বাংলাদেশ ম্যাচের টিকিট চাই: প্রবাসীদের হাহাকার

আপডেট : June, 12, 2017, 10:34 am

উজিল্যান্ডের বিপক্ষে বাংলাদেশের ম্যাচ দেখতে সাকুল্যে হাজার খানেক প্রবাসী বাংলাদেশি উপস্থিত ছিলেন মাঠে। কার্ডিফে বাংলাদেশের স্মরণীয় জয়ের ম্যাচে পুরো গ্যালারি ছিল ফাঁকা। শুক্রবার কাজের দিন, জুম্মার, আগের দিন ছিল পার্লামেন্ট নির্বাচন। কার্ডিফে আবার খুব বেশি বাংলাদেশিরও বসবাস নয়। হাজার বিশেক হবে।এসব কারণে ওই ম্যাচে মাঠে দর্শক হয়নি।

কিন্তু বৃহস্পতিবারের এজবাস্টন সেমিফাইনাল নিয়ে ব্রিটেনে বসবাসরত লক্ষ লক্ষ বাংলাদেশির মধ্যে তুমুল উৎসাহ দেখা যাচ্ছে। ইংল্যান্ড থেকে যতদূর জানতে পেরেছি তাতে মাশরাফিরা সেমিফাইনালে ওঠায় আনন্দে মাতোয়ারা গোটা বাংলাদেশ। ব্রিটেনে প্রায় পাঁচ লক্ষ বাংলাদেশির বসবাস। বাংলাদেশ সেমিফাইনালে ওঠায় তাদের মধ্যেও সমান উত্তেজনা বইছে। অনেকেই কেন নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ম্যাচ দেখতে গেলেন না সেই আফসোসের আগুনে জ্বলছেন এখন। তবে কিউইদের বিপক্ষে অসাধারণ জয়ে তারা মহা আনন্দিত এবং গর্বিত।

প্রবাসীদের সবার দৃষ্টি এখন বার্মিংহামের দিকে। ১৫ তারিখের বাংলাদেশের সেমিফাইনালটা মাঠে এসে দেখার জন্য ব্যাকুল হয়ে ওঠে উঠেছেন তরা। কিন্তু খেলা তো দেখবেন, টিকিট মিলবে কোথায়? সেমিফাইনালের টিকিট আগেই যে প্রায় শেষ হয়ে গেছে। বাংলাদেশ ম্যাচের টিকিট এখন নাই বললেই চলেই। এ রিপোর্ট যখন লিখছি তখন মাত্র কয়েকশ টিকিট বিক্রি হবার বাকি ছিল।

কিন্তু টিকির চাহিদা ৫০ হাজারেরও বেশি। বাংলাদেশের সম্ভাব্য প্রতিপক্ষ ভারত হতে পারে বলে টিকিটের চাহিদা আরও বেড়ে গেছে আজ থেকে। কিন্তু সমস্যা হলো, এজবাস্টনের দর্শক ধারণ ক্ষমতা মাত্র ২৫ হাজার। ম্যাচটা এখানে না হয়ে যদি লর্ডসে হতো তাহলে টিকিটের

চাহিদা অনেকটাই মেটাতে পারতেন আয়োজকরা। লর্ডসের আসন সংখ্যা অনেক বেশি।

বাংলাদেশ যে সেমিফাইনালে উঠতে পারবে, এই বিশ্বাস ছিল না কারো। তাই শেষ চারের ম্যাচ দুটি নিয়ে তেমন কোনো আগ্রহ ছিল না প্রবাসীদের।  কিন্তু এখন তো দৃশ্যপটের পরিবর্তন। মাঠে বসে এ দৃশ্য না দেখলেই নয়। কিন্তু টিকিট মিলবে কোথায় সেই চিন্তায় অস্থির হয়ে উঠেছেন তারা। লন্ডন, কার্ডিফ, ম্যানচেস্টার, সোয়ানসি সিটি, স্কটল্যান্ড থেকেও খেলা দেখার জন্য বার্মিংহামে আসার জন্য মরিয়া হয়ে উঠেছেন হাজার হাজার প্রবাসী বাঙালি। বাংলাদেশ সেমিফাইনালে ওঠের সঙ্গে সঙ্গেই অনেকে অনলাইনে টিকিট কেটে ফেলেছেন। যারা দেরি করেছেন তারা পড়েছেন অনিশ্চয়তায়। টিকিটের জন্য তারা বিভিন্ন জায়গায় নক করছেন।

সেমিফাইনালে কারা যাবে এবং লাইন আপ কেমন হবে তা ঠিক ছিল না। এ দুই ম্যাচের টিকিটের বেশিরভাগই কিনেছেন ব্রিটিশরা। ভারতীয়দের সংখ্যাও কম নয়। দেখা যাচ্ছে, ভারতীয়দের অনেকেই প্রথম সেমিফাইনালের টিকিট কিনেছেন।। আবার ইংল্যান্ডের কেউকে কিনেছেন দ্বিতীয় সেমিফাইনালের টিকিট। শেষ চারের লাইন আপ ভিন্ন হওয়ায় তাদের অনেকেই এখন টিকিট বিক্রি করে দিবেন। এই সব টিকিটের খোঁজেই এখন প্রবাসীরা।

এছাড়া বিভিন্ন এজেন্সি বা দাদাল শ্রেণীদের কাছেও টিকিট মজুদ রয়েছে যারা আগেভাগেই নির্দিষ্ট দামে টিকিট কিনে রাখে, পরে তা চড়ে দামে বিক্রি করে। এসব দালাল ও এজেন্সির কাছ থেকে অনেক বেশি মূল্যে টিকিট কিনতে পিছপা হচ্ছেন না প্রবাসীরা। বাংলাদেশের গৌরবের সেমিফাইনাল। ম্যাচটা যে কোনো মূল্যে দেখতেই হবে। টাকা এখানে কোনো ব্যাপারই নয়।

Facebook Comments