বরিশালে স্বামীকে জঙ্গি বানালেন স্ত্রী!

আপডেট : May, 8, 2017, 10:37 pm

বরিশালের বানারীপাড়ার ব্রাহ্মনকাঠী গ্রামের বাসিন্দা ও বন বিভাগের সাবেক কর্মচারী শাহজাহান খানকে তার প্রথম স্ত্রী ফেরদৌসী জাহান আটক রেখেছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। বানারীপাড়া কুসুম কুমারী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা ফেরদৌসী সম্প্রতি শাহজাহানকে জঙ্গি বানিয়ে বিভিন্ন পত্রিকায় খবর পর্যন্ত প্রকাশ করে তাকে বিব্রতকর অবস্থায় ফেলে। শাহজাহান যাতে তার দ্বিতীয় স্ত্রীর সাথে কোন সম্পর্ক রাখতে না পারে সে জন্য ফেরদৌসি নতুন ষড়যন্ত্রের জাল বুনছে বলে দাবি দ্বিতীয় স্ত্রী নার্গিস সুলতানার। নার্গিস বাবুগঞ্জের মাধবপাশার চন্দ্রদ্বীপ হাইস্কুল ও কলেজের সহকারী শিক্ষিকা এবং নগরীর লুৎফর রহমান সড়কের বাসিন্দা। শিক্ষিকা নার্গিস সুলতানা জানিয়েছেন, তার স্বামীর মৃত্যুর পর মুসলিম আইন সম্মতভাবে শাহজাহান খানের সাথে তিনি বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন। শাহজাহান বিয়ের পূর্বে তাকে অবহিত করেছেন প্রথম স্ত্রীর মানসিক যন্ত্রণায় তিনি অতিষ্ঠ। এ কারণে তিনি দ্বিতীয়

বিয়ে করতে চান। বিয়ের পর থেকে তার সাথেই বসবাস করে আসছিলেন শাহজাহান। তাদের দাম্পত্য জীবন ভাল কাটছিল। আকস্মিকভাবে শাহজাহানের প্রথম স্ত্রী ফেরদৌসি বিভিন্ন পত্রিকায় প্রকাশ করে শাহজাহান জঙ্গি দলে যোগ দিয়েছে। এর প্রেক্ষিতে শাহজাহানকে র‌্যাব ধরে নিয়ে গিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করে জঙ্গির কোন সম্পৃক্ততা না পেয়ে গত মাসের ৪ এপ্রিল তাকে বানারীপাড়া থানায় দিয়ে আসে। থানা থেকে ফেরদৌসি শাহজাহানকে তার বাড়িতে নিয়ে যান। বাড়িতে নেয়ার পর থেকে তাকে আটকে রাখা হয়। যাতে দ্বিতীয় স্ত্রীর সাথে শাহজাহান কোন যোগাযোগ রাখতে না পারে। এ জন্য শাহজাহানের ব্যবহৃত মোবাইলটিও ভেঙ্গে ফেলেন ফেরদৌসি। এতেও ক্ষ্যান্ত হয়নি ফেরদৌসি। সে নার্গিসের বিরুদ্ধে বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমে অশ্লীল প্রচার চালাচ্ছে। নার্গিস সুলতানার সন্দেহ ফেরদৌসি নতুন ষড়যন্ত্রে ফেলে শাহজাহানের বড় ক্ষতি করতে পারে। সেই সাথে তারও ক্ষতির আশংকা করছেন তিনি।

Facebook Comments