মাছে ছক্কা

সেপ্টেম্বর ১২ ২০১৭, ১৯:২১

ঈদুল আজহার সময়টায় মাংস তো বেশ খাওয়া হলো। এখন যেন মাছ খাওয়ার পালা। মাছেরও সময় এখন। স্বাদ বদলে খেতে পারেন মাছের বিভিন্ন পদ। সে রকম কিছু রেসিপি দিয়েছেন  শাহানা পারভীন

 

রুই মাছের কালিয়া

উপকরণ

রুই মাছ ৫-৬ টুকরা, আলু (মাঝারি) ২টি, পেঁয়াজ বাটা ২ টেবিল চামচ (উঁচু), লেবুর রস ১ টেবিল চামচ, রসুন বাটা ১ চা-চামচ, আদা বাটা ১ চা-চামচ, মরিচ গুঁড়া ১ চা-চামচ, হলুদ গুঁড়া ১ চা-চামচ, টমেটো সস ২ টেবিল চামচ, গরম মসলা গুঁড়া ১ চা-চামচ, ময়দা ১ টেবিল চামচ, ফেটানো ডিম অর্ধেকটা, কাঁচা মরিচ ফালি ২টি, লবণ স্বাদমতো ও তেল প্রয়োজনমতো।

প্রণালি

মাছ ধুয়ে পানি ঝরিয়ে লবণ, লেবুর রস, হলুদ গুঁড়া ও মরিচ গুঁড়া মেখে ম্যারিনেট করে রাখতে হবে পাঁচ মিনিট। ফেটানো ডিমে চুবিয়ে ময়দায় মেখে ডুবো তেলে ভেজে মাছ তুলে রাখতে হবে। আলুর মধ্যে লবণ ও হলুদ গুঁড়া মেখে ভেজে রাখুন। এবার ফ্রাইপ্যানে তেল দিয়ে বাটা ও গুঁড়া মসলা দিয়ে কষাতে হবে। কষানো হলে এক কাপ গরম পানি দিয়ে তাতে মাছ ও আলু দিন। রুই মাছ মাখামাখা হলে গরম মসলার গুঁড়া ও কাঁচা মরিচ দিয়ে নামিয়ে নিন।

লইট্টা শুঁটকিতে কাঁচকলা ভুনা

উপকরণ

লইট্টা শুঁটকি ৫০ গ্রাম, কাঁচকলা ২টি, পেঁয়াজ কুচি ২ টেবিল চামচ, রসুন কুচি ১ চা-চামচ, রসুন বাটা ১ চা-চামচ, জিরা বাটা ১ চা-চামচ, মরিচ গুঁড়া ১ চা-চামচ, হলুদ গুঁড়া আধা চা-চামচ, কাঁচা মরিচ ফালি ২-৩টি, শুকনা মরিচ ২টি, আস্ত জিরা ১ চিমটি, লবণ স্বাদমতো ও তেল প্রয়োজনমতো।

প্রণালি

শুঁটটি মাছ তাওয়ায় টেলে ভালো করে পরিষ্কার করে শিল-পাটায় থেঁতো করে নিতে হবে। কাঁচকলা ছোট ছোট করে কেটে লবণ ও হলুদ গুঁড়া দিয়ে সেদ্ধ করে আধা ভাঙা করে নিন। ফ্রাইপ্যানে তেল গরম করে তাতে বাটা ও গুঁড়া মসলা দিয়ে একটু ভেজে শুঁটকি মাছ দিতে হবে। মাছ কষানো হলে কাঁচকলা দিয়ে নাড়াচাড়া করে সামান্য পানি দিয়ে ঢেকে দিন। মাছ সেদ্ধ হলে অন্য একটি ফ্রাইপ্যানে তেল দিয়ে তাতে আস্ত জিরা, পেঁয়াজ কুচি, রসুন কুচি, শুকনো মরিচ ফোড়ন দিয়ে নামিয়ে নিলেই চলবে।

কাচকি মাছের বড়া

উপকরণ

কাচকি মাছ ১ কাপ, মসুর ডাল বাটা আধা কাপ, পেঁয়াজ কুচি ২ টেবিল চামচ, কাঁচা মরিচ কুচি ২টি, ধনেপাতা কুচি ১ টেবিল চামচ, আদা বাটা ১ চা-চামচ, রসুন কাটা ১ চা-চামচ, হলুদ গুঁড়া আধা চা-চামচ, লবণ স্বাদমতো, তেল ভাজার জন্য।

প্রণালি

তেল ছাড়া বাকি সব উপকরণ দিয়ে ভালো করে মেখে মিশ্রণ দিতে পছন্দমতো বড়া তৈরি করে ডুবো তেলে

ভেজে পরিবেশন করুন।

জিরা ইলিশ

উপকরণ

ইলিশ মাছ ৫ টুকরা, জিরা বাটা আধা চা–চামচ, জিরা গুঁড়া (টালা) আধা চা-চামচ, পেঁয়াজ বাটা ১ টেবিল চামচ, পেঁয়াজ কুচি ১ টেবিল চামচ, মরিচ গুঁড়া ১ চা-চামচ, হলুদ গুঁড়া আধা চা-চামচ, লবণ স্বাদমতো, কাঁচা মরিচ ২-৩টি ও তেল প্রয়োজনমতো।

প্রণালি

ইলিশ মাছ কেটে ধুয়ে লবণ, হলুদ মেখে তেলে ভেজে তুলে রাখুন। ফ্রাইপ্যানে আরও কিছু তেল দিয়ে তাতে পেঁয়াজ বাটা, জিরা বাটা, মরিচ গুঁড়া, হলুদ গুঁড়া, লবণ দিয়ে ভুনে এক কাপ পানি দিয়ে দিন। ফুটে উঠলে ভাজা মাছ দিয়ে কাঁচা মরিচ ফালি ও ভাজা জিরা গুঁড়া ছড়িয়ে দিন। এরপর নামিয়ে নিন।

পাতায় মোড়া কই মাছ

উপকরণ

কই মাছ ৪টি, পেঁয়াজ বাটা ১ টেবিল চামচ, রসুন বাটা ১ চা-চামচ, জিরা বাটা ১ চা-চামচ, সরিষা বাটা (১টি কাঁচা মরিচ দিয়ে বাটা) ১ চা-চামচ, কাঁচা মরিচ ফালি ৪টি, হলুদ গুঁড়া আধা চা-চামচ, মরিচ গুঁড়া ১ চা-চামচ, লবণ স্বাদমতো, সরিষার তেল প্রয়োজনমতো ও কলাপাতা ২ টুকরা।

প্রণালি

কই মাছ কেটে ও চিরে ভালো করে ধুয়ে পানি ঝরিয়ে নিতে হবে। তারপর হলুদ গুঁড়া, মরিচ গুঁড়া, লবণ ও রসুন বাটা দিয়ে ম্যারিনেট করে রাখতে হবে পাঁচ মিনিট। এবার তেল দিয়ে হালকা ভেজে তুলে রাখতে হবে। ফ্রাইপ্যানে আরও কিছু তেল দিয়ে তাতে বাটা ও গুঁড়া মসলা, লবণ এবং সামান্য পানি দিয়ে মসলা কষিয়ে নিতে হবে। মসলা কষা হলে তাতে আধা কাপ পানি দিয়ে ভাজা কই মাছগুলো দিয়ে দিতে হবে। মাছ মাখামাখা হলে একটি কলাপাতায় মাছগুলো মুড়ে কাঁচা মরিচ ফালি দিয়ে তাওয়ায় হালকা আঁচে এপিঠ-ওপিঠ করে গরম গরম পরিবেশন করুন।

শোল মাছের সালাদ

উপকরণ

শোল মাছ ৪ টুকরা, শসা কুচি ১ কাপ, টমেটো কুচি ১টি, গাজর কুচি (সেদ্ধ করা) ১ টেবিল চামচ, পেঁয়াজ কুচি (সিরকায় ভিজিয়ে রাখা) ২ টেবিল চামচ, কাঁচা মরিচ কুচি ১ চা-চামচ, ধনেপাতা কুচি ১ টেবিল চামচ।
সালাদ ড্রেসিংয়ের জন্য: টমেটো সস ২ টেবিল চামচ, চিনি আধা চা-চামচ, গোলমরিচ গুঁড়া আধা চা-চামচ, লেবুর রস ১ টেবিল চামচ ও লবণ স্বাদমতো। এই উপকরণগুলো মিশিয়ে সালাদ ড্রেসিং তৈরি করে নিন।
শোল মাছ ভাজার জন্য: তেল পরিমাণমতো, মরিচ গুঁড়া, হলুদ গুঁড়া ও রসুন বাটা আধা চা-চামচ করে এবং পরিমাণমতো লবণ দিয়ে মাছ ভেজে নিতে হবে।

প্রণালি

মাছ ধুয়ে মসলা মেখে ভেজে কাঁটা বেছে রাখুন। পরিবেশনের ঠিক আগে ওপরের বাকি সব উপকরণ ভাজা শোল মাছের সঙ্গে মেখে ভাত, রুটি বা পোলাওয়ের সঙ্গে পরিবেশন করুন মাছের সালাদ।

Facebook Comments