ভিয়েতনাম কৈ মাছ কেন চাষ করবেন

আপডেট : May, 10, 2017, 4:26 pm

ভিয়েতনাম কৈ সর্বপ্রথম ভিয়েতনাম থেকে ২০১১ সালে বাংলাদেশে আনা হয়। এরপর ওই মাছ চাষ শুরু করা হয়। ভিয়েতনাম কৈ’র রং ও স্বাদ অনেকটাই দেশি কৈ’র মতো। তবে এ মাছ খুব দ্রুত বৃদ্ধি পায়। তাই দেশি কৈ’র অভাব পূরণ করতে ভিয়েতনাম কৈ চাষ করুন।

কেন চাষ করবেন
• খেতে সুস্বাদু হওয়ায় ব্যাপক গ্রহণযোগ্যতা পেয়েছে।
• ভিয়েতনাম কৈ মাছ খুব দ্রুত বৃদ্ধি পায়।
• মাত্র ৪ মাসে ১৫০ থেকে ২০০ গ্রাম ওজন হয়।
• চাষ পদ্ধতি সহজ ও অন্য মাছ চাষের চেয়ে লাভ বেশি।
• বাংলাদেশের জলাশয় ও আবহাওয়া এই মাছ চাষে উপযোগী।
• ভিয়েতনাম কৈ মাছ একক অথবা দেশি শিং-মাগুর মাছের সঙ্গে মিশ্র চাষ করা যায়।

 

বিক্রয় করবেন কোথায়
অনেকের মনে প্রশ্ন জাগতে পারে যে, মাছ উৎপাদন করে বিক্রয় করব কোথায়? এটা একদম সহজ ব্যাপার। কেননা প্রতিটি জেলা বা থানা পর্যায়ে

মাছের আড়ৎ রয়েছে এই সব মাছের আড়তে বিক্রি করা যায়। তাছাড়া ঢাকার যাত্রাবাড়ী, কাওরান বাজার, রামপুরা, সাভারসহ বিভিন্ন স্থানে বিশাল বড় মাছের আড়ৎ বা বাজার রয়েছে। এখানে প্রতিদিন হাজার হাজার কেজি পাইকারি মাছ বিক্রি করা হয়। এসব আড়ৎ বা বাজারে সহজেই ভিয়েতনাম কৈ মাছ বিক্রি করা যায়।

 

কিছু পরামর্শ
• ১০০টি মাছের পোনা এক কেজিতে আসার পূর্ব পর্যন্ত নার্সারি খাবার প্রয়োগ করুন।
• অধিক ঘনত্ব পরিহার করুন।
• মাছ সঠিকভাবে খাবার খায় কি না, সে দিকে লক্ষ্য রাখুন।
• ৭ দিন পরপর মাছ ওজন করুন
• দেহের ওজনের সঙ্গে মিল রেখে খাবার দিতে থাকুন।
• পুকুরের পানি সেচের বিকল্প ব্যবস্থা রাখুন।
• ব্যাঙ, ডোরা সাপ থেকে মাছের পোনা রক্ষা করুন।
• পুকুরের পাড় দিয়ে ৩ ফুট উঁচু করে নেট জাল দিয়ে বেড়া দিন।
• সঠিক জাতের ভিয়েতনাম কৈ মাছের পোনা মজুদ করুন।

Facebook Comments