 9:52 pm

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ সাবেক (তালাকপ্রাপ্ত) স্ত্রীর দায়ের করা যৌতুক মামলার পর এবার ভাড়াটিয়া সন্ত্রাসী দিয়ে স্বামীকে শারিরিকভাবে লাঞ্ছিত করে হত্যার হুমকি দেয়া হয়েছে। সন্ত্রাসীদের অব্যাহত হুমকির মুখে চরম নিরাপত্তাহীনতার মধ্যে রয়েছেন মাহমুদুল হাসান নামের ওই স্বামী ও তার পরিবারের সদস্যরা। রবিবার দুপুরে বরিশাল নগরীর একটি হোটেলে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে এ অভিযোগ করা হয়েছে।
সংবাদ সম্মেলনে জেলার বাবুগঞ্জ উপজেলার কেদারপুর গ্রামের গোলাম মোর্শেদ লিখিত বক্তব্যে বলেন, তার একমাত্র পুত্র ব্যাংক কর্মকর্তা মাহমুদুল হাসান প্রেমের সম্পর্কে ২০০৫ সালে নোটারী পাবলিকের মাধ্যমে পাশ্ববর্তী ছানিকেদারপুর গ্রামের আব্দুল হক হাওলাদারের কন্যা সোনিয়া খানমকে বিয়ে করেন। বিয়ের পর মাহমুদুলের বাবা ওই বিয়ে মেনে নিয়ে পুত্রবধূকে ঘরে তুলে নেন। কয়েক বছর পর স্ত্রীর প্ররোচনায় মাহমুদুল তার শ্বশুরকে ব্যবসার জন্য নিজ নামে ব্যাংক লোন করে তিন লাখ টাকা ধার দেয়। পরবর্তীতে ওই টাকা পরিশোধ না করায় তাদের (মাহমুদুল ও সোনিয়া) দাম্পত্য কলহ শুরু হয়। এনিয়ে একাধিকবার গ্রাম্য সালিশ বৈঠকেও বিষয়টি সমাধান হয়নি। পরবর্তীতে সোনিয়া তার বাবার পরিবারের প্ররোচনায় স্বামীকে না জানিয়ে গর্ভের সন্তান নস্ট করায় দাম্পত্য কলহ আরও বেড়ে যায়। একপর্যায়ে স্বামীর বাসায় ভাংচুরসহ স্বামী ও শাশুড়িকে মারধর করে আহত করে নগদ অর্থ, স্বর্ণালংকার, মূল্যবান মালামাল নিয়ে সোনিয়া তার বাবার বাড়িতে চলে যায়। এসব ঘটনায় থানায় একাধিকবার

সাধারণ ডায়েরীও করেন ব্যাংক কর্মকর্তা মাহমুদুল হাসান।
সংবাদ সম্মেলনে আরও উল্লেখ করা হয়, সোনিয়াকে স্বামীর বাড়িতে ফিরিয়ে আনতে দীর্ঘদিন থেকে চেষ্টা করেও ব্যর্থ হয় মাহমুদুল ও তার পরিবারের সদস্যরা। সোনিয়া তার (মাহমুদুল) সাথে আর সংসার করবেনা বলেও জানিয়ে দেয়। উপায়অন্তর না পেয়ে গ্রাম্যমোড়লদের পরামর্শে অবশেষে চলতি বছরের ৬ জুন মাহমুদুল হাসান তার স্ত্রী সোনিয়াকে রেজিষ্ট্রিকৃত তালাক প্রদান করেন।
সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত সংবাদকর্মীদের মোবাইল ফোনে মাহমুদুল হাসান জানান, তালাকের কপি হাতে পেয়ে সোনিয়া মোবাইল ফোনে তার কাছে নগদ পাঁচ লাখ টাকা দাবি করে। এতে তিনি অস্বীকৃতি জানালে গত ১৩ জুন বরিশাল সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে একটি মিথ্যে যৌতুক মামলা দায়ের করে সোনিয়া। যা বর্তমানে পিবিআই তদন্ত করছেন। তিনি (মাহমুদুল) আরও জানান, মামলা দায়েরের পর অতিসম্প্রতি সোনিয়া তার ভাড়াটিয়া সন্ত্রাসীদের নিয়ে দাবিকৃত পাঁচ লাখ টাকার জন্য ঢাকার বাসায় হানা দিয়ে তাকে শারিরিকভাবে লাঞ্ছিত করে হত্যার হুমকি দেয়। তাদের হুমকির মুখে তিনি এখন চরম নিরাপত্তাহীনতার মধ্যে রয়েছেন বলেও উল্লেখ করেন। সাবেক স্ত্রী ও তার ভাড়াটিয়া সন্ত্রাসীদের হাত থেকে রেহাই পেতে ব্যাংক কর্মকর্তা মাহমুদুল হাসান প্রশাসনের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের হস্তক্ষেপ কামনা করছেন।
অভিযোগের ব্যাপারে সোনিয়া খানমের সাথে একাধিকবার যোগাযোগের চেষ্ঠা করেও তার ব্যবহৃত মোবাইল ফোন বন্ধ থাকায় তার কোন বক্তব্য নেয়া সম্ভব হয়নি।

Facebook Comments