বরিশাল শেবাচিমে দ্বিতীয় দিনে ইন্টার্নিদের কর্মবিরতিতে রোগীর ভোগান্তি

মার্চ ০৫ ২০১৭, ১৯:১১

স্টাফ রিপোর্টার ॥
বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ইন্টার্ন চিকিৎসকদের ডাকে সারা দিয়ে দ্বিতীয় দিনের ন্যায় বরিশাল শের-ই-বাংলা চিকিৎসা মহাবিদ্যালয় (শেবাচিম) হাসপাতালেও কর্ম বিরতি পালন করছেন এখানকার ইন্টানী চিকিৎসকরা। আজ রোববার সকাল থেকেই কোন ইন্টার্নি চিকিৎসক তাদের কর্মস্থলে কাজে যোগদান করেননি। এছাড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ছয় মাসের জন্য স্থগিত করা চার ইন্টার্নি চিকিৎসক এর বিরুদ্ধে দেয়া স্থগিতাদেশ প্রত্যাহারের দাবীতে প্রতিবাদ সভা করেছেন বরিশারের ইন্টার্নি চিকিৎসকরা। দ্বিতীয় দিনের কর্মবিরতি অব্যাহত থাকার বিষয়টি নিশ্চিত করে শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বঙ্গবন্ধু ইন্টার্নি ডক্টর্স এ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি ডা. অনুপ কুমার সরকার বলেন, কেন্দ্র ঘোষিত কর্মসূচির অংশ হিসেবে তারাও বরিশালে কর্মবিরতি পালন করছেন। চার ইন্টার্নি চিকিৎসকের ইন্টার্নি শিপ ছয় মাসের জন্য স্থগিতের যে আদেশ দেয়া হয়েছে তা প্রত্যাহারের জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের পাশাপাশি সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন তারা। কিন্তু গত দু’দিনেও তা মেনে নেয়া হয়নি। যে কারনে দেশের অন্যান মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল গুলোর সাথে বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালেও কর্মবিরতি অব্যাহত রয়েছে। এদিকে কর্মবিরতির পাশাপাশি আজ রোববার বেলা ১২টার দিকে বরিশাল শেল-ই-বাংলা চিকিৎসা মহাবিদ্যালয় (শেবাচিম) হাসপাতালের পঞ্চম তলায় ডক্টর্স ক্লাবে প্রতিবাদ সভা করেছে ইন্টার্নি চিকিৎসকরা। সভায় ইন্টার্নিদের পাশাপাশি বহিঃবিভাগের বেশ কয়েকজন চিকিৎসক অংশগ্রহন করেছেন। সভায় অবিলম্বে শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ

হাসপাতালে কর্মরত ৪ ইন্টার্নি চিকিৎসকের বিরুদ্ধে দেয়া ইন্টার্নিশিপ স্থগিতাদেশ প্রত্যাহারের দাবী জানিয়েছেন তারা। অন্যথায় কর্মবিরতি চালিয়ে যাবার হুশিয়ারী দিয়েছেন ইন্টার্নি এবং বঙ্গবন্ধু ইন্টার্নি ডক্টর্স এ্যাসোসিয়েশনের নেতৃবৃন্দ।এদিকে হাসপাতালের বিভিন্ন ওয়ার্ডে সরেজমিনে ঘুরে দেখা গেছে, ইন্টার্নিদের কর্মবিরতির কারনে রোগীদের চিকিৎসা সেবা কিছুটা হলেও বিলম্বিত হচ্ছে। রোগী ভর্তি হওয়ার পর পরই তাৎক্ষনিক ভাবে রোগীর প্রাথমিক চিকিৎসা পাচ্ছেন না রোগীরা। হাসপাতালের নিয়মিত চিকিৎসকদের অপেক্ষায় ঘন্টার পর ঘন্টা সময় পার করতে হচ্ছে তাদের।  এ প্রসঙ্গে বরিশাল শের-ই-বাংলা চিকিৎসা মহবিদ্যালয় হাসপাতালের পরিচালক ডা. এসএম সিরাজুল ইসলাম বলেন, কেন্দ্রিয় কর্মসূচি অনুসরন করে বরিশালের ইন্টার্নিরাও কর্মবিরতি পালন করছে। দ্বিতীয় দিনের ন্যায় সকাল থেকে তারা কর্মবিরতি পালন করলেও এতে রোগীদের তেমন কোন সমস্যার সৃষ্টি হচ্ছে না। তিনি বলেন, আমাদের হাসপাতালে পর্যাপ্ত চিকিৎসক রয়েছেন। তবে যেহেতু শয্যার তুলনায় রোগীর সংখ্যা অনেক বেশি তাই সকল রোগীকে এক সাথে সেবা দিতে গিয়ে কিছুটা সময় বিলম্ব হওয়া স্বাভাবিক বলেও মন্তব্য করেন তিনি। তবে রোগীরা জতটা দাবী করছেন ততটা সমস্যা হচ্ছে না। কেননা আমি নিজেই সকাল থেকে হাসপাতালের বিভিন্ন ওয়ার্ডে পরিদর্শন করে চিকিৎসাধীন রোগীদের চিকিৎসা সেবার খোঁজ খবর নিয়েছি। এর পরেও চিকিৎসা সংক্রান্ত বিষয়ে কোন ত্রুটি থাকলে সে বিষয়ে রোগীদের কাছ থেকে অভিযোগ পেলে প্রয়োজনিয় ব্যবস্থা গ্রহন করার কথা জানিয়েছেন হাসপাতালের পরিচালক।

Facebook Comments

<a href=”http://barisallive24.com/wp-content/uploads/2017/05/infra-add.jpg” target=”_blank” rel=”noopener”><img src=”http://barisallive24.com/wp-content/uploads/2017/05/Hoopers1.jpg” width=”331″ height=”270″ /></a>