ভোলা-লক্ষীপুর রুটে ফেরি বিকল, গাড়ির দীর্ঘ সারি

ভোলা প্রতিনিধিঃ ভোলা-লক্ষীপুর রুটে চলমান ৩টি ফেরির মধ্যে একটি ফেরি ৫ দিন ধরে বিকল থাকায় ভোলা ও লক্ষীপুর ঘাটে পারাপারের অপেক্ষায় তিন শতাধীক যানবাহন অপেক্ষা করছে। ফেরি ঘাটের ব্যবস্থাপক (বাণিজ্য) আবু আলম হাওলাদার জানান, এই রুটে কুসুমকলি, কনকচাপা ও কিষাণী নামের ফেরি চলাচল করে। এর মধ্যে গত সোমবার (১০ জুলাই)  ফেরি কিষাণী বিকল হয়ে যায়। এর পর থেকে ফেরি ঘাটের দু’পাড়ে যানবাহন পারপারের অপেক্ষায় জমে যায়।
শনিবার (১৫ জুলাই) বেলা সাড়ে ১১টা পর্যন্ত লক্ষীপুর মজু চৌধুরীহাট ফেরি ঘাটে ১৫৩টি ও ভোলা ঘাটে ১৫১টি যানবাহন পারপারের অপেক্ষায় রয়েছে। লক্ষীপুর ঘাটের ইনচার্জ শিহাব উদ্দিন জানান, তার ঘাটে ১৫৩টি যানবাহন অপেক্ষা করছে। অপেক্ষায় থেকে অনেক যানবাহনের চালক
ক্ষোভ প্রকাশ করছেন।
ভোলাসহ দক্ষিণাঞ্চলের যে কোন স্থান থেকে এই রুটে স্বল্প সময়ে চট্টগ্রাম ও কুমিলা অঞ্চলে যাতায়াত করা যায়। সেকারণে এই ফেরি ঘাটে সবসময়ই চাপ থাকে। এখানে কমপক্ষে ৬টি ফেরি দরকার। ফেরি ঘাটের ব্যবস্থাপক (বাণিজ্য) আবু আলম হাওলাদার আরও জানান, এই রুটে আরও ফেরি দেয়ার জন্য তিনি বিআইডব্লিউটিসি’র মহা ব্যবস্থাপক শাহাদত আলী বরাবর বেশ কয়েকবার চিঠি দিয়েছেন। সবশেষে গত ১০ জুলাই পত্র দিয়েছেন কিন্তু কোন কার্যকর ব্যবস্থা না নেয়ায় তিনি অসহায় হয়ে পড়েছেন।
বিকল ফেরি কিষাণী বিআইডব্লিউটিসি’র নারায়ণগঞ্জের ১নং ঘাটে রয়েছে। ভোলার ব্যবসায়ীদের দাবি এই রুটে আরও ৩টি ফেরি দেয়া হোক। এ ব্যাপারে ভোলাবাসী বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ ও নৌ-পরিবহন মন্ত্রী শাহজাহান খানের হস্তক্ষেপ কামনা করছেন।
Facebook Comments

<a href=”http://barisallive24.com/wp-content/uploads/2017/05/infra-add.jpg” target=”_blank” rel=”noopener”><img src=”http://barisallive24.com/wp-content/uploads/2017/05/Hoopers1.jpg” width=”331″ height=”270″ /></a>