বাংলাদেশের সেরা অধিনায়ক মাশরাফি : আশরাফুল

জুলাই ০৭ ২০১৭, ১০:৫২

ক্যারিয়ারের শুরু থেকেই মাশরাফি-আশরাফুলের বন্ধুতা। ২০১২ সালের পর থেকে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে নেই আশরাফুল। সর্বকনিষ্ঠ টেস্ট সেঞ্চুরিয়ান এখন মাঠের বাইরে বসে বন্ধুর নেতৃত্ব পরখ করছেন। মাশরাফির হাত ধরে বাংলাদেশের অর্জন সবারই জানা। সম্প্রতি আবারো আলোচনার টেবিলে ‘অধিনায়ক মাশরাফি’। তবে এমন সময়ে বন্ধুকে পাশে পাচ্ছেন মাশরাফি। গতকাল বৃহস্পতিবার মিরপুর স্টেডিয়ামের ইনডোরে ব্যাটিং শেষে আশরাফুল বলেছেন, মাশরাফি বাংলাদেশের সেরা অধিনায়ক। নেতৃত্বের দায়িত্বের সঙ্গে তার পারফরম্যান্সও দারুণ। আশরাফুলের চোখে, গত কয়েক বছরে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে বাংলাদেশের উন্নতির কারণ, এখন অধিনায়করাও পারফর্ম করছে নিয়মিত।
মাশরাফির নেতৃত্বের মূল্যায়ন করতে গিয়ে আশরাফুল বলেছেন, ‘বাংলাদেশে এখন পর্যন্ত যত অধিনায়ক এসেছে সবাই সবার জায়গা থেকে তারা সেরাটা দেয়ার চেষ্টা করেছে। আমাদের সময় আমরা যেমন ছিলাম, তারপর আগে যারা ছিল। তার মধ্যে এই মুহূর্তে অবশ্য আমি বলবো যে, বাংলাদেশের সেরা অধিনায়ক মাশরাফি। সবকিছু যদি আমরা চিন্তা করি। কারণ ওর সাতটা অস্ত্রোপচার হয়েছে পায়ে। এভাবে খেলা চালিয়ে যাওয়ার জন্য বিরাট বড় মানসিকতা লাগে। এ ধরনের মানসিক শক্তি সবার মধ্যে নেই। একমাত্র মাশরাফির মধ্যে আছে বলেই সে এখনো চালিয়ে যাচ্ছে। এবং আমি বলবো যে দলটাকে খুব সুন্দরমতো নেতৃত্ব দিচ্ছে।’
জাতীয় দলের সাফল্যের জন্য মাশরাফির সঙ্গে দলের সিনিয়র ক্রিকেটার, কোচিং স্টাফদেরও কৃতিত্ব দিয়েছেন আশরাফুল। তিনি বলেছেন, অধিনায়কের দায়িত্বের সঙ্গে খেলোয়াড় হিসেবেও দারুণ পারফর্ম করছেন মাশরাফি। আর অধিনায়করা পারফর্ম
করছেন বলেই এগিয়ে যাচ্ছে বাংলাদেশের ক্রিকেট।
আশরাফুল বলেন, ‘সবকিছু মিলে আমি বলবো যে, মাশরাফি অসাধারণ নেতা। আমি মনে করি যে, সে জানে যে তার কখন কি করতে হবে। সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় যে, সে নিয়মিত পারফর্ম করছে। অধিনায়কত্ব তখনই সহজ হয় যখন খেলোয়াড় নিজে পারফর্ম করে। মাশরাফি, সাকিব, মুশফিকদের মতো ক্রিকেটারদের জন্য অধিনায়কত্ব সহজ আমি মনে করি। কারণ তারা নিজেরাই ধারাবাহিকভাবে পারফর্ম করে। শেষ ৫-৬ বছর ধরে যে আমাদের ক্রিকেটটা উন্নতি করছে তার পেছনে এটাই মূল অস্ত্র আমি মনে করি। আমাদের অধিনায়করাও পারফর্ম করছে।’
ক্রিকেটারদের সিনিয়র হওয়া, বয়স নিয়ে নেতিবাচক আলোচনার সংস্কৃতিতে ধীরে ধীরে পরিবর্তন আসবে বলে আশাবাদী আশরাফুল। তার মতে, কিছুটা পরিবর্তন হচ্ছে। তিনি উল্লেখ করেছেন, গত আড়াই-তিন বছরে র‌্যাংকিংয়ে বাংলাদেশের উত্তরণের কারণ সিনিয়র ক্রিকেটাররা ধারাবাহিকভাবে পারফর্ম করছে।
গত মৌসুমে জাতীয় লিগ, প্রিমিয়ার লিগে প্রত্যাশিত রান পাননি আশরাফুল। জাতীয় দলের সাবেক এ অধিনায়ক চাইছেন, এবার সর্বোচ্চ প্রস্তুতি নিয়ে মৌসুম শুরু করতে। আগামী তিন মাস কঠোর পরিশ্রমে নিজেকে প্রস্তুত করতে চান তিনি। নিজের পরিকল্পনা সম্পর্কে আশরাফুল বলেন, ‘এখন পরবর্তী তিনটা মাস আমি চাই যে, ভালো প্রস্তুতি নিতে পরের মৌসুমের জন্য। যেন নিজের কাছে মনে না হয় যে প্রস্তুতিটা পুরোপুরি ছিল না। ৯০ দিনে যদি ৫০ দিনও অনুশীলন করতে পারি আশাকরি সামনের মৌসুমে আমার পারফরম্যান্সটা দিতে পারবো।’
Facebook Comments

<a href=”http://barisallive24.com/wp-content/uploads/2017/05/infra-add.jpg” target=”_blank” rel=”noopener”><img src=”http://barisallive24.com/wp-content/uploads/2017/05/Hoopers1.jpg” width=”331″ height=”270″ /></a>