বরিশাল পুলিশের ফাদে দিনাজপুর-ফরিদপুরের ৪ প্রতারক

আপডেট : June, 6, 2017, 4:08 pm

বরিশালঃ ফেইসবুক আইডি হ্যাক ও বিকাশে প্রতারণার দায়ে দিনাজপুর এবং ফরিদপুর অভিযান চালিয়ে ৪ প্রতারককে আটক করেছে বরিশাল জেলা পুলিশ। মামলা ও গোপন তথ্যের ভিত্তিতে সোমবার পৃথক অভিযান চালানো হয়। এ নিয়ে আজ মঙ্গলবার দুপুর দের টায় বরিশাল পুলিশ লাইনস্ সংলগ্ম ইন সার্ভিস টেনিং সেন্টারের কনফারেন্স রুমে এক সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। সংবাদ সম্মেলনে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোল্লা আজাদ হোসেন বলেন- একটি প্রতারক চক্র তথ্য প্রযুক্তি ব্যবহার করে চলতি বছরের ১০ মে বরিশাল জেলার বানারীপাড়া থানার সাবেক অফিসার ইনচার্জ জিয়াউল আহসানের ফেইসবুক আইডি হ্যাক করে তার ফেসবুক ফেন্ডদের নিকট টাকা চেয়ে বিকাশের মাধ্যমে ৫০ হাজার টাকা হাতিয়ে নেয়।  এর পরিপ্রেক্ষিতে জেলা ডিবির একটি টিম প্রতারক চক্রকে সনাক্তও করে।  পরে সোমবার অভিযান চালালে দিনাজপুরের ক্ষেত্রীপারা এলাকার কাঞ্চন কুমার সাহার ছেলে কিশোর কুমার সাহা, একই থানার গুঞ্জাবাড়ী এলাকার কিশোর কুমার সিং এর ছেলে বাপ্পী কুমার সিং ওরফে ডন নামে দুই প্রতারককে গ্রেপ্তার করা হয়। পাশাপাশি ফেসবুক আইডি হ্যাক করার কাজে ব্যবহৃত তিনটি মোবাইল সেট, বিকাশের টাকা লেনদেন করার কাজে ব্যবহৃত দুইটি সিম কার্ড এবং যে সকল আইডি হ্যাক করা হয়েছে তার পরিবর্তিত পাসওয়ার্ড লেখা কাগজপত্র জব্দ করা হয়।  এদিকে গত বছরের ২৫ মার্চ বাকেরগঞ্জ উপজেলার আমিরাবাদ গ্রামের জনৈক কলি আক্তারের মোবাইল নম্বারে বিশেষ সফটওয়্যার ব্যাবহার এর

মাধ্যমে ফোন করে প্রতারকরা তার প্রবাসী স্বামীকে খুন করার হুমকী দিয়ে নিজেদেরকে যোগযোগ মন্ত্রী ও র‌্যাবের ডিজি পরিচয় দিয়ে ৮০ হাজার টাকা হাতিয়ে নেয়। পরে এ বিষয়ে ভুক্তভোগী কলি আক্তার বাদী হয়ে মামলা দায়ের করলে ওই বছরই পুলিশ ফরিদপুর এলাকা থেকে ৩ জনকে আটক করে। কিন্তু পলাতক থাকে ওই মামলার দুই মুল আসামী। অতঃপর সোমবার অপর একটি অভিযান চালিয়ে ওই মামলার আসামী ফরিদপুরের ভাঙ্গার ব্রাক্ষ্মনপাড়া এলাকার গৌরাঙ্গ মন্ডলের ছেলে অখিল মন্ডল ও বিনোদ মন্ডলের ছেলে সুবল মন্ডলকে আটক করা হয়। সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার মো. শাহাবুদ্দিন কবীর বলেন, প্রতারিত হয়ে প্রতারকদের টাকা দেয়ার কলি আক্তার’র উপর ক্ষুব্ধ হয়ে তার স্বামী তাকে মোবাইলের মাধ্যমে তিন তালাক দেয়। এর পাশাপাশি তার কাছে স্বামী টাকা দাবী করলে তিনি তার নিজের কডিনি বিক্রির বিনিময়ে স্বামীর টাকা পরিশদের চেস্টা করে। এমননি সময় বরিশাল শের-ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বারান্দায় তার সাথে পরিচয় হয় জেলা পুলিশের এক ডিবি সদস্যের সাথে। এরপরই সে আইনের আশ্রয় নেন। তিনি আরো বলেন, ‘পেঙ্গুইন’ নামের ওই সফটওয়্যার দিয়ে এর আগেও প্রতারক চক্র এসব কর্মকান্ড করেছে। এ সফটওয়্যারের বিষয়ে আমরা উদ্ধর্¦তন কর্মকর্তাদের জানাবো। পৃথক এ দুটি অভিযান পরিচালনা করেন সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার মো. শাহাবুদ্দিন কবীর’র নেতৃত্যে ডিবির এস আই তুষার কুমার মন্ডল।

Facebook Comments