বাংলাদেশ ভয়ংকর দল, বলছেন কোহলি

আপডেট : June, 14, 2017, 10:28 pm

আরেকটা আইসিসি টুর্নামেন্ট, আরেকটা বাংলাদেশ-ভারত লড়াই। রোমাঞ্চ, উত্তেজনার পারদ স্বাভাবিকভাবে এখন ঊর্ধ্বমুখী। এই রোমাঞ্চ, এই উত্তেজনা নিশ্চয়ই স্পর্শ করছে দুই দলকেই। কাল এজবাস্টনে চ্যাম্পিয়নস ট্রফির সেমিফাইনালের আগে ভারত অধিনায়ক বাংলাদেশকে দেখছেন সমীহের চোখে। না, শুধু ক্রিকেটীয় সৌজন্য মেনে নয়; সাম্প্রতিক পরিসংখ্যান দেখেই বিরাট কোহলি বলছেন, বাংলাদেশ নিজেদের দিনে ভয়ংকর দল।

একটা সময় দুই দলের শক্তিমত্তার বিস্তর ব্যবধান থাকলেও এখন সেটা স্পষ্টই কমেছে। বিশেষ করে ওয়ানডেতে ভারতকে যে বাংলাদেশ হারাতে পারে, সেটির উজ্জ্বল উদাহরণ তো ২০১৫ সালের জুনে দেখা গেছে। দেশের মাঠে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজটা মাশরাফিরা জিতেছিলেন ২-১ ব্যবধানে।
শুধু ভারত কেন, বাংলাদেশ গত দুই বছরে দেশে, বিদেশে—দুই জায়গায় অনেক শক্তিশালী দলকে হারিয়ে বুঝিয়েছে, তারা এখন বদলে যাওয়া এক দল। চ্যাম্পিয়নস ট্রফির শেষ চারে বাংলাদেশকে দেখে তাই অবাক হচ্ছেন না কোহলি, ‘তারা যে ভালো দল, সেটা এখন আর কারও কাছে বিস্ময় নয়। তারা অনেক উন্নতি করছে। তাদের ক্রিকেট ব্যবস্থাপনাকে কৃতিত্ব দিতে হবে। কৃতিত্ব দিতে হবে তাদের খেলোয়াড়কে, যারা অনেক দায়িত্ব নিয়ে খেলে। নিজেদের দিনে তারা ভয়ংকর এক দল। সবাই এটা বুঝতে পারছে। নিশ্চয়ই জানেন, কারও বিপক্ষে জয় নিশ্চিত নয়। বাংলাদেশের অনেক উন্নতি হয়েছে। গত দুই বছরে ভালো খেলে তারা সেটি বুঝিয়েছে। ২০১৫ বিশ্বকাপে তারা অনেক ভালো

করেছে। কোনো প্রতিপক্ষকে হালকাভাবে নিতে পারেন না।’
চ্যাম্পিয়নস ট্রফির শেষ চারের লড়াইয়ের আগে ঘুরে ফিরে আসছে মেলবোর্নে ২০১৫ বিশ্বকাপের কোয়ার্টার ফাইনাল। যে ম্যাচে বাংলাদেশকে ১০৯ রানে হারিয়ে সেমিফাইনালে ওঠে ভারত। ওই ম্যাচে আম্পায়ারিং নিয়ে হয়েছে অনেক বিতর্ক। যদিও ভারত অধিনায়ক পেছনের স্মৃতি আঁকড়ে ধরে থাকতে চান না, ‘২৪ মাস হয়ে গেছে। মনে হয় না ওই ম্যাচ নিয়ে দুই দলের কেউ ভাবে। ওই ম্যাচের পর আমরা একে অপরের বিপক্ষে অনেক খেলেছি। অতীতে কী হয়েছে, সেটা নিয়ে সত্যি ভাবছি না।’
কোহলি না ভাবলেও দুই দল মুখোমুখি হওয়ার আগে উত্তেজনার আঁচ তাতে নিশ্চয়ই কমছে না। গত কয়েক বছরের মাঠে, মাঠের বাইরে ঘটে যাওয়া কিছু ঘটনায় স্পষ্ট হয়ে ওঠে দুই দলের তীব্র প্রতিদ্বন্দ্বিতার চিত্র। তবে এবার লড়াইয়ের আগে কোহলির কণ্ঠে শান্তির গান, বাংলাদেশকে নিয়ে একরাশ স্তুতি, ‘আগেই বললাম, তারা বিশ্বের সেরা আট দলের একটি। অবশ্যই তারা ভালো ক্রিকেট খেলছে। তাদের দুর্দান্ত কিছু খেলোয়াড় আছে, যারা দক্ষ, বাংলাদেশের হয়ে খেলতে অঙ্গীকারবদ্ধ, অনেক আবেগ নিয়ে খেলে। এ পর্যায়ে অনেক জিততে চায় তারা। এতে ওদের মনোভাবটা বোঝা যায়। সেদিন যেভাবে (নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে) খেলল, রান তাড়া করল। যে ধৈর্য দেখিয়েছে, তাতে বোঝা যায় তারা এখন অনেক পরিণত দল। হ্যাঁ, বাংলাদেশ অনেক প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ দল।’

Facebook Comments