বরিশালে হাসপাতালে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে রশিদ ও সোহাগ

আপডেট : July, 14, 2017, 11:48 pm

মুলাদী প্রতিনিধি: মেহেন্দীগঞ্জের আন্দারমানিক ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে নৌকার সমর্থন করায় নৌকার বিদ্রোহী প্রার্থীর ক্যাডার বাহিনী দুই জনকে কুপিয়ে-পিটিয়ে গুরুতর জখম করে। হামলা আহতরা হচ্ছে সোহাগ হাওলাদার ও রশিদ বেপারী। এদিকে নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান শহিদুল ইসলাম নৌকার কর্মীদের হাত-পায়ের রগ কেটে দেয়ার নির্দেশ দিয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। মুলাদী হাসপাতালে চিকিৎসাধীন সোহাগ ও রশিদ জানান, ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে তারা দল থেকে মনোনয়ন দেয়া নৌকা প্রার্থীর পক্ষে প্রচার-প্রচারনা চালান। নির্বাচনে নৌকার বিদ্রোহী প্রার্থী ও এমপি পংকজ নাথের অনুসারী শহিদুল ইসলাম কাজী আনারস প্রতীক নিয়ে নির্বাচিত হন। এরপর থেকে যেখানে

নৌকার সমর্থনের কর্মী-সমর্থক পাচ্ছে সেখানে তাদের উপর হামলা চালানো হচ্ছে। শুক্রবার উপজেলার চোঙ্গাঘাটা নামক স্থানে বর্তমান চেয়ারম্যান এ.এম.মাহফুল আলম লিটন ও নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান শহিদুল ইসলাম কাজী ক্যাডার বাহিনী লিটন সরদার, লিংকন সরদার, হালিম সরদার, এমরান, সজল, শাওনসহ ১৫/২০ জন তাদের উপর হামলা চালায়। তাদেরকে কুপিয়ে-পিটিয়ে জখম করা হয়। এরপর হাত-পায়ের রগ কর্তনের চেষ্টা চালায়। তাদের ডাক-চিৎকারে এলাকাবাসী এসে পড়লে হামলাকারীরা পালিয়ে যায়। স্থানীয়রা তাদের উদ্ধার করে মুলাদী হাসপাতালে ভর্তি করে। হামলা চলাকালে শহিদুল কাজীর ক্যাডার বাহিনী বলে চেয়ারম্যান নৌকার সমর্থনকারীদের হাত-পায়ের রগ কেটে দেয়ার নির্দেশ দিয়েছে।

Facebook Comments